ই-বেবির তকমা পেল যে শিশু

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
 | প্রকাশিত : ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১:৫৯

কারো সঙ্গে সম্পর্ক ছাড়াই সন্তান পেতে চেয়েছিলেন ৩৩ বছরের স্টেফানি টেলর। তবে কোনো হাসপাতালের খরচ বেশি হওয়ায় তিনি সেপথে হাঁটতে চাননি। এর জন্য তিনি ভরসা রেখেছেন ইন্টারনেটের ওপর। শেষ পর্যন্ত এক ফুটফুটে শিশুর জন্ম দিয়েছেন ওই নারী। এই ঘটনার পরই ওই শিশুকে ই-বেবির তকমা দিয়েছেন নেটিজেনরা।

ব্রিটেনের সংবাদমাধ্যম মিররের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ইন্টারনেট থেকেই শুক্রাণু ক্রয় করেন স্টেফানি। ইউটিউব দেখে সেই শুক্রাণু গর্ভে প্রবেশ করানোর পদ্ধতি শিখেছেন। শেষে ই-কমার্স সাইট ই-বে থেকে কিনেছেন প্রজনন প্রক্রিয়ার দরকারি জিনিসপত্র। তার যুক্তি অনলাইনে যখন সব কিছুই হচ্ছে, তখন সন্তান ধারণেই বা সমস্যা কোথায়।

দশ মাস পরে ফুটফুটে এক কন্যা সন্তানের জন্ম দিয়েছেন। কন্যার নাম রেখেছেন ইডেন। যদিও ইডেন এর চেয়ে ই-বেবি নামেই বেশি পরিচিতি পাচ্ছে শিশুটি।

অনলাইনে লেনদেন, কেনাকাটা বা বার্তা প্রেরণের পদ্ধতিতে ইলেকট্রনিকের অদ্যাক্ষর ‘ই’ জুড়ে দেওয়া হয়। স্টেফনির কাহিনি শুনেও অনেকের মনে হয়েছে এই সন্তানের জন্মের সঙ্গেও ওতপ্রোতভাবে জড়িয়ে আছে অনলাইনের বিষয়-আশয়। তাই ইডেন আসলে ‘ই-বেবি’।

তবে হঠাৎ গর্ভধারণ কেন্দ্রে না গিয়ে বাড়িতে গর্ভধারণ করেছেন কেন? স্টেফনি জানিয়েছেন, তিনি প্রথমে বিকল্পটি ভেবে দেখেননি তা নয়। বরং প্রথম দিকে বেশ কয়েকটি গর্ভধারণ কেন্দ্রে তিনি যোগাযোগ করেছিলেন। কিন্তু তাদের সন্তান ধারণ করানোর মূল্য এতটাই বেশি যে বিকল্প খুঁজতে বাধ্য হন স্টেফনি।

স্টেফনি জানিয়েছেন, প্রথমে এ ব্যাপারে তার বাড়ির কয়েক জন সদস্য রাজি না হলেও ইডেনের জন্মের পর তারা খুশি। সম্পূর্ণ নিজের চেষ্টায় সন্তানের জন্ম দিতে পেরে স্টেফনিও গর্ববোধ করছেন বলে জানিয়েছেন।

ঢাকাটাইমস/২০সেপ্টেম্বর/একে

সংবাদটি শেয়ার করুন

আন্তর্জাতিক বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :