Breaking news

  •    দশম ও দ্বাদশ শ্রেণির সপ্তাহে ছয় দিন ক্লাস
  •    রোজাতেও চলবে ক্লাস
  •    স্কুল-কলেজ খুলছে ৩০ মার্চ

দেশেই পাওয়া যাচ্ছে অত্যাধুনিক কনফারেন্সিং সিস্টেম

তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ২৬ জানুয়ারি ২০২১, ১৮:৩২ | প্রকাশিত : ২৬ জানুয়ারি ২০২১, ১৬:৫৬

দেশে কনফারেন্স সিস্টেমের চাহিদা দিন দিন বেড়েছে। ফলে যোগাযোগ ও কথোপকথন সহজ হয়েছে। সভা, সম্মেলন কিংবা কনফারেন্স-প্রযুক্তির সহায়তা ছাড়া এসব আয়োজন চিন্তাই করা যায় না।

একটা সময়ে মানুষ নির্দিষ্ট স্থানে একত্রিত হয়ে তাদের নিজেদের মধ্যে মতবিনিময় করত। তখন কোনো রকম আধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহার ছিল না। বর্তমানে বিভিন্ন প্রযুক্তির উন্নয়ন এই কাজগুলোকে আরো সহজ করেছে।

এখনকার সভায় কথা বলার জন্য একাধিক মাইক্রোফোন থাকে। যা দিয়ে বক্তারা আলোচনায় অংশ নেন। অথচ, একটা সময়ে বক্তারা সবার কাছে বক্তব্য পৌঁছে দিতে খালি গলায় উচ্চস্বরে কথা বলতেন। এতে করে যেমন তাদের পরিশ্রম হতো, তেমনি করে শ্রোতাদেরও শুনতে অসুবিধা হতো। নিত্যনতুন প্রযুক্তি পণ্যের উদ্ভাবন এসব কাজ সহজ করেছে।

কনফারেন্স সিস্টেমের আরেকটি পর্যায় হচ্ছে ভিডিও কনফারেন্স। যার মাধ্যমে পৃথিবীর যেকোনো প্রান্ত থেকে অপর প্রান্তের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সে অংশ নেয়া যায়। মূলত এইসব কার্যক্রমকে একত্রে কনফারেন্স সিস্টেম বলা হয়।

কনফারেন্স সিস্টেম যেভাবে কাজ করে

প্রথমে অডিও কনফারেন্স সম্পর্কে জেনে নেয়া যাক। এটি এমন একটি সিস্টেম যেখানে বক্তারা একগুচ্ছ মাইক্রোফোনের মাধ্যমে আলোচনায় অংশ নেন। এখানে প্রত্যেকের কাছেই মাইক্রোফোন ও স্পিকার থাকে। প্রয়োজনে এগুলো বন্ধ ও চালু করা যায়। মাইক্রোফোন ব্যক্তির কথাগুলো ইনপুট নেয়। এবং স্পিকারের মাধ্যমে অন্যদের কাছে পৌঁছে দেয়। ফলে বক্তাকে উচ্চস্বরে কথা বলতে হয় না। শ্রোতারাও প্রতিটি কথা ভালভাবে শুনতে পারেন।

এই সিস্টেমে প্রতিটি মাইক্রোফোনে একটি ইন্ডিকেটর লাইট থাকে, যা মাইক্রোফোনটি চালু নাকি বন্ধ আছে তা নির্দেশ করে। অন্যদিকে ভিডিও কনফারেন্স সিস্টেমে একই টেবিলে যখন কয়েকজন বক্তা থাকে তখন তাদের মাঝে পারস্পরিক আলোচনা একটি স্ক্রিনে প্রদর্শিত হয়। এখানে কেউ উপস্থিত না থেকেও আলোচনায় যুক্ত হতে পারেন।

মূলত এই কাজটি করে থাকে একটি ভিডিও কনফারেন্স ক্যামেরা। যা টেবিলের মাঝখানে স্থাপন করতে হয়। এটি এতটাই স্মার্ট ক্যামেরা যখন কোন বক্তা কথা বলা শুরু করে ঠিক তখনই ক্যামেরাটি তার বরাবর ফোকাস করে। এবং সেই বক্তাকে স্ক্রিনে দেখা যায়। মজার বিষয় হচ্ছে, যখন একজনের কথার শেষে যখন আরেকজন কথা বলতে শুরু করেন তখন ক্যামেরা পরের বক্তার মুখাবয়বে ফোকাস করে। এই কাজটি এতটাই দ্রুততার সঙ্গে হয়ে থাকে যে সেই কনফারেন্স বা সভার উপস্থিত কিংবা দূর থেকে ভিডিওতে অংশ নেয়া কেউই কনফারেন্সের আলোচনা শুনতে, দেখতে বিড়ম্বনা হয় না।

দেশে কোথায় মেলে এই কনফারেন্স সিস্টেম

বর্তমানে দেশে বিভিন্ন ধরনের প্রতিষ্ঠান রয়েছে যারা সম্পূর্ণ কনফারেন্সে সিস্টেম সার্ভিস সরবরাহ করে থাকেন। কিন্তু সঠিক বিক্রেতার কাছ থেকে আপনার প্রয়োজন অনুসারে সঠিক পণ্য পাওয়াটাই হচ্ছে বড় চ্যালেঞ্জ। আরেকটি বিষয় যা আপনার অবশ্যই মনে রাখা উচিত তা হল আপনি কেবল সঠিক কনফারেন্সে সিস্টেম কিনলেই পছন্দমত পারফর্মেন্স নাও পেতে পারেন। যদি না আপনি এটি সঠিক ভাবে তা স্থাপন করেন। তাই আপনার উচিত হবে এটি কেনার পর অভিজ্ঞ কোন প্রতিষ্ঠান বা সার্ভিস সরবরাহকারীদের সহায়তায় সঠিকভাবে স্থাপন করা। দেশে অলেফিন্স ট্রেড কর্পোরেশন আপনাকে দিচ্ছে বিশ্বের সব নামি-দামি ব্র্যান্ডের কনফারেন্সে সিস্টেম-এর পূর্ণাঙ্গ সহায়তা।

এখানে পাবেন এয়ারকম, বোস, টোয়া, এইচটিডিজেড, আহুজার মতো বিশ্ববিখ্যাত ব্র্যান্ড। প্রতিষ্ঠানটি পণ্য বিক্রয় করা থেকে শুরু করে ইন্সটল করা সহ অনেক প্রয়োজনীয় কাজে আপনাকে সহায়তা দেবে। পণ্য কিনতে কিংবা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে মোহাম্মদপুরের মাদ্রাসা রোডের অলিফিন্স ট্রেড কর্পোরেশনের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারেন। ওয়েবসাইট ভিজিট করেও পণ্য সম্পর্কে ধারণা পেতে পারেন। ওয়েবসাইটের ঠিকানা- https://olefinsbd.com/ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফেসবুকেও প্রতিষ্ঠানটি তাদের পণ্য বিক্রি ও প্রচারণা করে আসছে।

(ঢাকাটাইমস/২৬জানুয়ারি/এজেড)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :