এই সরকার প্রতারক: ফখরুল

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ২০ আগস্ট ২০১৯, ১৫:৫৪ | প্রকাশিত : ২০ আগস্ট ২০১৯, ১৫:৩৯

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ‘এই সরকার পুরোপুরি প্রতারক সরকারে পরিণত হয়েছে। এখানে লুট ছাড়া কিছু নেই। একেবারে তৃণমূল থেকে শুরু করে উপর মহল পর্যন্ত দেশ আজ লুটপাটের অভয়ারণ্যে পরিণত হয়েছে।’

মঙ্গলবার জাতীয় প্রেসক্লাবে ‘আমার দেশ আমার শিল্প’ শীর্ষক এক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন। সভার আয়োজন করে ন্যাশনালিস্ট রিসার্চ সেন্টার (এনআরসি) নামে একটি সংগঠন।

সরকারকে ফ্যাসিস্ট দাবি করে ফখরুল বলেন, ‘এদের হাত থেকে দেশকে বাঁচাতে হলে গণতন্ত্রকে পুনরুদ্ধার করতে হবে। এই মুহূর্তে বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করে আনা অনিবার্য।’

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আমাদের এখানে ম্যানুফেকচারিং ইন্ডাস্ট্রিস গড়ে উঠছে না। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে ইন্ডাস্ট্রিস বলতে গার্মেন্টস। আজকে আমাদের শিল্পের যদি বিকাশ ঘটাতে হয় তাহলে বাংলাদেশকে নিয়ে চিন্তা করতে হবে। এর জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। সরকারের ব্যর্থতা এই জায়গাতেই। তারা সেই সুযোগ সৃষ্টি করতে পারেনি।’

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘চামড়া শিল্প চরম বিপাকের মধ্যে পড়েছে। এই কোরাবানি ঈদে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানগুলো, এতিমখানাগুলো। যে এতিমখানাগুলোতে এই চামড়া থেকেই বছরের অর্ধেক সময়ের অর্থের সংস্থান হতো, কিন্তু অত্যন্ত সুচারুরূপে কৌশলে কারসাজি করে সেই চামড়ার দাম না দিয়ে নষ্ট করার ব্যবস্থা করা হয়েছে। সময়মতো চামড়া বিক্রি না হওয়ায় অর্ধেকের বেশি চামড়া নষ্ট হয়ে গেছে।’

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘গতকাল একটা কথা শুনলাম, এই যে মেট্রোরেল, এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের একেকটা পিলার নাকি একেকজন সরকারি দলের লোকজনকে দেয়া হয়েছে। তো আমি জিজ্ঞেস করলাম- ‘এখানে তো বিদেশি বিনিয়োগকারীরা রয়েছে। এখানে তো তারা কাজ করছে’। পরে জানলাম একেকটা পিলার একেকজন ক্ষমতাসীন সরকারি দলের লোককে দেয়ার জন্য সেইসব বিনিয়োগকারীদের বাধ্য করা হয়েছে। এই যদি অবস্থা হয়, লুট ছাড়া কোনও কিছু নাই। এই সরকারের লোকেরা লুট করে যাওয়া ছাড়া কিছু করছে না। তাই দেশকে বাঁচাতে হলে গণতন্ত্রকে ফিরিয়ে আনতে হলে দেশপ্রেমিক নেতাকে ফিরিয়ে আনতে হবে। দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করে নিয়ে আসতে হবে। আর জনগণের ম্যান্ডেট নেয়া সরকার নিয়ে আসতে হবে।’

বিএনপি মহাসচিব আরও বলেন, ‘গ্রাম থেকে শহর- দেশের যে প্রান্তের মানুষের সঙ্গেই কথা বলেন, যদি ইনভেস্টার, ব্যাংকারদের সাথে কথা বলেন, তাহলে দেখবেন যে সব দিকে শুধু লুট চলছে। ভাগ-বাটোয়ারা করে নিচ্ছে আওয়ামী লীগ নেতারা। টিআর কাবিখা থেকে শুরু করে মেগা প্রজেক্ট পর্যন্ত সব জায়গায় ভাগ-বাটোয়ারার মহোৎসব চলছে।’
একই অনুষ্ঠানে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু বলেন, সারা দেশে ভয়াবহ বন্যা-নদীভাঙন, মহামারি ডেঙ্গু ও চামড়া শিল্প বিপর্যয়ের এই দুঃসময়ে দেশে প্রধানমন্ত্রী বলে কেউ আছেন কি না, সরকার বলে কিছু আছে কি না।

দুদু বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী আছে কি নেই, সরকার আছে কি নেই, এটা এখন একটা বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। সরকার থাকলে তো চামড়া শিল্পের এমন বিপর্যয় হতো না। সরকার থাকলে তো ডেঙ্গুতে এত মানুষের মৃত্যু হতো না। সরকার থাকলে তো ব্যাংকের টাকা এভাবে চুরি হওয়ার কথা নয়। সরকার প্রধান থাকলে নিশ্চয়ই এগুলোর যথাযথ তদারকির ব্যবস্থা করতো। অর্থাৎ দেশের সর্বক্ষেত্রে সমস্ত ব্যবস্থা একদম ভেঙে পড়েছে।’

দুদু বলেন, ‘১৯৭১ সালে যে দেশ এক সাগর রক্তের বিনিময়ে স্বাধীন হয়েছে সেই বীর জাতির দেশটা আজকে ব্যর্থ রাষ্ট্রে পরিণত হয়েছে। দেশে আইন-শৃঙ্খলা বলতে এখন আর কিছু নেই। দেশের বিচার ব্যবস্থার ওপর মানুষ এখন আস্থাহীন।’

আয়োজক সংগঠনের পরিচালক বাবুল তালুকদারের সভাপতিত্বে এবং ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সদস্য ডি এম আমিরুল ইসলাম অমরের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন বিএনপি ভাইস চেয়ারম্যান বরকত উল্লাহ বুলু, যুগ্ম-মহাসচিব অ্যাডভোকেট সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল প্রমুখ।

(ঢাকাটাইমস/২০আগস্ট/বিইউ/এমআর)

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :