কাঁঠালবাড়ি-শিমুলিয়ায় ঢাকামুখী মানুষের ভিড়

মাদারীপুর প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ১৭ আগস্ট ২০১৯, ১০:৫৬ | প্রকাশিত : ১৭ আগস্ট ২০১৯, ১০:৫৪

ঈদের ছুটির শেষে কাঁঠালবাড়ি-শিমুলিয়া নৌরুট হয়ে কর্মস্থল রাজধানীতে ফিরতে শুরু করেছে কর্মজীবী মানুষ।

শনিবার বেলা বাড়ার সাথে সাথে এই নৌরুটে যাত্রীদের ভিড় বাড়তে থাকে। ভিড় সামাল দিতে লঞ্চ, স্পিডবোট ছাড়াও ফেরিতে যাত্রীদের পারাপার করা হচ্ছে। তবে বরাবরের মতো এবারও কাঁঠালাবাড়ী ঘাটে যাত্রীদের কাছে থেকে অতিরিক্ত ভাড়া নেয়ার অভিযোগ রয়েছে। 

ঘাটের একাধিক সূত্রে জানা যায়, বেলা বাড়ার সাথে সাথে শিমুলীয়া-কাঁঠালবাড়ি নৌরুট হয়ে দক্ষিণাঞ্চলের যাত্রীদের ভিড় বাড়তে শুরু করে। কাঁঠালবাড়ি ঘাট থেকে ছেড়ে যাওয়া প্রতিটি লঞ্চেই ছিল উপচেপড়া ভিড়। লঞ্চে ভিড় সামাল দিতে বিআইডব্লিউটিএ, পুলিশ, র‌্যাব, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটসহ বিপুল সংখ্যক আইনশৃংখলা বাহিনী নিয়োজিত রয়েছে। 

বরিশাল, খুলনাসহ দক্ষিণাঞ্চলের বিভিন্ন জেলা থেকে প্রতিটি যানবাহন বোঝাই হয়ে যাত্রী কাঠালবাড়ি ঘাটে আসছেন। তবে ঘাট পর্যন্ত আসতে যাত্রীদের গুণতে হচ্ছে দেড় থেকে দ্বিগুণ ভাড়া। এরুটের স্পিডবোট ও কিছু কিছু লঞ্চেও বাড়তি ভাড়া আদায়ের অভিযোগ উঠেছে। নদী পাড়ি দিয়ে শিমুলিয়া ঘাট থেকে বাড়তি ভাড়া গুণে গন্তব্যে পৌঁছাতে হচ্ছে।

এদিকে ফেরিতে যানবাহনের চাপ তেমন নেই। তবে প্রচুর যাত্রী ফেরিতে চেপেই নদী পার হচ্ছেন।

বিআইডব্লিউটিসি’র কাঁঠালবাড়ি ঘাটের ব্যবস্থাপক আব্দুস সালাম ঢাকাটাইমসকে বলেন, ছুঁটির শেষ দিনে বিপুল পরিমাণের যাত্রী আসায় যৌথ উদ্যোগে লঞ্চ ছাড়াও ফেরি দিয়ে যাত্রী পারাপার করা হচ্ছে। 

নির্ধারিত ২৫ টাকার মাধ্যমে যাত্রীরা পদ্মা পাড়ি দিচ্ছে। এছাড়া শিমুলিয়া ঘাট থেকেও খালি ফেরি নিয়ে আসা হচ্ছে, যাতে করে যাত্রীদের সেবা দেয়া যায়।’

কাঁঠালবাড়ি ঘাট কর্মরত বিআইডব্লিউটিএ’র টিআই আক্তার হোসেন বলেন, ‘ঈদে যাত্রী সেবায় ১৮টি ফেরি, ৮৭টি লঞ্চ, দেড় শতাধিক স্পিডবোট রাখা হয়েছে। প্রায় তিন শতাধিক আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য সার্বক্ষণিক কাজ করছে। যদি অতিরিক্ত ভাড়া বা যাত্রী বোঝাইয়ে নির্দিষ্ট অভিযোগ পাই, তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেয়া হবে। এখানে কাউকেই ছাড় দেয়া হবে না।’ 

ঢাকাটাইমস/১৭আগস্ট/ইএস

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :