কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা, মামলা নিতে পুলিশের গড়িমসির অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক, লক্ষ্মীপুর
 | প্রকাশিত : ০২ আগস্ট ২০১৯, ২১:৪৬

জমি নিয়ে বিরোধে লক্ষ্মীপুরে চন্দ্রগেঞ্জের পালপাড়া এলাকায় হাসিনা বেগম নামে নারীকে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা করেছে প্রতিপক্ষরা। আশঙ্কাজনক অবস্থায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ওই নারী। ঘটনার চার দিন পার হলেও এখনো হাসিনা বেগমের পুরোপুরি জ্ঞান ফিরেনি বলে জানিয়েছে তার স্কুল পড়ুয়া ছেলে ফরিদ খান।

স্বজনদের অভিযোগ, এ ঘটনায় ওইদিন বিকালে সাতজনকে আসামি করে মামলা দিতে গেলেও এখনো মামলা নেয়নি পুলিশ।

আহত নারীর স্বজনরা জানায়, দুই বছরে আগে হাসিনা বেগম চন্দ্রগঞ্জের পালপাড়া এলাকার খোকন চন্দ্র দাসের কাছ থেকে তিন শতক জমি ক্রয় করেন। এরপর থেকে জাহানারা বেগম গং ওই জমি তাদের কাছে বিক্রি করার জন্য বিভিন্নভাবে চাপ সৃষ্টি করে। কিন্তু ওই জমি বিক্রি করবে না বলে জানিয়ে দেন হাসিনা বেগম। এরপর থেকে কারণে-অকারণে হাসিনার পরিবারের লোকজনের সাথে বিরোধ করে আসছিল জাহানারা ও তার লোকজন।

মঙ্গলবার দুপুরে তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে জাহানারা ও তার লোকজন হাসিনা বেগমকে কুপিয়ে গুরুতর আহত করে। পরে আশঙ্কাজনক অবস্থায় উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। ওইদিন রাতে হাসিনার অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় স্থানান্তর করে। বর্তমানে সে একটি প্রাইভেট হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

এদিকে হাসিনা বেগমের স্কুল পড়ুয়া ছেলে কান্নাজড়িত কন্ঠে শুক্রবার দুপুরে জেলায় কর্মরত সাংবাদিকদের জানায়, তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে তার (মা) হাসিনা বেগমকে কুপিযে গুরুতর আহত করে প্রতিপক্ষের লোকজন। এ ঘটনায় জাহানারা বেগম, আসাদুল ইসলাম, ইব্রাহিম ও ইসলাম খাঁনসহ সাতজনকে আসামি করে থানায় একটি অভিযোগ করি। কিন্তু মামলা না নিয়ে গড়িমসি করছে পুলিশ।

সদর হাসপাতালের ওই দিনের কর্তব্যরত চিকিৎসক জানান, হাসিনা বেগমের মাথায় ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে কয়েকটি কুপের চিহ্ন রয়েছে। তার অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা পাঠনো হয়েছে।

চন্দ্রগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবুল কালাম আজাদ জানান, এসব বিষয়ে থানায় কেউ কোন অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

(ঢাকাটাইমস/২আগস্ট/এলএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত