মোবাইলের ধাক্কায় বন্ধ ওয়াশিংটন পোস্টের বিনামূল্যের পত্রিকা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
| আপডেট : ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২০:৩১ | প্রকাশিত : ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২০:০৩

একবিংশ শতকে হাতের মুঠোয় পৃথিবী চলে আসার কারণে মার্কিন গণমাধ্যম ওয়াশিংটন পোস্টের বিনামূলের পত্রিকাও বন্ধ করতে বাধ্য হয়েছে। 

বৃহস্পতিবার মার্কিন গণমাধ্যম ওয়াশিংটন পোস্টের ফ্রি প্রিন্ট সংস্করণ ‘এক্সপ্রেস’ তাদের সর্বশেষ সংখ্যা প্রকাশ করে। এ সংখ্যার শিরোনাম ছিল, ‘আশা করি আপনারা দুর্গন্ধময় মোবাইল ফোনই উপভোগ করবেন।’

‘এক্সপ্রেস’ এর সম্পাদক জানান, পাঠকরা প্রিন্টের তুলনায় মোবাইলেই খবর পড়তে বেশি আগ্রহী। ধীরে ধীরে সবাই উন্নত প্রযুক্তির ডিভাইস ব্যবহারে অভ্যস্ত হয়ে ওঠছে। ফলে ছাপা সংস্করণে বিজ্ঞাপন না পাওয়ায় আর্থিক ক্ষতির শিকার হতে হয়েছে। এ কারণে ফ্রি সংখ্যাটি বন্ধের সিন্ধান্ত নেয়া হয়েছে। যারা প্রিন্টের রোমাঞ্চ ভালোবাসি, প্রত্যেকেই প্রযুক্তির কারণে কঠিন সময় পার করছি।

পাঠকদের অনলাইন সংস্করণের প্রতি আহ্বান জানিয়ে সম্পাদক লিখেছেন, ‘মোবাইল প্রযুক্তিতে প্রকাশনার তালিকায় এক্সপ্রেস যুক্ত করুন। দুঃখের বিষয়, এটি আমাদের চূড়ান্ত সংস্করণ।’

এক বিবৃতিতে ওয়াশিংটন পোস্টের মেট্রো প্রকাশনা বন্ধের কারণ হিসাবে ‘মেট্রো স্টেশন’ এ ওয়াইফাই এর গতি বৃদ্ধিকে দায়ী করা হয়েছে। 

বিবৃতিতে বলা হয়, মেট্রোরেলে ওয়াশিংটনবাসীর সকালে যাতায়াতের সময় ‘এক্সপ্রেস’ একটি অবিচ্ছেদ্য অংশ হয়ে ওঠেছিল। এটি একটি প্রাণবন্ত, অত্যন্ত আকর্ষক প্রকাশনা, যা বছরের পর বছর ধরে পাঠকদের সেবা দিয়ে আসছে।

বর্তমানে পত্রিকাটি অনলাইন সংস্করণে বেশি মনোযোগ দেয়ার চেষ্টা করছে। পাঠকের কাছে পৌঁছাতে হলে ডিজিটাল প্রযুক্তির ওপরই বেশি নির্ভর করতে হবে বলে দাবি কর্তৃপক্ষের।

এদিকে প্রিন্ট বন্ধের কারণে প্রায় ২০ জন সাংবাদিককে ছাঁটাই করা হয়েছে। সাংবাদিকদের সংগঠন এ সিদ্ধান্তের সমালোচনা করেছে। কোনো পূর্ব সতর্কতা ছাড়াই তাদেরকে চাকরি থেকে ছাঁটাই করা হয়েছে বলে দাবি সংগঠনের নেতাদের।

ওয়াশিংটন পোস্টের ফ্রি পত্রিকা ‘এক্সপ্রেস’ ১৬ বছর ধরে প্রকাশিত হচ্ছিল। ২০০৭ সালে পত্রিকাটির গ্রাহক সংখ্যা ছিল এক লাখ ৯০ হাজার। এ কারণে বিজ্ঞাপন থেকে মোটা অংকের আয়ও হতো। কিন্তু বর্তমানে এর গ্রাহক সংখ্যা কমে এক লাখ ৩০ হাজারে নেমে আসে।

সময়ের সঙ্গে তাল মেলাতে পত্রিকার কর্তৃপক্ষ অনলাইনের প্রতি বেশি মনোযোগ দিচ্ছে।

(ঢাকাটাইমস/১৩সেপ্টেম্বর/আরআর/জেবি)

সংবাদটি শেয়ার করুন

গণমাধ্যম বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :