সড়কে বেড়েছে মানুষ ও ব্যক্তিগত গাড়ি

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ২৫ জুলাই ২০২১, ১৫:২২ | প্রকাশিত : ২৫ জুলাই ২০২১, ১৪:৩২

করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে সরকারঘোষিত ঈদ-পরবর্তী কঠোর বিধিনিষেধের তৃতীয় দিনে রাজধানীর সড়কগুলোতে বেড়েছে ব্যক্তিগত গাড়ির চাপ। যদিও কঠোর লকডাউনে জরুরি পরিষেবা ছাড়া ব্যক্তিগত গাড়ি চলাচলে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। বেড়েছে মানুষের সংখ্যাও। অবাধে মানুষ রাস্তায় বের হচ্ছেন। সড়কে বেরিয়ে পড়া অনেক মানুষ স্বাস্থ্যবিধিও মানছেন না।

রবিবার রাজধানীর বেশ কয়েকটি সড়ক ঘুরে এমন চিত্র দেখা গেছে।

সরেজমিনে লকডাউনের তৃতীয় দিন সকাল থেকেই রাজধানীর সড়কগুলোতে গাড়ি চলাচল করতে দেখা যায়। সকালে গাড়ির সংখ্যা কম থাকলেও সময় বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে গাড়ি বাড়তে থাকে। এসব গাড়ির মধ্যে প্রাইভেটকার বেশি। আছে অনেক রিকশাও। তবে নেই বাস। সেইসঙ্গে বেড়েছে মানুষের চলাচলও। আগের কঠোর লকডাউনে মূল সড়কে মানুষের আনাগোনা তেমনটা দেখা না গেলেও এবার দেখা গেছে ভিন্ন চিত্র। মূল সড়কের পাশাপাশি অলিগলিতেও মানুষের অবাধ চলাফেরা করতে দেখা গেছে। তাদের অনেকের মুখে নেই মাস্ক।

সড়কের অনেক স্থানে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর চেকপোস্ট থাকলেও সেগুলোতে রয়েছে ঢিলেঢালা ভাব। গতবারের তুলনায় এবারের লকডাউনে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর তৎপরতা তেমন চোখে পড়েনি। চেকপোস্টগুলোতে মাঝেমধ্যে গাড়ি থামিয়ে অহেতুক ঘোরাঘুরি করছে কি না তা যাচাই ও কাগজপত্র খতিয়ে দেখছে পুলিশ। তবে অবাধে ঘোরাফেরা করা সাধারণ মানুষকে খুব একটা বাধার সম্মুখীন হতে দেখা যায়নি।

ঈদুল আজহা ও পশুরহাটে কেনাবেচার বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে ১৫ জুলাই মধ্যরাত থেকে ২২ জুলাই পর্যন্ত লকডাউন শিথিল করেছিল সরকার। আট দিন বিরতির পর ২৩ জুলাই ভোর ছয়টা থেকে দুই সপ্তাহের জন্য ফের কঠোর লকডাউনের ঘোষণা দেয় সরকার, যা চলবে ৫ আগস্ট পর্যন্ত। বিধিনিষেধ চলাকালে কী করা যাবে, কী করা যাবে না তা নিয়ে গত ১৩ জুলাই মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে এ সংক্রান্ত একটি প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে।

(ঢাকাটাইমস/২৫জুলাই/আরকে/এমআর)

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজধানী বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :