প্রযোজক সমিতির নির্বাচন থেকে কেন সরলেন ‘বালুখেকো’ সেলিম খান?

বিনোদন প্রতিবেদক
| আপডেট : ১১ আগস্ট ২০২২, ১১:৫২ | প্রকাশিত : ১১ আগস্ট ২০২২, ১১:২৩

প্রযোজক ও পরিবেশক সমিতির ২০২২-২৪ মেয়াদের নির্বাচনের আর মাত্র আট দিন বাকি। আগামী ২০ আগস্ট বিএফডিসিতে অনুষ্ঠিত হবে এই নির্বাচনের ভোটগ্রহণ। তার আগেই নির্বাচন থেকে নিজের প্রার্থিতা প্রত্যাহার করে নিলেন চাঁদপুরের ‘বালুখেকো’ ইউপি চেয়ারম্যান ও প্রযোজক সেলিম খান। অর্থাৎ এবারের নির্বাচনে তিনি অংশ নিচ্ছেন না।

প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান শাপলা মিডিয়ার কর্ণধার সেলিম খান। এবারের নির্বাচনে তিনি সভাপতি প্রার্থী ছিলেন। গত ২১ মে নির্বাচন বাতিল হওয়ার পর সংশোধিত তফসিলে সেলিম খানসহ ১৯ জন প্রার্থীর প্রার্থিতা বাতিল হয়। তবে নিয়ম ছিল, সংশোধিত ভোটার তালিকায় নাম থাকলে বাতিল প্রার্থীরা পুনরায় ঘোষিত নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে মনোনয়ন তুলে নির্বাচন করতে পারবেন।

সেই অনুয়ায়ী নিজ প্যানেলের সভাপতি পদপ্রত্যাশী প্রার্থী সেলিম খান পুনরায় সংশোধিত তফসিলে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে মনোনয়ন সংগ্রহ করেছিলেন। কিন্তু বুধবার হঠাৎই তা প্রত্যাহার করে নিলেন। নিজের প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান শাপলা মিডিয়ার প্যাডে নির্বাচনী বোর্ডের চেয়ারম্যান বরাবর লিখিত আবেদনে প্রার্থিতা প্রত্যাহারের কথা জানিয়েছেন সেলিম খান।

কিন্তু কী কারণে হঠাৎ প্রার্থিতা প্রত্যাহার করলেন ‘বালুখেকো’ চেয়ারম্যান? সেলিম খান তার আবেদনে লিখেছেন, ‘আমি মো. সেলিম খান। বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রযোজক সমিতির একজন সাধারণ সদস্য। সমিতির আসন্ন ২০২২-২৪ মেয়াদের নির্বাচনে একজন প্রার্থী হই। ব্যক্তিগত কারণে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে পারছি না। আমার প্রার্থিতা আমি প্রত্যাহার করলাম। আমার প্রার্থিতা বাতিল করার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করিবেন।’

কিন্তু আসলেই কি ব্যক্তিগত কারণে নির্বাচন ছেড়েছেন সেলিম খান? চলচ্চিত্রপাড়ায় ফিসফাস, একাধিক বিতর্কে জড়িয়ে নিজেকে আড়াল করার জন্য নির্বাচন ছেড়েছেন তিনি। নিজ এলাকা চাঁদপুরে ‘বালুখেকো’ হিসেবে পরিচিত সেলিম খান। অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করে কামিয়েছেন শত শত কোটি টাকা। সেই কালো টাকা সাদা দেখানোর জন্য গড়ে তুলেছেন প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান।

সেলিম খানকে নিয়ে এসব বিতর্কের মাঝেই সম্প্রতি তার বিরুদ্ধে ৩৪ কোটি ৫৩ লাখ ৮১ হাজার ১১৯ টাকা জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগে মামলা করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। একসময় ক্যাসিনো-কাণ্ডেও জড়িয়েছিল সেলিম খানের নাম। সবমিলিয়ে চলচ্চিত্রসংশ্লিষ্টদের কাছে সাক্ষাৎ ভিলেন হয়ে গেছেন এই ‘বালুখেকো’ চেয়ারম্যান। নিজের অবস্থান বুঝতে পেরেই তিনি প্রার্থিতা প্রত্যাহার করে নিয়েছেন বলে মন্তব্য অনেকের।

যদিও খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, কিছুদিন ধরেই হদিস মিলছে না বিতর্কিত সেলিম খানের। দুদকের মামলার পরপরই তিনি আত্মগোপনে চলে গেছেন। গুঞ্জন উঠেছে, প্রতিবেশী দেশ ভারতে পালিয়েছেন সেলিম খান। ফলে তিনি চাইলেও আগামী ২০ আগস্টের নির্বাচনে অংশ নিতে পারতেন না। তাই তড়িঘড়ি প্রার্থিতা প্রত্যাহার করে নিয়েছেন বলে শোনা যাচ্ছে।

তবে শুধু সেলিম খান নয়, এবারের প্রযোজক সমিতির নির্বাচন করছেন না খল অভিনেতা মনোয়ার হোসেন ডিপজলও। একই প্যানেল থেকে সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন কিনেছিলেন তিনি। তবে গত ২১ মে সেলিম খানের সঙ্গে বাতিল হয় তার প্রার্থিতাও। যদিও পুনরায় মনোনয়ন সংগ্রহের সুযোগ থাকলেও ডিপজল তা করেননি। বুধবার ছিল মনোনয়ন সংগ্রহ ও প্রত্যাহারের শেষ দিন।

পুনরায় মনোনয়ন সংগ্রহ না করার ব্যাপারে ডিপজল জানিয়েছেন, ‘আমার শরীর ভালো নেই। অনেক দিন থেকেই অসুস্থ আমি। কিছুদিন পর পরই দেশের বাইরে যেতে হয়। নির্বাচন করতে হলে তো সময় দিতে হবে। সেটি এখন আমার পক্ষে সম্ভব নয়। এ কারণেই নির্বাচন করছি না। এখন নির্বাচনের চেয়ে সিনেমার কথাই ভাবছি।’

(ঢাকা টাইমস/১১ আগস্ট/এএইচ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বিনোদন বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :