ড্রেনের পানি সড়কে, প্রতিকার নেই ছয় মাসেও

কাজী রফিক
 | প্রকাশিত : ১৬ অক্টোবর ২০১৯, ০৮:১৬

মেট্রোরেলের কাজ করতে গিয়ে অকেজো হয়ে পড়েছে মিরপুরের পূর্ব মনিপুর এলাকার পয়ঃনিষ্কাশন ব্যবস্থা। ফলে বাসা-বাড়ির ড্রেনেজের পানি চলে আসছে সড়কে। ঝড়-বৃষ্টি না থাকলেও সড়কে থাকে জলাবদ্ধতা। দিনের পর দিন নোংরা পানি মাড়িয়ে চলতে হচ্ছে স্থানীয়দের। এবিষয়ে জানা থাকলেও কার্যকর কোনো পদক্ষেপ নেননি স্থানীয় জনপ্রতিনিধি। ছয় মাসেও সমাধানের পথ খুঁজতে পারেননি সংশ্লিষ্টরা।

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি) ১৩ নম্বর ওয়ার্ডের পূর্ব মনিপুরের বাবা হুজুরের মসজিদ এলাকার সড়কটির চিত্র এটি। স্থানীয়দের মূল সড়কে (রোকেয়া সরনি) আসতে ব্যবহার করতে হয় এই সড়কটি। এছাড়া স্থানীয় শিক্ষার্থীদের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যাতায়াতের সড়ক এই একটিই। ফলে সড়কটি বাধ্য হয়েই ব্যবহার করতে হয়।

স্থানীয়রা জানালেন, ছয় মাসেরও বেশি সময় ধরে এমন অবস্থা সহ্য করেই চলতে হচ্ছে তাদের। স্থানীয় ব্যবসায়ীরা ভুগছেন ক্রেতা স্বল্পতায়, অন্যদিকে চলাচলের ভোগান্তির কারণে ব্যাহত হচ্ছে শিক্ষার্থীদের পড়াশোনা ও স্বাভাবিক জনজীবন।

স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, সকালের দিকে সড়কে পানির পরিমাণ কম থাকলেও বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে স্থানীয় বাসিন্দাদের পানির ব্যবহার বাড়ে। আর সেই সাথে সড়কেও বাড়ে পানির পরিমাণ।

মনিপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থী সামিহা জান্নাত বলে, ‘প্রতিদিন স্কুলে যাওয়ার সময় রাস্তা শুকনা থাকে, কিন্তু বাসায় ফেরার সময় এক হাঁটু ময়লা পানি পার হয়ে বাসায় যেতে হয়। মাঝে মাঝে স্কুলে যেতেও পারি না।’ সামিহার ভাষ্য, ‘কিছু দিন আগে স্কুলে যাওয়ার সময় রাস্তা ভাঙা থাকার কারণে রিকশা উলটে পড়ে যাই। পরে আর সেই দিন স্কুলে যেতে পারিনি।’

স্থানীয় জনপ্রতিনিধির বারবার কড়া নেড়েও প্রতিকার পাননি বলে অভিযোগ স্থানীয়দের। তাজুল ইসলাম নামের স্থানীয় বাসিন্দা ঢাকা টাইমসকে বলেন, ‘আমরা অনেকবার কাউন্সিলরের কাছে গিয়ে কোনো প্রতিকার পাইনি। পরে সিটি করপোরেশন অঞ্চল-৪ এর সিইও’র কাছে যাই, তিনি সরেজমিনে এলাকায় এসে দেখে যান। তবে কোনো আশা দিয়ে যাননি। তিনি বলেছেন, এই বাজেটে এই রাস্তা নিয়ে কোনো ধরনের কথা হয়নি। তাই আমাদের কাছে এখন করার কিছুই নেই।’

এ ব্যাপারে কাউন্সিলর হারুন অর রশিদ মিঠু ঢাকা টাইমসকে বলেন, ‘মেট্রোরেলের কাজের জন্য এই এলাকার ড্রেনেজের পানি নামতে পারছে না। আমি সমস্যাটা জানি। কয়েকবার লাইনটা পরিষ্কার করেছি। কিন্তু কাজ হয়নি। আমি আবার পরিষ্কার করব।’

এবিষয়ে ডিএনসিসির অঞ্চল-৪ এর আঞ্চলিক নির্বাহী কর্মকর্তা সালেহা বিনতে সিরাজের সাথে যোগাযোগ করা হলে জানান, পূর্ব মনিপুর এলাকার ড্রেনেজের সংযোগটি রোকেয়া সরণির সাথে যুক্ত হয়েছে। মেট্রোরেলের কাজের জন্য লাইনটি অকেজো হয়ে পড়েছে।  ঢাকা টাইমসকে তিনি বলেন, ‘আমি বিষয়টি জানি। আমি মেট্রোরেলের কর্মকর্তাদের সাথে এর আগে বসেছিলাম। তারা আমাকে জানিয়েছিলেন, পানি নামার লাইনটা ঠিক করে দেবেন। কিন্তু তারা সেটি করেননি। এখন যেহেতু বৃষ্টি নেই, আমি তাদের সাথে আবার বসব, তারা যেন লাইনটা পরিষ্কার করে দেন।’

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজধানী বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :