পয়েন্ট হারিয়ে চিন্তিত বার্সেলোনার কোচ

ক্রীড়া ডেস্ক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১৬:০৬

বর্তমান ও ভবিষ্যত তারকা লিওনেল মেসি ও আনসু ফাতি, কেউই বার্সেলোনার পরাজয় ঠেকাতে পারেনি। শনিবার গ্রানাডার কাছে ২-০ গোলে পরাজিত হয়ে এবারের লা লিগা আসরে নিজেদের ব্যর্থতার ধারা অব্যাহত রেখেছে বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা।

নিজেকে এখনো পুরোপুরি ফিট প্রমাণে ব্যর্থ হওয়া মেসি এদিন কাতালান জায়ান্টদের হয়ে মূল একাদশে খেলতে পারেননি। অন্যদিকে সাম্প্রতিক সময়ে বার্সেলোনার হয়ে নিজেকে দারুণভাবে প্রমাণ করা ১৬ বছর বয়সী ফাতিও কাল বদলী হিসেবেই মাঠে নেমেছিলেন। উভয়ই দ্বিতীয়ার্ধে মাঠে নেমেছেন। কিন্তু ততক্ষণে র‌্যামন আজিজের দুই মিনিটের গোলে বার্সেলোনা ১-০ ব্যবধানে পিছিয়ে ছিল। ৬৬ মিনিটে আরটুরো ভিডালের হ্যান্ডবলে প্রাপ্ত পেনাল্টি থেকে আলভারো ভাডিলো ব্যবধান দ্বিগুণ করেন। এই নিয়ে লিগের প্রথম পাঁচ ম্যাচে বার্সেলোনা মাত্র দু’টিতে জয়ের মুখ দেখেছে। লিগে এটি তাদের দ্বিতীয় পরাজয়। মাত্র সাত পয়েন্ট নিয়ে সপ্তম স্থানে থাকা বার্সেলোনার জন্য ১৯৯৪ সালের পর মৌসুমে সবচেয়ে বাজে শুরু এটাই।

কোচ আর্নেস্তো ভালভার্দে বলেছেন, ‘অবশ্যই আমি চিন্তিত। কারণ আমরা ভাল করতে পারছি না। দুই থেকে তিনটি ম্যাচে এমন হলে বুঝতে হবে আমরা মোটেই ভাল ফুটবল খেলছি না।’

এদিকে পাঁচ ম্যাচে তিনটি জয় নিয়ে ১০ পয়েন্টসহ লিগ টেবিলের শীর্ষে উঠে এসেছে গ্রানাডা। সেল্টা ভিগোর সাথে এ্যাথলেটিকো মাদ্রিদ ঘরের মাঠে গোলশুন্য ড্র করার সুবাদে গ্রানাডা উপরে উঠে এসেছে।

এই ম্যাচে বার্সেলোনার জন্য একটি মাত্র স্বস্তির জায়গা ছিল। লা লিগা মৌসুমে এই প্রথম বার্সার হয়ে কাল মাঠে নেমেছিলেন মেসি। এর অর্থ হচ্ছে আগস্টের শুরুতে কাফ ইনজুরিতে পড়া আর্জেন্টাইন এই তারকা অবশেষে পরিপূর্ণ সুস্থতা লাভ করেছেন। যদিও পুরো ফিট না হওয়া পর্যন্ত বদলী হিসেবেই তাকে দলে থাকতে হবে। তারপরেও অধিনায়কের ফেরাটা দলের জন্য বড় একটি শক্তিও যোগান দিয়েছে। ছোটখাট সমস্যাগুলো এখন তারা কাটিয়ে উঠতে পারবে বলেই সংশ্লিষ্টদের আশা।

প্রতিপক্ষ রক্ষণভাগে জুনিয়র ফিরপোর ভুলে দুই মিনিটে গোল উপহার পায় স্বাগতিক গ্রানাডা। ফিরপোর লম্বা পাসে রবার্তো সোলডাডো বল কেড়ে নিয়ে এন্টোনিও পুয়েরটাসের কাছে বাড়িয়ে দেন। পুয়েরটাসের শটে আজিজ হেড করে বল জালে জড়ালে দুই মিনিটেই এগিয়ে যায় গ্রানাডা। অন্যদিকে আক্রমণভাগে আরেকবার নিষ্প্রভ ছিলেন আঁতোয়া গ্রিজম্যান। এর মাধ্যমে আরো একবার প্রমাণিত হলো বর্তমান আক্রমণভাগে সেরা তিন খেলোয়াড় নিয়েও ভালভার্দে কিছুই করতে পারছেন না। তাকে এই জায়গায় আরো বেশি সতর্ক হতে হবে।

এ সম্পর্কে ভালভার্দে বলেন, ‘দিনের শেষে সবকিছুর দায়ভার বর্তায় কোচের উপরই। আমিও এর ব্যতিক্রম নই। আমি সবসময়ই বিশ্বাস করি একটি দল জেতার পাশাপাশি হারতেও পারে। কিন্তু হারের মধ্যেই পার্থক্য রয়েছে। আজ আমরা মোটেই খেলতে পারিনি।’

দ্বিতীয়ার্ধে কার্লেস পেরেস ও ফিরপোর স্থানে মেসি ও ফাতিকে মাঠে নামিয়েছিলেন ভালভার্দে। ৩০ গজ দুর থেকে মেসির ফ্রি-কিক সরাসরি দেয়ালে গিয়ে আঘাত লাগে। তবে ৬৬ মিনিটে বার্সেলোনার সব আশা শেষ হয়ে যায়। ভিদালের হ্যান্ডবলের প্রাপ্ত পেনাল্টি থেকে ভাডিলো কোনো ভুল করেননি।

(ঢাকাটাইমস/২২ সেপ্টেম্বর/এসইউএল)

সংবাদটি শেয়ার করুন

খেলাধুলা বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :