ত্রিমুখী লড়াইয়ে সম্ভাবনা দক্ষিণের ২৭ নং ওয়ার্ডে

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ২৫ জানুয়ারি ২০২০, ২৩:০৩ | প্রকাশিত : ২৫ জানুয়ারি ২০২০, ২১:৩৯

ঢাকা সিটি করপোরেশন নির্বাচনের দিন যতই ঘনিয়ে আসছে ততই জমে উঠছে প্রচার প্রচারণা। ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ২৭ নম্বর ওয়ার্ডের ভোটাররা ত্রিমুখী লড়াইয়ের সম্ভাবনা দেখছেন। পুরান ঢাকার এই ওয়ার্ডে আওয়ামী লীগ ও বিএনপি মনোনীত প্রার্থীদের বাইরে আওয়মা লীগের শক্তিশালী বিদ্রোহী প্রার্থী আছেন।

প্রচার-প্রচারণায় বিএনপির প্রার্থী বাধার অভিযোগ করলেও আওয়ামী লীগের দুই প্রার্থী সমানতালে গণসংযোগ করছেন।

আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী ওমর বিন আবদুল আজিজ তামিম (মিষ্টি কুমড়া), আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী সাগর আহমেদ শাহীন (ব্যাডমিন্টন), বিএনপি মনোনীত শাহেদা মোর্শেদ (লাটিম) মার্কায় নির্বাচন করছেন।

পুরান ঢাকার হোসেনি দালান, বকশিবাজার ও আশপাশের এলাকা নিয়ে গঠিত ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ২৭ নম্বর ওয়ার্ড। ওয়ার্ডজুড়ে দিনভর চলছে প্রার্থীদের প্রচার-প্রচারণা।

এই ওয়ার্ডের সবশেষ কাউন্সিলর ছিলেন ওমর বিন আবদুল আজিজ।দল থেকে তিনি এবারও মনোনয়ন পেয়েছেন। ২০১৫ সালের নির্বাচনে একা থাকায় সুবিধাজনক অবস্থায় থাকলেও এবার সাবেক ছাত্রলীগ নেতা সাগর আহমদ শাহীন নির্বাচন করায় তিনি কিছুটা বেকায়দায় আছেন।

আবার জনপ্রতিনিধি না হলেও দীর্ঘদিন ধরে ছাত্রলীগ ও আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত থাকায় পুরান ঢাকায় জনপ্রিয়তা তৈরি হয়েছে ব্যাডমিন্টনের প্রার্থীর।

তারপক্ষে এলাকায় বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ প্রতিনিয়ত ভোট চাইছেন। ভোটারদের দ্বারে দ্বারে যাচ্ছেন। শনিবার ব্যাডমিন্টনের পক্ষে পুরান ঢাকায় ভোট চান বাংলাদেশ মুসলিম নিকাহ্ রেজিস্ট্রার কল্যাণ সমিতির নেতারা। সাগর আহমদ শাহীন এই সংগঠনের কেন্দ্রীয় মহাসচিব।

সংগঠনের প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী শাহাদাতুল ইসলাম, মো.সায়েম,সরওয়ার আলম, হাফিজ আহমেদ মোরশেদ, মফিজ উদ্দিন, আজিজুল ইসলাম, ওমর ফারুক ও মো. জাকারিয়া প্রমুখ গণসংযোগ করেন।

যে কারণে মিষ্টি কুমড়া ও ব্যাডমিন্টনের মধ্যে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলে মনে করছেন ভোটারা।

অন্যদিকে হোসেনি দালানের স্থায়ী বাসিন্দা ও ঢাকা মহানগর বিএনপির নেত্রী শাহেদা মোর্শেদদের পারিবারিক ঐতিহ্য রয়েছে। তার স্বামী গোলাম মোর্শেদ ওই এলাকার দীর্ঘদিনের কমিশনার ছিলেন। ক্লিন ইমেজের প্রার্থী শাহেদা মোর্শেদও ভালো অবস্থানে আছেন বলে জানা গেছে।

আনোয়ার হোসেন নামের একজন ভোটার ঢাকা টাইমসকে বলেন, ‘কেউ কারো থেকে কম নয় এখানে। আওয়ামী লীগের দুই প্রার্থী যেমন ভালো অবস্থানে আছেন তেমনি বিএনপির প্রার্থীও শক্ত অবস্থানে আছেন। তাই লড়াইটা তিনজনের মধ্যেই হবে। যে বের হয়ে আসতে পারেন।’

ইউসূফ হোসেন নামের একজন ঢাকা টাইমসকে বলেন, ‘আওয়ামী লীগের দুজন প্রার্থী থাকায় বিএনপির প্রার্থীর জন্য সুবিধা হয়েছে।এমনও হতে পারে তিনি বের হয়ে যেতে পারেন। তবে এখন পর‌্যন্ত তিনজনই সমানতালে প্রচার প্রচারণা চালাচ্ছেন।’

বিএনপির প্রার্থী শাহেদা মোর্শেদ ঢাকা টাইমসকে বলেন, ‘প্রতিনিয়ত বাধা বিঘ্ন আসতেছে। তারমধ্যে প্রচারণা চালাচ্ছি। সুষ্ঠু ভোট হলে বিপুল ভোটে জয় লাভ করবো।’

আর ব্যাডমিন্টনের প্রার্থী সাগর আহমদ শাহীন ঢাকা টাইমসকে বলেন, ‘ভালো সাড়া পাচ্ছি। দলীয় লোকজনও আমার পক্ষে কাজ করছেন। এলাকার ভোটাররা পরিবর্তন চাচ্ছে। আশা করি এবার পরিবর্তন ঘটবে।’

অন্যদিকে মিষ্টি কুমড়া প্রতীকের প্রার্থী ওমর বিন আবদুল আজিজ তামিম ঢাকা টাইমসকে বলেন, ‘গত পাঁচবছর এলাকায় কাজ করেছি। শান্তি-শৃঙ্খলা ছিলো আমার ওয়ার্ডে। আশা করি আবারো ভোটাররা বিজয়ী করবেন।’

(ঢাকাটাইমস/২৫জানুয়ারি/বিইউ/ইএস)

 

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :