‘সরকারকে সিদ্ধান্ত নিতে হবে বুঝে-শুনে’

কাজী রফিক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ০৬ এপ্রিল ২০২১, ২০:৫৯

মহামারি করোনাভাইরাসের সংক্রমণ মারাত্মক আকার ধারণ করতে যাওয়ায় সরকার সারাদেশে এক সপ্তাহের যে লকডাউন ঘোষণা করেছে সেটা তেমন কোনো কাজে আসবে বলে মনে করেন না জাতীয় টেকনিক্যাল পরামর্শক কমিটির সদস্য এবং বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য (ভাইরোলজিস্ট) অধ্যাপক নজরুল ইসলাম। তার মতে, কথিত লকডাউনের চেয়ে সবখানে যেন স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিশ্চিত হয় সে দিকে সরকারের নজর দেয়া বেশি জরুরি। এজন্য হুট করে সিদ্ধান্ত না নিয়ে বুঝে-শুনে সিদ্ধান্ত নেয়ার তাগিদ দিয়েছেন এই বিশেষজ্ঞ।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ঢাকা টাইমসকে দেয়া একান্ত সাক্ষাৎকারে অধ্যাপক নজরুল ইসলাম এসব কথা বলেন।

সোমবার থেকে শুরু হওয়া লকডাউনে সারাদেশে গণপরিবহন বন্ধ রাখার ঘোষণা দেয় সরকার। কিন্তু মঙ্গলবার সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের জানিয়েছেন, আগামীকাল বুধবার থেকে সারাদেশের সিটি করপোরেশন এলাকায় বাস চলবে। গণপরিবহন চালু রাখার সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়ে নজরুল ইসলাম বলেন, ‘এক্ষেত্রে যথেষ্ট পরিমাণ লোকবল দিয়ে স্বাস্থ্যবিধি মানিয়ে মানুষকে বাসে তুলতে হবে। বাসের ভেতরে স্বাস্থ্যবিধি মেনে বসা নিশ্চিত করতে হবে। এখন যদি সরকার এটা পারে, করুক। তবে সরকারকে সবকিছু বুঝে-শুনে সিদ্ধান্ত নিতে হবে।’

স্বাস্থ্যবিধি মেনে গণপরিবহন পুরোপুরি চালু করে দেয়া উচিত বলে মনে করেন এই ভাইরোলজিস্ট। তিনি বলেন,‘গণপরিবহনটা ছেড়ে দিচ্ছে এটা ভালো। কারণ মানুষের খুব দুরবস্থা। স্বাস্থ্য সুরক্ষা মেনে এটা করতে হবে। সমস্ত বাস খুলে দিক। আগে একটা বাসে যে পরিমাণ যাত্রী যেত, এখন দুইটা বাসে যাবে। বাসের সংখ্যা ডাবল করে দিক। কিন্তু স্বাস্থ্য সুরক্ষা মেনে চলতে হবে। মানুষ যে স্বাস্থ্যবিধি মানছে না এটা হচ্ছে আমাদের সমস্যা।‘

স্বাস্থ্যবিধি মানতে প্রয়োজনে সেনাবাহিনীকে মাঠে নামানোর পরামর্শ দেন জাতীয় টেকনিক্যাল পরামর্শক কমিটির এই সদস্য। বলেন, ‘এটা মানানোর জন্য যদি আর্মি নামাতে হয়, আর্মি নামান। আমরা মানুষের সুবিধা চাই। কিন্তু স্বাস্থ্যবিধি মেনে। এটা হলো আসল।’

সরকারের ঘোষণার পর স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালনের নজির খুব কম। এ বিষয়ে পুলিশের ভূমিকা নিয়ে তিনি বলেন, ‘আমরা আগে থেকেই বলব যে, আমরা কঠোর হবো না। তার মানে আগেই একটা প্রতিজ্ঞা করে রাখছি, এটা কি ঠিক? কঠোরতার প্রয়োজন হলে আমাদের কঠোর হতে হবে। এটা দেশের স্বার্থে, মানুষের স্বাস্থ্য সুরক্ষার স্বার্থে।’

কঠোর স্বাস্থ্যব্যবস্থা বাস্তবায়নের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। দুই দিন পর আবার সিদ্ধান্ত বদলের বিষয়টি অনেকটা প্রশ্নবিদ্ধ হয়েছে। এ বিষয়ে জানতে চাইলে নজরুল ইসলাম বলেন, ‘আমি ব্যক্তিগতভাবে মনে করি, এটা লকডাউন হোক বা অন্য যা হোক, এটা মেনটেন করার সক্ষমতা আমাদের সরকারের নেই। সরকার নিজের ক্ষমতাকে না বুঝেই একটা সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এগুলোকে এভাবে পরিচালনা করার ক্ষমতা সরকারের নেই। মানুষ এগুলো মানবে না। আমার মনে হয়, এগুলো কোনো কিছুই করার দরকার ছিল না। একমাত্র নজর দেয়া উচিত ছিল স্বাস্থ্যবিধি মানাটার দিকে। আর্মি-বিজিবি নামাতে হলে আর্মি নামাবে।’

বর্তমান পরিস্থিতির কারণে সরকারের অভিজ্ঞতা হচ্ছে জানিয়ে তিনি বলেন,‘বাস দ্বিগুণ করতে হবে। দোকানপাট খোলা থাকবে। মানুষের যেন অসুবিধা সৃষ্টি না হয়, সে দিকে দৃষ্টি দেয়া উচিত ছিল। এগুলো সরকারের অভিজ্ঞতা হচ্ছে। বুঝবে। বুঝলেই ভালো।’

লকডাউনের প্রয়োজনীয়তা বোধ করছেন না বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক এই উপাচার্য। তিনি বলেন, ‘দেশ আগে যেভাবে ছিল, এই কথিত লকডাউনের আগে, সেভাবে চলতে হবে। গণপরিবহন দ্বিগুণ করে বাকি সব ঠিক করে দেবেন। স্বাস্থ্যবিধি মানতে বাধ্য করতে হবে।’

দেশের অতি সংক্রমিত এলাকার প্রতি বাড়তি নজর দেয়ার তাগিদ দিয়ে নজরুল ইসলাম বলেন, ‘অতি সংক্রমিত এলাকাতে সার্ভে করে, প্রতিটি পরিবারকে সার্ভে করে, যে পরিবারে একজন অন্তত পজিটিভ রোগী পাবে, তাদেরকে কোয়ারেন্টাইন করা, এভাবে করে চলমানভাবে কাজ করে যেতে হবে। তাহলে সংক্রমিত রোগীর সংখ্যা কমবে। এই পরিবারগুলোকে আমরা সবাই সাহায্য করব। তাদেরকে আমরা বাজার করে দেব। অন্যান্য সহযোগিতা করব। অবহেলা করব না।’

(ঢাকাটাইমস/০৬এপ্রিল/কারই/জেবি)

সংবাদটি শেয়ার করুন

জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :