ওমানকে হারিয়ে বিশ্বকাপে টিকে থাকল বাংলাদেশ

ক্রীড়া প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ২০ অক্টোবর ২০২১, ০০:০৮ | প্রকাশিত : ২০ অক্টোবর ২০২১, ০০:০৫

মাসকোটের আল আমিরাত ক্রিকেট স্টেডিয়ামে দলীয় পারফরম্যান্সে স্বাগতিক ওমানকে ২৬ রানে হারিয়ে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে টিকে থাকল বাংলাদেশ দল। এদিন ম্যাচের শুরুতে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে সবকটি উইকেট হারিয়ে ১৫৩ রান তুলে টাইগাররা। জবাবে খেলতে নেমে ১২৭ রানে থেমেছে ওমানের ইনিংস।

রান তাড়া করতে নামা ওমানের বিপক্ষে প্রথম ওভারেই ১২ রান দেন তাসকিন আহমেদ। পরের ওভারে উইকেটের দেখা পেলেও খরুচে ওভার করেন মোস্তাফিজ। এরপর ক্যাচ এবং রান আউট মিসের ছড়াছড়িতে এগোতে থাকে ওমানের রানের চাকা।

তবে নিজের দ্বিতীয় ওভারে আবারও উইকেট তুলে নেন মোস্তাফিজ। ওই ওভারের চতুর্থ বলে ক্যাশপ প্রজাপতিকে সাজঘরে ফেরান কাটার মাস্টার। আউট হওয়ার আগে প্রজাপতি করেন ২১ রান।

তৃতীয় উইকেটে দলনেতা জিসান মাকসুদকে সঙ্গে নিয়ে দেখে-শোনেই খেলছিলেন ওপেনার জতীন্দার সিংহ। কিন্তু জিসানকে বেশিক্ষণ থাকতে দিলেন না মেহেদি। আর ব্যাট হাতে ভয়ঙ্কর হয়ে উঠা জতীন্দার সিংহকে ৪০ রানে ফেরান সাকিব আল হাসান।

এরপর ক্রিজে ওমানের কাউকে দাঁড়াতেই দেননি মোস্তাফিজ-সাকিবরা। একের পর এক উইকেট তুলে নিয়ে জয়ের বন্দরেই পৌঁছে যায় টাইগাররা। ওমানের শেষ সাতজন ব্যাটসম্যানের মধ্যে দশের ঘর স্পর্শ করতে পেরেছেন কেবল একজন। ১৪ রানে অপরাজিত থাকেন নাদিম। অন্যদিকে ৯ রানে আয়ান, ৪ রানে স্বন্দীপ, ৪ রানে নাসিম, ৫ রানে কলিমুল্লাহ, ৪ রানে নাদিম এবং শূন্যরানে আউট হন ফয়য়েজ বাট।

বাংলাদেশের পক্ষে সর্বোচ্চ চারটি উইকেট নেন মোস্তাফিজুর রহমান। সাকিব আল হাসান নেন তিনটি উইকেট।

এর আগে ম্যাচের শুরুতে টস জিতে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে সুবিধা করতে পারেননি টাইগার ওপেনাররা। প্রথম দুই ওভারে ৭ রান তুলার পর তৃতীয় ওভারে এলবিডব্লিউর ফাঁদে পড়েন লিটন। যদিও আম্পায়ার প্রথমে আউট দেননি। পরে রিভিউ নেন ওমানের অধিনায়ক জিসান মাহমুদ। সেখানে আউট প্রমাণিত হলে সাজঘরে ফেরেন এই ড্যাশিং ওপেনার। দ্বিতীয় উইকেটে ব্যাট করতে নামা মেহেদি হাসান খুলতে পারেননি রানের খাতা।

তৃতীয় উইকেটে ব্যাট হাতে দুর্দান্ত খেলতে থাকেন নাঈম শেখ এবং সাকিব আল হাসান। এ দুজন মিলে দ্রুত ৮০ রানের জুটি গড়ে দলকে বড় সংগ্রহের দিকেই নিতে থাকেন। দারুণ ছন্দে ব্যাট করতে থাকা সাকিব হুট করেই হয়ে যান রান আউট। আর আউট হেওয়ার আগে ২৯ বল খেলে করেন ৪২ রান।

সাকিব আউট হওয়ার পর ব্যাট হাতে সুবিধা করতে পারেননি পরের দুই ব্যাটসম্যান। ৩ রানে আউট হন নুরুল হাসান সোহান। আর ১ রানে আউট হয়েছেন আফিফ হোসেন। এরই ব্যক্তিগত অর্ধশতক পূর্ণ করে ফেলেন নাঈম শেখ। আর আউট হওয়ার আহে করেন ৬৪ রান। ৫০ বলে খেলা তার এই ইনিংসটি ৩টি চার এবং ৪টি ছয়ে সাজানো।

শেষদিকে ৬ রানে মুশফিক, ১৭ রানে মাহমুদউল্লাহ, শূন্যরানে সাইফউদ্দিন এবং ২ রানে আউট হন মোস্তাফিজুর রহমান। আর তাসকিন অপরাজিত থাকেন ১ রানে।

(ঢাকাটাইমস/২০ অক্টোবর/এমএম)

সংবাদটি শেয়ার করুন

খেলাধুলা বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :