বইমেলায় ভাটার টানের ভিড়

আসাদুজ্জামান, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ২২:১৬

ঘড়ির কাঁটায় পৌনে তিনটা। বইমেলায় প্রবেশে বাংলা একাডেমির ফটক এবং সোহরাওয়ার্দী উদ্যা্নের ফটকের সামনে লম্বা লাইন। লাইন সাপের মতো একেবেঁকে গেছে। যারা লাইন ধরে মেলায় প্রবেশ করতে নারাজ তারা ফটকের সামনে জটলা করছে। জটলা সামলাতে তৎপর অইনশৃ্ঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

তিনটা বাজার মিনিট তিনেক আগে খুলে দেয়া হয় বাংলা একাডেমির দ্বার। বাঁধভাঙা জোয়ারের মতো মানুষ প্রবেশ করতে থাকে বইয়ের দুনিয়ায়। ওদিকে সোহরাওয়াদী উদ্যানের ফটক তখনো খোলেনি। তাই আগে উদ্যানে যারা ঢুকবেন বলে ভেবে লাইনে দাঁড়িয়েছিলেন, তাদের অনেকে লাইন থেকে সরে গিয়ে বাংলা একাডেমির দিকে দ্রুতপায়ে ছুটতে থাকেন। মেলায় প্রবেশে যেন তর সইছিল না কারও। এই দৃশ্য আজ বৃহস্পতিবার বইমেলার প্রবেশমুখে।

দেখতে দেখতে বইমেলা এখন শেষ প্রহরে। মেলা চলবে আর দুই দিন। তাই শেষ সময়ে এসে মেলায় ভিড় লেগেছে। তবে এই ভিড় জোয়ারের না, ভাটার টানের। নিভে যাওয়ার আগে প্রদীপের লাফিয়ে ওঠা।

আজ দলবেঁধে বইপ্রেমীরা মেলায় ঢুকেছেন। অন্য দিনের চেয়ে ক্রেতা ছিল বেশি। স্টলে স্টলে ঘুরে প্রিয় লেখকদের, পছন্দের বই সংগ্রহ করেন। আর যারা এখনই বই কিনতে পারছেন না বা কোন বই কিনবেন সেটা মনস্থির করতে পারেননি তারা প্রকাশকদের কাছ থেকে বইয়ের তালিকা সংগ্রহ করছেন। তাদেরই একজন রুহাম। কাজ করেন একটি এনজিওতে। ঢাকা টাইমসকে তিনি বলেন, ‘আমাদের এনজিওর একটি লাইব্রেরি আছে। লাইব্রেরির জন্য বই কিনব। তবে এখনই নয়। মেলা থেকে সংগ্রহ করা ক্যাটালগ দেখে আমাদের গ্রন্থাগারিকরা সিদ্ধান্ত নেবেন।’

শেষ সময়ের মেলায় এসে সবাই যে বইয়ের ক্যাটালগ সংগ্রহ করছেন, এমন নয়। অনেককেই দেখা গেল দুই হাতে বইয়ের বোঝা বইতে। এমনই একজন খুলনা থেকে আসা স্কুলশিক্ষক কাশেম স্টালিন। তিনি ঢাকা টাইমসকে বলেন, ‘সারা বছর পড়ার জন্য বই সংগ্রহ করি এ বইমেলা থেকে। মেলায় নতুন নতুন বই আসে। এবারও বেশ কিছু বই কিনলাম।’

শেষ প্রহরে এসে বই বিক্রি হচ্ছে দেদার। খুশি বইয়ের লেখক ও প্রকাশকরা।

সাহস পাবলিকেশন্সের কর্ণধার নাজমুল হুদা রতন জানান, শেষ মুহূর্তে বইমেলায় আশানুরূপ বেচাকেনা হচ্ছে।

একই কথা জানালেন নন্দিনী সাহিত্যং ও পাঠচক্রের বিক্রয়কর্মী মনিরুজ্জামান। তিনি বলেন, প্রতিবছর মেলার শেষের দিকে বইয়ের বেচাকেনা বাড়ে। মেলার শুরুতে অনেকেই ঘুরতে আসেন। কিন্তু শেষের দিকে যারা আসেন তাদের বেশির ভাগই ক্রেতা।

আগামীকাল শুক্রবার মেলা শুরু হবে বেলা ১১টায়। চলবে রাত নয়টা পর্যন্ত। বইমেলার শেষ শুক্রবার, শিশুপ্রহরও। বিক্রেতারা আশা করছেন আগামীকাল মেলায় বইপ্রেমীদের ঢল নামবে।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে উৎসর্গ করা এবারের বইমেলা শেষ হচ্ছে শনিবার। গত ২ ফেব্রুয়ারি মেলার উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গত কয়েক বছরের মতো এবারও বইমেলা দুই অংশে অর্থাৎ বাংলা একাডেমি এবং সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আয়োজন করা হয়।

(ঢাকাটাইমস/২৭ফেব্রুয়ারি/এজেড/মোআ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

সাহিত্য বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :