ফিলিস্তিনের রাষ্ট্র স্বীকৃতির ভোটাভুটি আজ

ইসরায়েলি হামলায় গাজা একটি ‘মানবিক নরকে’ পরিণত হয়েছে: গুতেরেস

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, ঢাকা টাইমস
| আপডেট : ১৮ এপ্রিল ২০২৪, ২২:২৭ | প্রকাশিত : ১৮ এপ্রিল ২০২৪, ২২:০৬
  • রাতেই ফিলিস্তিনের জাতিসংঘ সদস্যপদ সংক্রান্ত প্রস্তাবের ভোট
  • রাফাহ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে ভার্চুয়াল বৈঠকে সম্মত হয়েছে ইসরায়েল

ইসরায়েলের আগ্রাসনে ফিলিস্তিনের গাজা উপত্যাকা একটি ‘মানবিক নরকে’ পরিণত হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন জাতিসংঘের মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেস।

তিনি বলেছেন, গাজায় ছয় মাসেরও বেশি সময় ধরে ইসরায়েলের আক্রমণ একটি ‘মানবিক নরক দৃশ্য’ তৈরি করেছে এবং আঞ্চলিক উত্তেজনা বাড়িয়ে দিয়েছে।

জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের সদস্যদের উদ্দেশে দেওয়া ভাষণে গুতেরেস বলেন, ‘গাজায় শত্রুতা বন্ধ করা হলে তা উল্লেখযোগ্যভাবে পুরো অঞ্চলে উত্তেজনা কমিয়ে দেবে। আমি অবিলম্বে মানবিক যুদ্ধবিরতি এবং গাজায় আটক সকল জিম্মিদের অবিলম্বে মুক্তির জন্য আমার আহ্বান পুনর্ব্যক্ত করছি।

শুক্রবার জাতিসংঘে ফিলিস্তিনের পূর্ণ সদস্যপদ সংক্রান্ত একটি প্রস্তাবের ভোটাভুটির কথা ছিল। শেষ মুহূর্তে ভোটাভুটির সময় এগিয়ে বৃহস্পতিবার করা হয়। ভোটের আগে সকালে জাতিসংঘ মহাসচিব নিরাপত্তা পরিষদে এই ভাষণ দিলেন।

জাতিসংঘের ১৫ সদস্যের নিরাপত্তা পরিষদে নিউ ইয়র্কের স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার বিকাল ৫টা থেকে (বাংলাদেশ সময় বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে ৩টা) এই ভোট অনুষ্ঠিত হবে। প্রস্তাবটি পাস হলে তা ফিলিস্তিনকে কার্যকরভাবে একটি রাষ্ট্রের স্বীকৃতি দেবে।

খসড়া প্রস্তাবে ১৯৩ সদ্যসদের সাধারণ পরিষদের কাছে ফিলিস্তিন রাষ্ট্রকে সদস্য পদ দেওয়ার সুপারিশ করা হয়েছে। সাধারণ পরিষদে ওঠার আগে নিরাপত্তা পরিষদে ভোটাভুটি হবে। এতে নিরাপত্তা পরিষদের কমপক্ষে নয়টি ভোট এবং যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ফ্রান্স, রাশিয়া বা চীনকে ভেটো দেওয়া থেকে বিরত থাকতে হবে। খসড়া প্রস্তাবটি উপস্থাপন করেছে পরিষদের সদস্য দেশ আলজেরিয়া।

এদিকে রাফাহ সীমান্তে ইসরায়েলের স্থল অভিযান ও মানবিক সাহয্য সম্প্রাসারণ নিয়ে ইসরায়েলের সঙ্গে ভার্চুয়াল বৈঠকে বসতে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। একজন মার্কিন কর্মকর্তাকে উদ্ধৃত রয়টার্স জানিয়েছে, মার্কিন ও ইসরায়েলি কর্মকর্তারা আজকের পর যেকোনো সময় দক্ষিণ গাজার রাফাহ শহরের ইসরায়েলের পরিকল্পনা সম্পর্কে একটি ভার্চুয়াল বৈঠক করবেন।

গত ১ এপ্রিলের বৈঠকের ফলোআপ হিসেবে এই বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। যে বৈঠকের পর ইসরায়েলি কর্মকর্তারা রাফাহ শহরে সম্ভাব্য আক্রমণের বিষয়ে মার্কিন ‘উদ্বেগ’ বিবেচনায় নিতে সম্মত হন।

রাফাহ অঞ্চলে এই ধরনের একটি সামরিক অভিযান মার্কিন ও ইসরায়েলের মধ্যে মত-পার্থক্য তৈরি করেছে। মার্কিন কর্মকর্তারা সতর্ক করছেন যে, গাজায় স্থল অভিযান একটি ‘ভুল’। কেননা রাফাহ শহরে আটকে থাকা বেসামরিক লোকদের আর কোথাও যাওয়ার নেই।

(ঢাকাটাইমস/১৮এপ্রিল/জেএ/এসআইএস)

সংবাদটি শেয়ার করুন

আন্তর্জাতিক বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :