হোটেল সংকটে টাইগার সমর্থকরা

ক্রীড়া ডেস্ক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২২ নভেম্বর ২০১৯, ১১:২৬

গোলাপি আলোয় সেজে ওঠা ইডেনের গ্যালারিতে আজ শুক্রবার কত পতাকা উড়বে বাংলাদেশের?  কত দর্শক সীমান্ত পেরিয়ে ভারতে এসেছেন গোলাপি বলের দিনরাতের টেস্টের সাক্ষী হতে?

কেউ বলছেন ছয় হাজার, কারও হিসাবে সংখ্যাটা দশ হাজার ছাড়িয়ে যেতে পারে। বাংলাদেশ দূতাবাস থেকে জানানো হয়েছে, সংখ্যাটা বলা সম্ভব নয়। তাদের কাছে কোনও নির্দিষ্ট হিসাব নেই।    

কিন্তু শহরে বাংলাদেশের থাকার আস্তানা বলে পরিচিত সদর স্ট্রিট, মার্কো স্ট্রিট, রফি আহমেদ কিদোয়াই রোডের পঁচিশটি হোটেল ও গেস্ট হাউসে ঢুঁ মেরে দেখা গেল, কোথাও কোনও ঘর খালি নেই।

বন্ধু ও পরিবার নিয়ে শহরে পৌঁছে ঢাকার বস্ত্র ব্যবসায়ী ফারুক চৌধুরী বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় দমদম বিমানবন্দরে নেমে প্রচণ্ড বিপদে পড়েছেন। হাতে ম্যাচ দেখার টিকিট রয়েছে। অথচ ইডেনের কাছাকাছি অঞ্চলে কোনও হোটেলে বেশি ভাড়া দিয়েও জায়গা পাচ্ছেন না। কলকাতার ধর্মতলার পাঁচ তারা হোটেল থেকে সদর স্ট্রিটের গেস্ট হাউস, কোথাও  একটি ঘরও তিনি পাননি রাত পর্যন্ত। ময়দানের এক পরিচিত কর্তাকে ধরেছেন, একটা হোটেলে থাকার ব্যবস্থা করে দিতে। বলছিলেন, ‘ঢাকায় বসে শুনেছি কলকাতা নাকি গোলাপি হয়ে গিয়েছে। সেই উত্তেজনার আঁচ নিতেই ইডেনের কাছে হোটেল খুঁজছি। কী অবস্থা!’ 

তাঁর সঙ্গী আবু হাসান চৌধুরী  বললেন, ‘শুনেছিলাম আমাদের দেশ থেকে অনেক লোকের সমাগম ঘটছে কলকাতায়। কিন্তু এমন অবস্থা কোনোদিন দেখিনি।’

সারা বছরই চিকিৎসা বা নানা প্রয়োজনে বাংলাদেশ থেকে মানুষ আসেন কলকাতায়। তাঁদের প্রায় সবারই আস্তানা হয় ওই সদর-মার্কো স্ট্রিট অঞ্চল। কিন্তু এবার গোলাপি উত্তেজনায় কলকাতায় বাংলাদেশিদের অনাকাঙ্ক্ষিত সমাগম ঘটেছে।

ইডেনের ইতিহাসে ভারত-বাংলাদেশের প্রথম টেস্ট ম্যাচ। তার উপরে গোলাপি বলে খেলা। ময়দান চত্বরে তো বটেই, শহরের প্রাণকেন্দ্র ধর্মতলায় মার্কারির নিয়ন আলোও যেন ঢাকা পড়েছে গোলাপি আভায়। শহরের সব চেয়ে উঁচু তিনটি বহুতলের রং তো বদলেছেই, শহিদ মিনারের শরীর থেকে যেন গড়িয়ে পড়ছে গোলাপি রং।

উল্লেখ্য, আজ দুপুর দেড়টায় ঐতিহাসিক ইডেন টেস্টে ভারতের বিরোধিতা করতে নামবে বাংলাদেশ।

(ঢাকাটাইমস/২২ নভেম্বর/এআইএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

খেলাধুলা বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :