পুঁজিবাজারের স্থিতিশীলতায় উদ্যোগ নেবে বাংলাদেশ ব্যাংক

অর্থনৈতিক প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ১৪ জানুয়ারি ২০২০, ২৩:১৩ | প্রকাশিত : ১৪ জানুয়ারি ২০২০, ১৯:১৪
ফাইল ছবি

ব্যাপক দরপতনে অস্থির পুঁজিবাজারকে স্থিতিশীল ও উন্নত করতে সর্বোত্তম উদ্যোগ নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির। তিনি বলেন, পুঁজিবাজারে স্থিতিশীলতা ও উন্নয়নে এ পর্যন্ত যতগুলো প্রস্তাব দেয়া হয়েছে, তার মধ্যে সর্বোত্তম প্রস্তাব বাস্তবায়নে সহায়তা দেবে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

মঙ্গলবার বিকালে বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র মো. সিরাজুল ইসলাম এ কথা জানান।

তিনি বলেন, আজ (মঙ্গলবার) বাংলাদেশ ব্যাংকে ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির (ডিসিসিআই) একটি প্রতিনিধি দল গভর্নর ফজলে কবিরের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। সে সময় ব্যাংক ও আর্থিক খাতের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়। এর মধ্যে সিঙ্গেল ডিজিটের সুদহার বাস্তবায়ন, খেলাপি ঋণ, ব্যবসা সহজীকরণ, বর্তমান পুঁজিবাজারের পরিস্থিতি এবং এক্সচেঞ্জ রেট নিয়ে আলোচনা হয়।

তবে পুঁজিবাজারের বিষয়টিতে গভর্নর সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দিয়েছেন বলে জানান সিরাজুল ইসলাম। তিনি বলেন, গভর্নর ডিসিসিআই’র প্রতিনিধি দলকে জানিয়েছেন, পুঁজিবাজারের সার্বিক উন্নয়ন ও স্থিতিশীলতায় এ পর্যন্ত যেসব প্রস্তাব এসেছে তার মধ্যে সর্বোত্তম প্রস্তাব বাস্তবায়নে কেন্দ্রীয় ব্যাংক সব ধরনের সহায়তা করবে।

বৈঠকে ডিসিসিআইর সভাপতি শামস মাহমুদ, সহ-সভাপতি এন কে এ মবিন, এফসিএ, এফসিএস এবং সহ-সভাপতি মোহাম্মদ বাশির উদ্দিনসহ পর্ষদ সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

পুঁজিবাজারে ব্যাপক দরপতনে মূলধন হারিয়ে চরম সংকটে পড়েছে বিনিয়োগকারীরা। সাত কার্যদিবসে দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) প্রধান সূচক কমেছে ৪০০ পয়েন্টের ওপর। এর মধ্যে মঙ্গলবার কমেছে ৮৭ পয়েন্ট। সূচকের এই বড় পতনের প্রতিবাদে লেনদেন শেষ হওয়ার আগেই রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ শুরু করেন বিনিয়োগকারীরা।

সভা শেষে বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র মো. সিরাজুল ইসলাম বলেন, এসএমই খাতকে সিঙ্গেল ডিজিটের ভেতরে না নিয়ে আসার সুপারিশ করেছিলেন ব্যাংকাররা। কিন্তু বাংলাদেশ ব্যাংকের পক্ষ থেকে সুপারিশ নাকচ করে দেয়া হয়। কারণ, এ সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন হলে উন্নয়ন ক্ষতিগ্রস্ত হবে।

তিনি আরও জানান, বর্তমানে আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর অবস্থা খুবই নাজুক। সেখান থেকে ব্যাংকগুলোর আমানত একসঙ্গে উঠিয়ে না নেয়ার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। এছাড়া ভুয়া ঋণ বন্ধে জামানত সংরক্ষণের ব্যাপারে কঠোর হচ্ছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

ব্যাংক নির্বাহীদের সংগঠন অ্যাসোসিয়েশন অব ব্যাংকার্স বাংলাদেশের (এবিবি) চেয়ারম্যান ও ইস্টার্ন ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আলী রেজা ইফতেখার বলেন, এপ্রিলে থেকে সুদহার সিঙ্গেল ডিজিটে নামিয়ে আনা হবে। এটি বাস্তবায়নে কিছু চ্যালেঞ্জ রয়েছে। এগুলো আমরা তুলে ধরেছি। এর মধ্যে অন্যতম ৬ শতাংশ হারে আমানত নিশ্চিত করা। কারণ ৬ শতাংশে আমানত পেলেই ৯ শতাংশ ঋণ বিতরণ করা সম্ভব হবে। এবিবির পক্ষ থেকে এসএমইর কয়েকটি খাতকে সিঙ্গেল ডিজিটের বাইরে রাখতে বলা হয়। এর মধ্যে রয়েছে কনজ্যুমার ক্রেডিট ও জামানত বিহীন ঝুঁকিপূর্ণ ঋণ রয়েছে।

এবিবির চেয়ারম্যান বলেন, সার্কুলারের মাধ্যমে বিস্তারিত জানানো হবে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর।

(ঢাকাটাইমস/১৪জানুয়ারি/জেবি)

সংবাদটি শেয়ার করুন

অর্থনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :