শম্পা মনিমার কবিতা

শম্পা মনিমা
| আপডেট : ০২ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১২:৪৮ | প্রকাশিত : ০২ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১২:৪২

সজল ভাদর

বরিষণ স্রোতে পুলকিত মিলন অধীর আজ মেদিনী

ঠোঁটের ডগায় বাসা বাঁধে উর্বর বীজ আগমনী

গাছে গাছে একসাথে বসতবাড়ি গড়ে যত দম্পতি

মুখরিত হবে ছানাদের কলকাকলিতে আশা আগামী

মৌসুমী মেঘের এটাই যে চিরন্তণ রীতি।

শ্রাবণ ছাড়িয়ে জল ডোবে মাথা গরবিনী গর্ভে

সবুজ ধানের ডাগর মন ভাদর যে কাছে টানে

উপচে ওঠে খলবলে মীনদের আঁতুড়ঘর

ছানাপোনা খেত জুড়ে মেতে থাকে বাদল সাঁঝসকাল

পাঁক বুকে বেড়ে ওঠে কুঁড়ি মধুপদ্মবন ভর।

জনপথে চঞ্চল আজ হৃদি বৈষ্ণবী নীলাম্বরী

আঁখিতে আঁখি সুধা প্লাবন সে পদাবলি

চিরপলাতক প্রেম অনুভবে আর্দ্র মেঘবালিকা

সিক্ত পাঁপড়ি অভিসার মিশে যায় কামনায় যামিনী

আরণ্যক দাবানলে ভেজায় মাধুরীর ত্রিবলী।

খুঁজব জীবন

কাশফুল দেখলেই অপু দুর্গা দৌড়ে চলে

নিঁখোজ ছায়ায় চোখ ট্রেন ছোটে মাঠ পাশে;

কত রঙিন গাছ চিন্তা শুরু করে

নিরাশা মৃত‍্যু পার হয় সারাদিন শুয়ে।

হারানো ড্রয়ারে কাপড় জড়িয়ে স্বপ্ন রাখা

ঘুমন্ত অবস্থায় হঠাৎ খুব শুকোয় গলা,

সীমাবদ্ধ আকাশে এখন নীলদিন ঝরে

জীবন হারিয়েছে শরৎ মেঘে-

শিউলী গাছের ডালে সে গন্ধ ঘোরে ।

দূর্গা প্রতিমা যত্ন বোনায় দুঃখ যায় না দেখা

আমার আমিকে তো খুঁজে আর পাই না,

কোথায় রেখেছি, কে জানে

বেখেয়ালে–

শাদা জলের উল্লাস

রোদ্দুরও এখানে কম ছায়ায় ঢাকে

বিমুখ চরাঞ্চল

হাতধরে টেনে আনে

ভালোবাসার দোহন

গহীনে জাগরী যমুনা দীর্ঘ মধ‍্যরাত-

ধুসর চোখে জেগে থাকে চোখ উত্তাপ

পরিকল্পিত নতুন গাঙে ডুব দেওয়া

মেঘে ঢাকা তারাদের

শেষমেশ প্রশ্রয়ে বাড়বাড়ন্ত শাওন

ভুলতে দেবে না,

এতো নিশিথ প্রহরের তৃপ্ত নিয়ম

কিঞ্চিলিকের জৈবিক ফিসফাস ।

দিনের সিঁড়ির শেষে

আমার দেহ ভাঁজ থেকে জন্ম নিবন্ধন বিটপ সারি

সমস্ত ভঙ্গিমায় রেখেছে নিদারুণ চোখের ভিতর

আর আমার এ স্বর– ক্লান্তির পদস্খলন

নৈবেদ্য করে দেয় কালজয়ী লুপ্ত কেতন

লুটেরা বানায় ফুলের তোড়া ভেঙে পড়ার সুখে

চৌকাঠের ঘেরাটোপ চিরাচরিত সুরম্য বাতাসে

তবুও আমাকে মুক্তবায়ু এনে দেয় কতেক সন্তাপ

ছেড়ে যাওয়া স্টিমারের আকুল আদর ও বিভাজিত এক আমি অভিশাপ।

(ঢাকাটাইমস/০২সেপ্টেম্বর/এফএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

ভাষা ও সাহিত্য বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :