‘হোটেল ও পর্যটনশিল্পে তরুণদের স্বপ্ন দেখাতে চাই’

তানিয়া আক্তার
 | প্রকাশিত : ০১ অক্টোবর ২০১৯, ১০:০৩

পর্যটন ও হোটেল ম্যানেজমেন্টে উচ্চশিক্ষায় দেশের একমাত্র বিশেষায়িত প্রতিষ্ঠান আপডেট কলেজ। পাঁচতারকা হোটেল দ্য ওয়েস্টিন ঢাকার অঙ্গ-সংগঠন হিসেবে কলেজটির যাত্রা শুরু। সূচনালগ্ন থেকেই অদম্য আগ্রহ নিয়ে কাজ করে যাচ্ছেন প্রতিষ্ঠানটির অধ্যক্ষ সাইফুল ইসলাম। ঢাকার পান্থপথে নিজস্ব ক্যাম্পাসে পর্যটন শিল্পের বহুমাত্রিক সম্ভাবনা নিয়ে কথা হয় এই স্বাপ্নিক মানুষটির সঙ্গে। সাক্ষাৎকার নিয়েছেন: তানিয়া আক্তার

দেশে হোটেল ও পর্যটনশিল্পের সম্ভাবনা কেমন?

বর্তমানে বাংলাদেশে বিদেশি পর্যটকের পাশাপাশি দেশীয় পর্যটকের আকর্ষণও দিন দিন বাড়ছে। কারণ শহরগুলো চতুর্ভুজের দেয়ালে বন্দি অর্থাৎ যেদিকে তাকাই দালান, রাস্তা, গাড়ি সবকিছুর আকৃতিই চতুর্ভুজের মতো। কিন্তু মানুষের চোখ তো বৈচিত্র্য দেখতে চায়। তাই একটু অবসরেই পাড়ি জমায় সবুজের শ্যামলিমায় বা সমুদ্রপাড়ের দিগন্ত দেখায়। যেহেতু পর্যটনের সঙ্গে হোটেল ব্যবসা ওৎপ্রোতভাবে জড়িত তাই বিদেশি পর্যটকদের সুবিধার্থে গড়ে উঠছে ফাইভ-স্টার হোটেল। সেখানে হোটেল ও পর্যটনশিল্পে তরুণদের স্বপ্ন দেখাতে চেষ্টা করি আমরা।

এ শিল্পের বিকাশে আপডেট কলেজের শিক্ষা কার্যক্রম সম্পর্কে বলুন?

দেশের পর্যটনশিল্পকে বিশ্ববাজারে একটি শক্তিশালী অবস্থানে নিয়ে যাওয়ার লক্ষ্যে যাবতীয় পদক্ষেপ হাতে নিয়েছেন কলেজটির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি নূর আলী। তারই ধারাবাহিকতায় ২০১৫ সালে তিনি প্রতিষ্ঠা করেন কলেজটি। এখানে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে চার বছর মেয়াদি বিবিএ প্রফেশনাল অনার্স চালু রয়েছে। এ পেশায় ক্যারিয়ার গড়তে চাইলে একজন শিক্ষার্থীর জন্য বইয়ের তাত্ত্বিক জ্ঞান যতটা প্রয়োজন তার চেয়ে বেশি প্রয়োজন কাজের প্রায়োগিক দক্ষতা। তাই আপডেট কলেজ নিজস্ব ক্যাম্পাসে দক্ষ ও অভিজ্ঞ শিক্ষক দ্বারা ব্যবহারিক শিক্ষা দেয়া হয়।

ক্যারিয়ার গঠনে আপনারা শিক্ষার্থীদের কী ধরনের সুবিধা দিচ্ছেন?

আমরা শিক্ষার্থীদের শুরু থেকেই পেশাজীবনের উপযোগী শিক্ষা দিয়ে থাকি। প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা শেষে প্রত্যেক শিক্ষার্থীকে ছয় মাসের ইন্টার্নশিপের সুযোগ দিচ্ছে আপডেট কলেজের অঙ্গ-প্রতিষ্ঠান ওয়েস্টিন হোটেল।

পেশাজীবনে এই প্রতিষ্ঠান থেকে কোন ক্ষেত্রগুলোতে কাজের সুযোগ পায়?

পাঁচতারকা চেইন হোটেলের পাশাপাশি পর্যটনে বেশ কয়েকটি ক্ষেত্রে কাজের সুযোগ রয়েছে যেমন, ট্যুর অপারেটর এবং ট্রাভেল এজেন্সির পাশাপাশি বিভিন্ন রিসোর্ট, ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট ফার্মসহ বিশ্বের বড় বড় সব এয়ারলাইন্সেও কাজের সুযোগ পান এখানকার শিক্ষার্থীরা। আমাদের মূল প্রতিষ্ঠান থেকেও খুব অল্প সময়ে বেশ কিছু ৩, ৪ ও ৫ তারকা হোটেল চালু হতে যাচ্ছে। এ ছাড়া আরও ফাইভ স্টার হোটেল করার পরিকল্পনা রয়েছে যেগুলোর আন্তর্জাতিক চেইন হবে। সেজন্য প্রয়োজন প্রচুরসংখ্যক দক্ষ ও পেশাদার জনবল। ফলে আমাদের প্রতিষ্ঠান থেকে গ্র্যাজুয়েশন করলে কেউ বেকার থাকছেন না।

পেশা হিসেবে এটি কী নারীবান্ধব?

অন্য অনেক চাকরির মতো এই পেশাও নারীদের জন্য বেশ অনুকূল। এ ছাড়া বৈশ্বিক এক গবেষণায়ও বিশ্বজুড়ে নারীদের জন্য সবচেয়ে নিরাপদ কর্মস্থল। কারণ কোনো কাচের ঘরে বন্দি থাকতে হয় না। জ্যেষ্ঠ বা অনুজ সবাই একই সমতলে কাজ করে। সবাই সবাইকে দেখতে পায়। তাই পুরোনো ধারণা পাল্টে নারীরাও এ পেশায় আসছে। ফলে অনেক মেয়ে দেশি-বিদেশি আন্তর্জাতিকমানের হোটেল-রিসোর্টগুলোতে বড় বড় পদে র্কমরত আছেন। এ প্রচারের কারণে অনেক নারীই অনুপ্রাণিত হয়ে এই শিল্পের বিকাশ এবং উন্নয়নে অবদান রাখছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

সাক্ষাৎকার বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :