ভারতের রপ্তানি মূল্য বৃদ্ধি

ঝাঁজ বাড়তে পারে পেঁয়াজের বাজারে

হিলি (দিনাজপুর) প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১৬:১০ | প্রকাশিত : ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১৫:৩৭

ভারত পেঁয়াজের রপ্তানিমূল্য দুই থেকে তিনগুণ বাড়ানোয় শনিবার দিনাজপুরের হিলি স্থলবন্দর দিয়ে কোনো পেঁয়াজ দেশে ঢুকেনি। এর ফলে পেঁয়াজের বাজার অস্থিতিশীল হতে পারে বলে মনে করছেন আমদানিকারকরা। তবে আরও কয়েকটি দেশ থেকে পেঁয়াজ আমদানি অব্যাহত থাকায় বাজারে তেমন প্রভাব পড়বে না বলে জানিয়েছেন ঢাকার পাইকাররা।

এদিকে আমদানি না হওয়ায় ও মূল্য বৃদ্ধির প্রভাব পড়া শুরু করেছে বাজারে। হিলিতে বৃহস্পতিবার ৩৮ থেকে ৪০ টাকার যে পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছে তা শনিবার বিক্রি হয়েছে ৪৮ থেকে ৫০ টাকায়। আর খুচরা বাজারে এসে বিক্রি হচ্ছে ৫৫ থেকে ৬০ টাকায়।

বাংলাদেশে পেঁয়াজের রপ্তানি নিরুৎসাহিত করতে ভারত এ কাজ করেছে বলে দেশটির সংবাদমাধ্যমগুলো খবর দিয়েছে। ভারতের কাঁচা পণ্য নিয়ন্ত্রণকারী সংস্থা ন্যাপিডের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, এখন থেকে প্রতি মেট্রিক টন পেঁয়াজ ৮৫০ ডলারের কমে রপ্তানি করা যাবে না। এ সংক্রান্ত নির্দেশনা ইতিমধ্যে ভারতীয় রপ্তানিকারকদের পাশপাশি হিলি কাস্টমসে পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। আগে টনপ্রতি ২৫০-৩০০ মার্কিন ডলার মূল্যে বাংলাদেশে পেঁয়াজ রপ্তানি করতেন দেশটির ব্যবসায়ীরা।

ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমের খবর অনুযায়ী, দিল্লি আর কলকাতার খুচরা বাজারে প্রতি কেজি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৪০ থেকে ৫০ রুপিতে, যা সপ্তাহ দুই আগেও ২০ থেকে ৩০ রুপি ছিল। এদিকে ঢাকার বাজারে শনিবার প্রতি কেজি ভারতীয় পেঁয়াজ ৫০ থেকে ৫৫ টাকায় এবং দেশি পেঁয়াজ ৫৫ টাকা থেকে ৬০ টাকায় বিক্রি হয়েছে।

হিলি স্থলবন্দরের পেঁয়াজ আমদানিকারকরা জানান, ভারতের নতুন সিদ্ধান্ত শনিবার সকাল থেকেই কার্যকর করা হয়েছে। এর ফলে সকাল থেকে পুরানো এলসিগুলোর বিপরীতে কোনো পেঁয়াজ রপ্তানি করেনি ভারতীয় ব্যবসায়ীরা। টেন্ডার হওয়া আগের এলসিগুলো এম্যান্ডমেন্ট করে ডলার বৃদ্ধি করলেই ভারতীয় রপ্তানিকারকরা বাংলাদেশে পেঁয়াজ রপ্তানি করবেন।

আর রবিবার ব্যাংক খুললে সেগুলো এম্যান্ডমেন্ট করে তবেই পেঁয়াজ আমদানি হবে। ভারতের নতুন রপ্তানি মূল্য অনুযায়ী প্রতিকেজি পেঁয়াজের দাম ৭২ থেকে ৭৩ টাকায় গিয়ে পড়বে বলে দাবি ব্যবসায়ীদের।

এর ফলে সামনের সপ্তাহেই দেশের বাজারে ভারতীয় পেঁয়াজের দাম বেড়ে যাবে বলে ধারণা করছেন আমদানিকাররা। যদিও ঢাকার শ্যামবাজারের পাইকারি বিক্রেতারা বলছেন, ভারতীয় পেঁয়াজের দাম বাড়লেও সার্বিকভাবে পেঁয়াজের বাজার অতোটা চড়বে না বলে মনে করছেন তারা।

এর কারণ আবদুল মাজেদ নামে এক পাইকার বলছেন, ‘আমাদের আমদানিকারকরা ইতিমধ্যে তুরস্ক, মিসর, পাকিস্তানসহ বিভিন্ন দেশ থেকে পেঁয়াজ আমদানি শুরু করেছেন। ফলে ভারতের সিদ্ধান্তের কারণে বাজার নিয়ন্ত্রণহীন হয়ে পড়ার মতো কোনো প্রভাব পড়ার কথা না।’

(ঢাকাটাইমস/১৪সেপ্টেম্বর/প্রতিনিধি/ডিএম/জেবি)

 

সংবাদটি শেয়ার করুন

অর্থনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :