‘পুরস্কার নয় পণ্য বাজারজাতকরণের সুবিধা চাই’

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ২২ আগস্ট ২০১৯, ২২:৪৪ | প্রকাশিত : ২২ আগস্ট ২০১৯, ২২:১০
কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাকের হাত থেকে পুরস্কার নিচ্ছেন নুরুন্নাহার।

কৃষিক্ষেত্রে অবদান রাখায় নানা সময়ে পুরস্কার পেলেও উৎপাদিত পন্যের ন্যায্য মূল্য না পাওয়ায় হতাশার কথা জানালেন একজন নারী উদ্যোক্তা। তিনি বলেছেন, এত পুরস্কার দিয়ে কী করবেন, যদি উৎপাদিত পণ্যের ন্যায্যমূল্য না পান। পুরস্কার নয় সুষ্ঠু বাজারজতকরণ ব্যবস্থার দাবি জানান তিনি।

আজ বৃহস্পতিবার এক পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাকের কাছে এই দাবি জানান নারী উদ্যোক্তা নুরুন্নাহার। রাজধানীর খামারবাড়িতে কৃষি তথ্য সার্ভিস মিলনায়তনে বঙ্গবন্ধু জাতীয় কৃষি পুরস্কার স্বর্ণপদক প্রাপ্ত ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে সংবর্ধনা দেয়া হয়।

নুরুন্নাহার বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু জাতীয় কৃষি স্বর্ণপদক পুরস্কারসহ বিভিন্ন সময় অনেক পুরস্কার পেয়েছি। দুটি আলমারি ভরে গেছে পুরস্কারে। কিন্তু কী লাভ হচ্ছে। পণ্যের ন্যায্য দাম তো পাচ্ছি না।’

এবার খুব ভালো মানের আখ উৎপাদন হয়েছে জানিয়ে নুরুন্নাহার বলেন, ‘কিন্তু বেচতে পারছি না। আমার স্বামী বলছে আখ শুকিয়ে লাকড়ি বানাতে। আমার স্বামীকে বুঝিয়েছি এগুলো বীজ করব, আগামীতে ২০ বিঘা জমিতে আখ চাষ করব। দুই হাজার মন ধান পেয়েছি। ২০০ বস্তা পড়ে আছে। আমরা উৎপাদন করছি, কিন্তু এর দাম না পেলে আমরা কোথায় যাব।’

কৃষিমন্ত্রীকে উদ্দেশ করে নুরুন্নাহার বলেন, ‘আর পুরস্কার না এবার কৃষিপণ্য বাজারজাতকরণ ব্যবস্থা করে দিন। আমার সঙ্গে কাজ করে ১২০০ নারী উদ্যোক্তা। তারা ও সারা দেশের কৃষরা যাতে পণ্যের ন্যায্য মূল্য পান তার ব্যবস্থা করুন।’

পরে কৃষিমন্ত্রী তার বক্তব্যে জানান, কৃষক যাতে সামনের মৌসুমে ধানের ন্যায্যমূল্য পান তা নিশ্চিত করা হবে। ধান কেনার ক্ষেত্রে শুধু খাদ্য মন্ত্রণালয়ের ওপর আর নির্ভরশীল হবেন না। কৃষি বিপণন ব্যবস্থাকে আরও কার্যকর করা হবে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, কৃষি বিপণন সংস্থাকে আরও সংস্কার করা হবে। আন্তর্জাতিক বাজার ও মাঠ পর্যায়ে কৃষকের সঙ্গেও তাদের কথা বলতে হবে।

ঈশ্বরদী উপজেলার ছলিমপুর ইউনিয়নের বক্তারপুর গ্রামের নুরুন্নাহার নিবিড় সবজি, ফলমূল, পোল্ট্রি ও গাভির খামার করে এলাকার নারীদের কৃষিকাজে উদ্বুদ্ধ করেছেন। ২০১০ সালে সিটি গ্রুপ জাতীয় পুরস্কার পান তিনি।

কৃষিতথ্য সার্ভিসের পরিচালক ড. মো নুরুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন কৃষিসচিব মো. নাসিরুজ্জামান, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের সাবেক মহাপরিচালক হামিদুর রহমান, কৃষিতথ্য সার্ভিসের উপপরিচালক রেজাউল করিম প্রমুখ।

(ঢাকাটাইমসইস/২২আগস্ট/জেআর/মোআ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

অর্থনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :