সংস্কারে ব্যয় কোটি টাকা

মার্চের মাঝামাঝি উন্মুক্ত হতে পারে ‘আবরার ফুটওভার ব্রিজ’

কাজী রফিক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১৮:৩৬

রাজধানীর যমুনা ফিউচার পার্কের সামনে প্রগতি সরণিতে নির্মিত ‘আবরার আহমেদ ফুটওভার ব্রিজ’ -এর সংস্কার কাজ করছে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি)। কাজের ৭০ শতাংশ এরইমধ্যে শেষ হয়েছে। বাকি ৩০ শতাংশ শেষে মার্চের মাঝামাঝি সময়ে চলাচলের জন্য খুলে দেয়া হতে পারে এটি। ছয় মাসব্যাপী সংস্কার কাজে ব্যয় হচ্ছে প্রায় কোটি টাকা।

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) নির্বাহী প্রকৌশলী মো. ফরহাদ ঢাকা টাইমসের প্রশ্নের লিখিত জবাবে এ তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি জানান, যমুনা ফিউচার পার্কের সামনে প্রগতি সরণিতে নির্মিত ‘আবরার আহমেদ ফুটওভার ব্রিজ’- এর রেট্রো ফিটিংসহ ছাউনি নির্মাণের কাজ চলছে। ২০২০ সালের ২০ সেপ্টেম্বর এ সংস্কার কাজ শুরু হয়। আগামী মাসের ১৫ তারিখ এ কাজ শেষ হওয়ার কথা। এরইমধ্যে সংস্কার কাজ ৭০ ভাগ শেষ হয়েছে।

৯৭ লাখ ৪১ হাজার টাকা ব্যয়ে এ সংস্কার কাজ শেষ হলে ‘পথচারীদের নিরাপদে রাস্তা পারাপার ও সড়কে সু-শৃঙ্খল যান চলাচল বৃদ্ধি পেতে সহায়ক হবে’ বলে জানান উত্তর সিটির নির্বাহী প্রকৌশলী মো. ফরহাদ।

সংস্কার কাজ চলার কারণে ফুটওভার ব্রিজটি ব্যবহার করতে পারছেন না পথচারীরা। এতে রাস্তা পারাপারে নানান ভোগান্তি ও ঝুঁকি নিতে হচ্ছে তাদের। দ্রুত সময়ের মধ্যে এটি চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করে দেয়ার দাবি জানিয়েছেন তারা।

কুড়িল কাজী বাড়ি মোড় এলাকার বাসিন্দা ফাহাদ হোসেন ঢাকা টাইমসকে বলেন, ‘একজন মারা যাওয়ার পথ ব্রিজটি বানানো হলো। এখন আবার দীর্ঘ সংস্কার কাজ। লাভ হলো কি! সেই তো ঝুঁকি নিয়েই রাস্তা পারাপার হতে হচ্ছে।’

বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার বাসিন্দা হাসনাত নয়ন বলেন, ‘পথচারীদের জন্য পারাপারের ব্যবস্থা রেখে সংস্কার কাজ করা উচিত ছিল বা বিকল্প ব্যবস্থা রাখা উচিত ছিল। তা রাখা হয়নি। ফলে আরও অনেক আবরারের প্রাণ যেতে পারে এ সড়কে। কর্তৃপক্ষের উচিত এ বিষয়ে নজর দেয়া। সংস্কার কাজ শুরু হয়েছে, কিন্তু এখানে রাস্তা পারাপারের তো প্রয়োজন তো ফুরিয়ে যায়নি।‘

গত বছরের ১৯ এপ্রিল প্রগতি সরণির যমুন ফিউচার পার্কের সামনে জেব্রা ক্রসিংয়ে সু-প্রভাত বাসের চাপায় বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালস (বিইউপি)-এর শিক্ষার্থী আবরার আহমেদ চৌধুরী নিহত হন।

এ ঘটনার পর সে বছরের ২০ মে আবরার আহমেদের বাবা ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) আরিফ আহমেদ চৌধুরীর পক্ষে ফুটওভার ব্রিজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন ডিএনসিসি’র মেয়র আতিকুল ইসলাম। ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনের মাধ্যমে ফুটওভার ব্রিজ নির্মাণ কাজের উদ্বোধন হয়।

পিইবি স্টিল নামের একটি প্রতিষ্ঠান নিজস্ব অর্থায়নে এটি নির্মাণ করেছে। গত সেপ্টেম্বরের প্রথম সপ্তাহে ওভারব্রিজটি পারাপারের জন্য উন্মুক্ত করে দেয়া হয়।

কিন্তু সেতু উদ্বোধনের পরেই তাতে ত্রুটি দেখা দেয়। পথচারীদের চলাচলে কম্পনের সৃষ্টি হয় ওভার ব্রিজটিতে। এ বিষয়ে জানতে চাইলে পিইবি স্টিল কর্তৃপক্ষ জানায়, সিটি করপোরেশন থেকে তাদের যেভাবে নকশা দেয়া হয়েছিল, তারা সেভাবেই এটি নির্মাণ করেছেন।

ওভার ব্রিজটিতে অবকাঠামোগত ত্রুটি আছে কি না, তা পরীক্ষা করতে মিলিটারি ইনস্টিটিউট অব সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজিকে (এমআইএসটি) দায়িত্ব দেয় উত্তরের নগর কর্তৃপক্ষ। সেতুটি পরীক্ষা করে গত ২৭ অক্টোবর প্রতিবেদন জমা দেয় এমআইএসটির সেন্টার পর অ্যাডভাইজরি অ্যান্ড টেস্টিং সার্ভিস।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ওভার ব্রিজের মেঝে পাতলা স্টিলের পাত দিয়ে নির্মাণ করা হয়েছে। মধ্যস্থানে বিচ্যুতি ও কম্পন বেশি মাত্রায় দেখা গেছে। পুরো সেতুর কাঠামো নাটবল্টু দিয়ে যুক্ত। এ ধরনের কলামভিত্তিক সেতুতে নাটবল্টুর পরিবর্তে ভবনের মতো কলাম দিয়ে তৈরি করতে হয়।

এই সমস্যা সমাধান, ওভার ব্রিজটিকে জনবান্ধব ও টেকসই করে তুলতে এ সংস্কার কাজ করা হয়েছে বলে ডিএনসিসির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

(ঢাকাটাইমস/২৮ফেব্রুয়ারি/কারই/ইএস)

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজধানী বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :