খালেদ-রানার বোলিং তোপে তিনশ’র আগেই থামল শ্রীলঙ্কা

ক্রীড়া ডেস্ক, ঢাকা টাইমস
| আপডেট : ২২ মার্চ ২০২৪, ১৭:১৫ | প্রকাশিত : ২২ মার্চ ২০২৪, ১৬:৪২

দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজের প্রথম ম্যাচে টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে খালেদ আহমেদের ঝোড়ো বোলিংয়ে ৫৭ রানেই ৫ উইকেট হারায় শ্রীলঙ্কা। ৫৭ রানেই ৫ উইকেট হারানোর পর কামিন্দু মেন্ডিস ও ধনাঞ্জয়া ডি সিলভার জোড়া সেঞ্চুরিতে ঘুরে দাঁড়ায় তারা। এই দুই ব্যাটারের জুটিতে ভর করে ক্রমেই বড় সংগ্রহের দিকে এগোচ্ছিল লঙ্কানরা। অবশেষে জোড়া আঘাত হেনে এই দুই ব্যাটারকে ফিরিয়ে বাংলাদেশকে আবারও খেলায় ফেরায় অভিষিক্ত নাহিদ রানা। যার ফলে কামিন্দু মেন্ডিস ও ধনাঞ্জয়া ডি সিলভার জোড়া সেঞ্চুরির পরও ২৮০ রানেই নিজেদের প্রথম ইনিংস শেষ করলো লঙ্কানরা।

দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজের প্রথম ম্যাচে টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে খালেদ আহমেদের ঝোড়ো বোলিংয়ে ৫৭ রানেই ৫ উইকেট হারায় শ্রীলঙ্কা। ৫৭ রানেই ৫ উইকেট হারানোর পর জুটি গড়েন কামিন্দু মেন্ডিস ও ধনাঞ্জয়া ডি সিলভা। এই জুটিতে ভর করে ২২ ওভারে ৯২ রান নিয়ে লাঞ্চ বিরতিতে যায় শ্রীলঙ্কা। লাঞ্চ থেকে ফিরে জোড়া অর্ধশতক তুলে নেন এই দুই ব্যাটার। তাদের জুটিতে ভর করে দ্বিতীয় সেশনটা নিজেদের করে নে শ্রীলঙ্কা। দ্বিতীয় সেশনে লঙ্কানদের কোনো উইকেটই ফেলতে পারেনি বাংলাদেশ। বিনা উইকেটে ১২৫ রান তুলে নেয় এই সেশনে তারা। যার ফলে দ্বিতীয় সেশন শেষে ৪৯ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ২১৭ রান তুলে নিয়েছে শ্রীলঙ্কা। চা পানের বিরতি থেকে আরও ভয়ঙ্কর হয়ে এই জুটি। এই দুই ব্যাটারই তুলে নেন সেঞ্চুরি। তারপর লঙ্কান শিবিরে আঘাত হেনে এই দুই সেঞ্চুরিয়ানকে ফেরান অভিষিক্ত নাহিদ রানা। যার ফলে আবারও খেলায় ফেরে বাংলাদেশ। শেষ পর্যন্ত ৬৮ ওভার খেলে সব উইকেট হারিয়ে ২৮০ রান তুলতে সক্ষম হয় শ্রীলঙ্কা।

শ্রীলঙ্কার হয়ে আজ ওপেনিংয়ে নামেন দিমুথ করুনারত্নে ও নিশান মাদুশকা। তবে এই জুটিকে বেশিদূর এগোতে দেননি খালেদ আহমেদ। খালেদ আহমেদের বলে মেহেদী হাসান মিরাজের হাতে ক্যাচ তুলে দিয়ে সাজঘরে ফিরে যান নিশান মাদুশকা। তার বিদায়ে মাত্র ১ রানেই প্রথম উইকেট হারায় শ্রীলঙ্কা।

১ রানে প্রথম উইকেট হারানোর পর কুশল মেন্ডিসকে নিয়ে জুটি গড়েন দিমুথ করুনারত্নে। এই দুই ব্যাটার শুরু থেকেই দেখেশুনে খেলতে থাকেন। এই জুটিতে ভর করে শুরুর ধাক্কা সামলে ঘুরে দাঁড়াতে থাকে শ্রীলঙ্কা। অবশেষে এই জুটিও ভাঙেন খালেদ। খালেদের বলে গালিতে জাকির হাসানের হাতে ক্যাচ তুলে দিয়ে সাজঘরে ফিরে যান ২৬ বরে ১৬ রান করা কুশল মেন্ডিস। তার বিদায়ে ভাঙে ৩৭ রানের জুটি।

কুশল মেন্ডিসের পর খালেদের তৃতীয় শিকার হয়ে সাজঘরে ফিরে যান দিমুথ করুনারত্নে। খালেদের বলে বোল্ড হয়ে সাজঘরে ফিরে যান ৩৭ বলে ১৭ রান করা দিমুথ করুনারত্নে। তার বিদায়ে ৪১ রানেই ৩ উইকেট হারায় শ্রীলঙ্কা।

কুশল মেন্ডিস ও দিমুথ করুনারত্নের পর খালেদের বলে রান আউটের শিকার হয়ে সাজঘরে ফিরে যান অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস। তার বিদায়ে ৪৭ রানেই ৪ উইকেট হারিয়ে বিপদে পড়ে শ্রীলঙ্কা।

৪৭ রানে ৪ উইকেট হারানোর পর জুটি গড়েন ধনাঞ্জয়া ডি সিলভা ও দিনেশ চান্ডিমাল। তবে এই জুটিও বেশিদূর এগোতে পারেনি। দলীয় ৫৭ রানে দিনেশ চান্ডিমালের বিদায়ে ১০ রানেই ভেঙে যায় এই জুটি। ১৩ বলে ৯ রান করা দিনেশ চান্ডিমাল পেসার শরিফুলের বলে লেগ গালিতে মেহেদী হাসান মিরাজের হাতে ক্যাচ তুলে দিয়ে সাজঘরে ফিরে যান।

দিনেশ চান্ডিমালের বিদায়ের পর কামিন্দু মেন্ডিসকে নিয়ে জুটি গড়েন ধনাঞ্জয়া ডি সিলভা। এই দুই ব্যাটার দেখেশুনে খেলতে থাকেন। তাদের জুটিতে ভর করে ২২ ওভারে ৯২ রান নিয়ে লাঞ্চ বিরতিতে যায় শ্রীলঙ্কা।

বিরতি থেকে ফিরে অর্ধশতক তুলে নেন এই দুই ব্যাটার। ধনাঞ্জয়া ডি সিলভা ৫২ বলে ও কামিন্দু মেন্ডিস ৫১ বলে তুলে নেন অর্ধশতক। এই জুটিতে ভর করে ঘুরে দাঁড়াতে থাকে শ্রীলঙ্কা। দ্বিতীয় সেশনে বাংলাদেশকে কোনো সুযোগই দেননি তারা।

এই জুটির কল্যাণে ৪৪ ওভার ৬ বলে দলীয় ২০০ রান পূর্ণ করে শ্রীলঙ্কা। এরপর ৪৯ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ২১৭ রান তুলে দ্বিতীয় সেশন শেষ করে তারা। চা পানের বিরতি থেকে ফিরে আরও ভয়ঙ্কর হয়ে এই জুটি। ৫১ বলে অর্ধশতক তুলে নেওয়ার পর ১২৭ বলে সেঞ্চুরি তুলে নেন কামিন্দু মেন্ডিস।

সেঞ্চুরি তুলে নেওয়ার পর আর নিজের ইনিংসকে আর বেশিদূর নিয়ে যেতে পারেননি তিনি। অভিষিক্ত নাহিদ রানার বলে লিটন দাসের হাতে ক্যাচ তুলে দিয়ে সাজঘরে ফিরে যান তিনি। তার বিদায়ে ভাঙে ২০২ রানের জুটি।

কামিন্দু মেন্ডিসের পর আরেক সেঞ্চুরিয়ান ধনাঞ্জয়া ডি সিলভাকেও ফেরান অভিষিক্ত নাহিদ রানা। নাহিদ রানার বলে মেহেদী হাসান মিরাজের হাতে ক্যাচ তুলে দিয়ে সাজঘরে ফিরে যান ধনাঞ্জয়া ডি সিলভা। এই দুই ব্যাটারের বিদায়ে আবারও খেলায় ফিরল বাংলাদেশ।

এই দুই সেঞ্চুরিয়ানের পর প্রভাত জয়সুরিয়াকেও ফেরান নাহিদ রানা। নাহিদ রানার বলে লিটন দাসের হাতে ক্যাচ তুলে দিয়ে প্যাভিলিয়নের পথ ধরেন ১১ বলে ১ রান করা প্রভাত। তার বিদায়ে ২৬৫ রানে ৮ উইকেট হারায় শ্রীলঙ্কা।

২৬৫ রানে ৮ উইকেট হারানোর পর জুটি গড়েন বিশ্ব ফার্নান্ডো ও কাসুন রাজিতা। তবে এই জুটিকে বেশিদূর এগোতে দেননি তাইজুল ইসলাম। তাইজুলের বলে লিটন দাসের হাতে ক্যাচ তুলে দিয়ে সাজঘরে ফিরে যান বিশ্ব ফার্নান্ডো। আউট হওয়ার আগে করেন ১৯ বলে ৯ রান।

শেষ পর্যন্ত ৬৮ ওভার খেলে সব উইকেট হারিয়ে ২৮০ রান তুলতে সক্ষম হয় শ্রীলঙ্কা। বাংলাদেশের হয়ে খালেদ আহমেদ ৩ টি, নাহিদ রানা ৩ টি, শরিফুল ইসলাম ১ টি ও তাইজুল ইসলাম ১ টি করে উইকেট নেন।

ঢাকাটাইমস/২২মার্চ/এনবিডব্লিউ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

খেলাধুলা বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

খেলাধুলা এর সর্বশেষ

এশিয়ান তায়কোয়ান্দো চ্যাম্পিয়ন ইরান

হাই পারফরম্যান্স দলে শ্রেয়াস-ইশান, আবারও ফিরতে পারেন কেন্দ্রীয় চুক্তিতে

এবারের বিশ্বকাপে বাংলাদেশকে নিয়ে যা বললেন মাশরাফি

এইচপির ট্রেনিং ক্যাম্পের দল ঘোষণা বিসিবির

যুক্তরাষ্ট্রে অনুশীলন শুরু করেছে বাংলাদেশ, দেখে নিন ম্যাচ সূচি

সিটি ছাড়ার কথা ভাবছেন  ‘ক্লান্ত’ গার্দিওলা

দক্ষিণ আফ্রিকার সঙ্গে সিরিজ: বিশ্বকাপের অধিনায়কসহ ৭ জনকে রাখছে না ওয়েস্ট ইন্ডিজ

ব্রাজিলের কোপা স্কোয়াডে নতুন চার মুখ, বাদ পড়লেন এডারসন

দাপুটে জয়ে আবারও শিরোপা উঠলো ম্যানসিটির হাতে, গড়ল ইতিহাসও

পাকিস্তান সফরের ইচ্ছাপ্রকাশ বিরাট কোহলির, বেজায় খুশি আফ্রিদি

এই বিভাগের সব খবর

শিরোনাম :