শেখের বেটিকে ভালোবাসার অনন্য গল্প

তারিকুল ইসলাম, ময়মনসিংহ
| আপডেট : ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৫:২৩ | প্রকাশিত : ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৩:৪১
ময়মনসিংহের মুক্তাগাছায় শেখ হাসিনার জন্যে পাঁচ কৃষকের নির্মাণ করা ঘর

বিশ্ব ভালোবাসা দিবসে অন্য রকম একটি ভালোবাসার গল্প শোনা যাক। এই ভালোবাসা শেখের বেটি শেখ হাসিনার প্রতি। তাকে কোনো দিন সামনাসামনি না দেখা পাঁচ জন মানুষের এই ভালোবাসার গল্প এখন ময়মনসিংহের মুক্তাগাছাবাসীর মুখে মুখে।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের গুণমুগ্ধ পরিবারটি। প্রিয় শেখ সাহেব আর নেই, উত্তরাধিকার সূত্রে ভালোবাসাটি পেয়েছেন শেখের বেটি। তার জন্য কিছু একটা করতে হয়। এই ভেবে অল্প অল্প করে টাকা জমিয়ে পাঁচ জন মিলে একটি জায়গা কিনে তাতে নির্মাণ করলেন ঘর।

এই পাঁচ জন হলেন, ময়মনসিংহের মুক্তাগাছা উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চল মহেশপুর গ্রামের দরিদ্র কৃষক সাহান আলী, বিল্লাল হোসেন, কেরন আলী, হামিদুল ইসলাম ও ইউসুফ আলী। তাদের স্বপ্ন, শেখ হাসিনা একদিন তাদের গ্রামে আসবেন। আর বিশ্রাম নেবেন তাদের করা ছোট্ট সেই কুটিরে।

ময়মনসিংহ শহর থেকে ১৬ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে ফুলবাড়িয়া ও মধুপুর উপজেলার সীমান্তবর্তী মুক্তাগাছা উপজেলার দাওগাঁও ইউনিয়নের প্রত্যন্ত অঞ্চল মহেষপুর গ্রামের বাসিন্দা এরা। পেশায় কৃষক। একেবারে প্রান্তিক জনগোষ্ঠীই বলা যায়। হাড় ভাঙা খাটুনির পর বলতে গেলে থাকে না কিছুই।

এর মধ্যেই সংসার চালানোর টাকা থেকে ধীরে ধীরে জমিয়ে চলতে থাকে সঞ্চয়। এ পর্যায়ে চার শতাংশ জমি কেনার তিন লাখ ৮০ হাজার টাকা জমেও যায় কয়েক বছরে। জমিটি কিনতে বায়না করা হয় স্থানীয় সংসদ সদস্য ও সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ বাবুর নামে। এরপর শুরু হয় ঘর নির্মাণ। টিনের তৈরি তিন কক্ষের এই ঘরটির নির্মাণ কাজ এরই মধ্যে শেষ হয়েছে। 

শেখ হাসিনার গুণমুগ্ধ সাহান আলী ঢাকা টাইমসকে বলেন, ‘ছোট বেলা থেকেই আমি আওয়ামী লীগকে ভালবাসি। ভালবাসি আমার নেত্রী শেখ হাসিনাকে। এ জন্য আমরা এই পাঁচজন ঠিক করি যদি কোনদিন আমার নেত্রী আমাদের এই গ্রামে আসেন তখন যেন তিনি তার নিজের ঘরেই বসতে পারেন। তখন থেকেই আমরা আমাদের উপার্জনের টাকা থেকে কিছু অংশ সঞ্চয় করে রাখি। এ টাকা দিয়েই এ জমি কিনে বাড়ি নির্মাণ করছি।’

দাওগাঁও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতা জামাল উদ্দিন বাদশা ঢাকা টাইমসকে বলেন, আমাদের এলাকা বরাবরই আওয়ামী লীগের ঘাঁটি হিসেবে পরিচিত। এক সময় অতিদরিদ্র এলাকা ছিল। এখানকার অতি সাধারণ লোকজন আওয়ামী লীগের পাশাপাশি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ও বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনাকেও ভালবাসেন। এখানকার কিছু অতিসাধারণ লোক তাদের প্রতি ভালবাসার নিদর্শন সরুপ নিজেদের টাকায় জমি কিনে ঘর বানিয়েছেন। এ সকল লোকজনের জন্য আওয়ামী লীগ টিকে থাকে। তাদের প্রতি আমরা কৃতজ্ঞ।’

উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক শাতিল মাহমুদ তারেক ঢাকা টাইমসকে বলেন, ‘মহেষপুরের এই পাঁচ যুবক আওয়ামী লীগের নিবেদিত কর্মী। তারা তাদের কষ্টে উপার্জিত সঞ্চয়ের টাকা দিয়ে প্রধানমন্ত্রী ও সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রীর নামে জমি কিনে বাড়ি বানাচ্ছেন। তাদের এ ধরনের মানসিকতা নিসন্দেহে প্রশংসনীয়। এর আগে কেউ এ ধরনের উদ্যোগ নেয়নি।’

ঢাকাটাইমস/১৪ফেব্রুয়ারি/প্রতিবেদক/ডব্লিউবি

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :