বিদেশে বসে দুই লাখ টাকায় স্ত্রীকে হত্যা করিয়েছেন স্বামী

রাজবাড়ী প্রতিনিধি, ঢাকা টাইমস
 | প্রকাশিত : ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ২১:০৮

রাজবাড়ীর পাংশা উপজেলার পাট্টা ইউনিয়নের উত্তর পাট্টা গ্রামে গৃহবধূ রোজিনা আক্তার আরজিনাকে (৩০) হত্যার ঘটনায় জড়িত মো. শিহাব শেখ (৪৫) নামে এক আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গ্রেপ্তারকৃত আসামি আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। শনিবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) বিকালে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে বিষয়টি নিশ্চিত করে জেলা পুলিশ।

এ বিষয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ক্রাইম অ্যান্ড অপস) মুকিত সরকার বলেন, হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত শিহাব নামে এক আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তিনি দুই লাখ টাকার বিনিময়ে রোজিনাকে হত্যা করেন। পরে তথ্য-প্রযুক্তি ব্যবহার করে আসামি শিহাবকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাকে আজ আদালতে পাঠানো হলে সে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন এবং হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেন।

গ্রেপ্তার মো. শিহাব শেখ পাংশা উপজেলার বাজেয়াপ্ত বাগলী গ্রামের হেকমত আলী শেখের ছেলে। নিহত রোজিনা আক্তার আরজিনা উপজেলার পাট্টা ইউনিয়নের উত্তর পাট্টা গ্রামের দুবাই প্রবাসী লিটন শেখের স্ত্রী।

জেলা পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, রোজিনার স্বামী দুবাই প্রবাসী। রোজিনা তার ছেলে রাসেল (১২) ও রাকাকে (৬) নিয়ে পাংশার পাট্টায় তার স্বামীর বাড়িতে থাকতেন। রোজিনা তার ছেলেকে গত ৮ ফেব্রুয়ারি রাত ১০টার দিকে তার স্বামীর বাড়িতে ঘুমিয়ে পড়েন এবং তার মেয়ে অন্য বাড়িতে দাদা-দাদির কাছে ছিল। অজ্ঞাতনামা আসামিরা রাত ১০টা থেকে পরদিন সকাল সাড়ে ৬টার মধ্যে পূর্বপরিকল্পিতভাবে রোজিনাকে হত্যা করে পাট্টা এলাকার ওসমান মোল্লার বাঁশ বাগানে দক্ষিণপাশে আম বাগানে ফেলে রেখে যায়। স্থানীয়দের খবরের ভিত্তিতে মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। পরে রোজিনার বাবা আবজাল খাঁ বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা আসামি করে মামলা করেন। জেলা পুলিশ বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে দেখে তদন্ত শুরু করে এবং গত ২৪ ফেব্রুয়ারি হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত মো. শিহাব শেখকে গ্রেপ্তার করে।

পুলিশ জানায়, রোজিনার সঙ্গে তার দুবাই প্রবাসী স্বামী লিটন শেখের পারিবারিক কলহ ছিল। এছাড়াও রোজিনার স্বামীর একাধিক পরকীয়া ছিল। এ বিষয়টি রোজিনা জানার পর তাদের মধ্যে আরও ঝামেলা শুরু হয়। মাঝে মধ্যেই লিটন শেখ তার স্ত্রী রোজিনাকে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করতেন। এ কারণে রোজিনা তার ছেলে-মেয়েকে নিয়ে বাবার বাড়িতেও গিয়েছিলেন। পরে রোজিনা তার স্বামীর বাড়িতে আবার ফিরে আসেন। এরপর লিটন শেখ দুবাই চলে যান। তিনি ডুবাইতে গিয়ে তার স্ত্রীকে হত্যার পরিকল্পনা করে। লিটন তার স্ত্রী রোজিনাকে হত্যা করার জন্য স্থানীয় শিহাব শেখ নামের এক ব্যক্তিকে দুই লাখ টাকার বিনিময়ে ঠিক করেন। শিহাব লিটনের কাছ থেকে দুই লাখ টাকা গ্রহণ করেন। পরে আসামি শিহাব ও সহযোগীরা পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী রোজিনাকে সুকৌশলে তার বাড়ি থেকে বের করে এনে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে শ্বাসরোধ করে ও গাছের ডাল দিয়ে মাথায় আঘাত করে হত্যা নিশ্চিত করে মরদেহ বাগানে ফেলে রেখে যান।

(ঢাকা টাইমস/২৪ফেব্রুয়ারি/এআর)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

বাংলাদেশ এর সর্বশেষ

এই বিভাগের সব খবর

শিরোনাম :