জাহেদা ও কিউকে আহমদ লাইব্রেরি উদ্বোধন করলেন পরিকল্পনামন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ০৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২৩:০০

রাজধানীর নিকেতনের জাহেদা ও কিউকে আহমদ নামের লাইব্রেরি উদ্বোধন করেছেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান।

সোমবার সন্ধ্যায় লাইব্রেরি ভবনে এ উপলক্ষে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন কিউ কে আহমদ ফাউন্ডেশনের সভাপতি ড. কাজী খলীকুজ্জমান আহমদ।

পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেন, ড. কাজী খলীকুজ্জমান আহমদ দেশপ্রেমী, তার কাজে নিখুঁতভাবে বাঙালিপনা রয়েছে। জাতি গঠন দুরুহ কাজ। এমন লাইব্রেরি সুন্দর জাতি গঠনে ভূমিকা রাখবে। কৃতজ্ঞ আমাকে এমন সুন্দর পরিবেশে আমন্ত্রণ জানানোর জন্য।

ড. কাজী খলীকুজ্জমান আহমদ বলেন, ‘মূল্যবোধ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনা জাগ্রত করতে এ লাইব্রেরি ভূমিকা রাখবে আশা করি। এখানে বই পড়ে পাঠকের সামাজিক ও মানবিক মূল্যবোধ জাগ্রত হবে। যারা জানতে পারবে তাদের কাছ থেকে আরও ১০ জন জানবে এভাবে ছড়িয়ে যাবে।’

অনুষ্ঠানের শুরুতে কিউ কে আহমদ ফাউন্ডেশনের সহসভাপতি ড. জসীম উদ্দিন বলেন, প্রথিতযশা অর্থনীতিবিদ ড. কাজী খলীকুজ্জমান আহমদ-এর নামে প্রতিষ্ঠিত কিউ কে আহমদ ফাউন্ডেশন একটি অলাভজনক, অরাজনৈতিক ও স্বেচ্ছাসেবী বেসরকারি সংস্থা। দেশে অন্তর্ভুক্তমূলক ও ন্যায় বিচারের ভিত্তিতে একটি সমাজ গঠনে এই ফাউন্ডেশন সাধ্যমত ভূমিকা পালনে দায়বদ্ধ। ইতোমধ্যে এই ফাউন্ডেশন বেশকিছু কার্যক্রম হাতে নিয়েছে, যা সমাজে বিভিন্ন স্তরের মানুষের কল্যাণে নিবেদিত। দেশের নিজস্ব ইতিহাস, ঐতিহ্য, কৃষ্টি, সংস্কৃতি এবং মানবিক মূল্যবোধসম্পন্ন মানুষ হওয়ার জন্য বই পড়ার বিকল্প নেই। সেই লক্ষ্যেই শিশুদের বই পড়ার আগ্রহ বাড়াতে জাহেদা ও কিউ কে আহমদ লাইব্রেরি প্রতিষ্ঠিত হয়েছে।

অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন পিকেএসএফ-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক মঈনউদ্দিন আবদুল্লাহ, কিউ কে আহমদ ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক অধ্যাপক শফি আহমেদ, বাংলাদেশ উন্নয়ন পরিশদের সভাপতি রেজাউল করিম, নির্বাহী পরিচালক নীলুফা বানু।

নিকেতন ওয়েলফেয়ার সোসাইটির সভাপতি হাবিব আহসান। ড. কাজী খলিকুজ্জমানের সহধর্মিনী অধ্যাপিকা ড. জায়েদা আহমদ ও তার দুই সন্তান কাজী রুশদী আহমদ ও কাজী উরফী আহমদ।

পল্লী কর্ম-সহায়ক ফাউণ্ডেশনের (পিকেএসএফ) ব্যবস্থাপনা পরিচালক মঈনউদ্দিন আবদুল্লাহ বলেন, ড. কাজী খলীকুজ্জমান আহমদ সাদা মনের মানুষ। এমন লাইব্রেরি গঠনের মাধ্যমেই ফুটে উঠে তিনি সব সময় মানুষের মানবিক উন্নয়নের চিন্তায় থাকেন। 

বাংলাদেশ উন্নয়ন পরিষদের নির্বাহী পরিচালক নীলুফা বানু বলেন, বাচ্চারা আজ মোবাইলে ইন্টারনেটে আসক্ত হয়ে যাচ্ছে। বাচ্চাদের এই ইন্টারনেট আসক্ত দূরে রাখতে ভূমিকার রাখতে পারে এমন লাইব্রেরি।

নিকেতন ওয়েলফেয়ার সোসাইটির সভাপতি হাবিব আহসান বলেন, আমাদের সৌভাগ্য এমন সুন্দর লাইব্রেরি এখানে হয়েছে। এখন থেকে অভিভাবকরা তার সন্তানদের নিয়ে এখানে এসে বই পড়তে পারবেন। এতে শিশুদের মানসিক বিকাশ হবে। বর্তমান পরিবেশ পরিস্থিতিতে খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটা পদক্ষেপ। আমাদের পক্ষ থেকে সর্বাত্মক সহযোগিতা থাকবে।

রাজধানীর গুলশান-১ এর নিকেতনে ডি ব্লকের আট নম্বর রোডের ৫০ নম্বর বাড়িতে এ লাইব্রেরি। বাড়ির দ্বিতীয় তলায় লাইব্রেরি সাজানো রয়েছে শিশুদেরসহ বড়দের বই। এখানে বই পড়ার সুন্দর ব্যবস্থা রয়েছে। দেয়ালের চারিদিকে বইগুলো সুন্দরভাবে সাজানো। রয়েছে শিক্ষামূলক ভিডিও দেখারও সুযোগ।

জানা গেছে, একশ টাকা দিয়ে নির্দিষ্ট ফরম পূরণ করে এ লাইব্রেরির সদস্য হওয়া যাবে। সদস্য চলে গেলে আবার এ একশ টাকা ফেরত দেয়া হবে।

(ঢাকাটাইমস/৯সেপ্টেম্বর/জেআর/এলএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :