ক্যারিয়ার গড়ুন মেরিন টেকনোলোজিতে

শিক্ষা প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ২৩ ডিসেম্বর ২০১৯, ১৪:২৬ | প্রকাশিত : ২৩ ডিসেম্বর ২০১৯, ১৪:২১

যারা মেরিন টেকনোলোজিতে ক্যারিয়ার গড়তে চান তাদের জন্য অনন্য প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব মেরিন টেকনোলজি (বিআইএমটি)। নারায়ণগঞ্জ শহরের শীতলক্ষ্য নদীর পূর্বতীরে বন্দর থানা সংলগ্ন এলাকায় গড়ে উঠেছে এটি। এখানে পড়াশোনা করেন ২ হাজার ২৪৬ শিক্ষার্থী। বিআইএমটি ১৯৫৮ সালে যাত্রা শুরু করে। ১০ একর জমির ওপর এই ইনস্টিটিউট অবস্থিত, যার তিন দিকেই শীতলক্ষ্যা নদী এবং ত্রিবেনী খাল অবস্থিত।

বাংলাদেশ সরকারের জনশক্তি কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরোর অধীনে পরিচালিত বিআইএমটি একটি ব্যতিক্রমী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। এখান থেকে খুব কম খরচে পড়াশোনা শেষ করে ভালো ক্যারিয়ার গঠন করা যায়। এই প্রতিষ্ঠানটি বাংলাদেশের উদীয়মান জাহাজ নির্মাণশিল্পে এবং বৈদেশিক রেমিট্যান্স বৃদ্ধিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখে চলেছে। এখানে এসএসসি পাস করার পর ভর্তি কার্যক্রম শুরু হয়।

কোর্স সমূহ: বিআইএমটিতে চার বছর মেয়াদি ডিপ্লোমা ইন মেরিন ইঞ্জিনিয়ারিং এবং ডিপ্লোমা ইন শিপবিল্ডিং ইঞ্জিনিয়ারিং বিষয়ে শিক্ষাদান করা হয়। এছাড়াও একই বিষয়ে দুই বছর মেয়াদি ট্রেড কোর্স, শর্ট কোর্স এবং বহিরাগন কোর্স করা হয়।

ডিপ্লোমা কোর্স: ডিপ্লোমা ইন মেরিন টেকনোলজি, ডিপ্লোমা ইন শিপ বিল্ডিং টেকনোলজি

ট্রেড কোর্স:  আর্টিফিসার, ওয়েল্ডিং, শিপ ফেব্রিকেশন. ড্রাফটসম্যান শিপ

শর্ট কোর্স: ওয়েল্ডিং ও ফেব্রিকেশন, কম্পিউটার অপারেশন, অটোক্যাড, ইঞ্জিন ফিটার,

প্রাক বর্হিগমন প্রশিক্ষণ:

ভর্তি যোগ্যতা: ডিপ্লোমা কোর্সে ভর্তির জন্য মাধ্যমিক বা সমমান পাস হতে হয় এবং ট্রেড কোর্সে ভর্তির জন্য উচ্চ মাধ্যমিক বা সমমান পাস হতে হয়।

যোগাযোগ: বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব মেরিন টেকনোলজি (বিআইএমটি) বন্দর, নারায়ণগঞ্জ, ঢাকা। ফোন : ৭৬৬১১১৯, ৭৬৪৭৭২৬
ছাত্রাবাস: বিআইএমটি-তে দূর-দূরান্ত থেকে আগত ছাত্রদের জন্য ছাত্রাবাসের ব্যবস্থা আছে। তিন তলা ও চারতলাবিশিষ্ট ছাত্রাবাস দু’টিতে তিন শতাধিকের অধিক ছাত্রের আসন রয়েছে।

গ্রন্থাগার: মেরিন ইঞ্জিনিয়ারিং শিক্ষার ওপর দেশের বৃহত্তম সংগ্রহসমৃদ্ধ একটি গ্রন্থাগার আছে। গ্রন্থাগারে মেরিন ইঞ্জিনিয়ারিং শিক্ষার ওপর বিশ্বের বিভিন্ন দেশের লেখকের বই রয়েছে।

ওয়ার্কশপ ও ল্যাবরেটরি: এই বিদ্যাপীঠে রসায়ন, পদার্থবিজ্ঞান এবং কম্পিউটার ল্যাব যে কেবল প্রয়োজনের তুলনায় যথেষ্ট আছে তাই নয়, দেশের সর্বোত্তম ওয়ার্কশপগুলোর অন্যতম।  এখানের ইঞ্জিন ওয়ার্কশপটিতে বিভিন্ন ডিজেল ইঞ্জিনের সর্ববৃহৎ সমাবেশ ঘটেছে। ওয়েল্ডিং এবং ফেব্রিকেটিংয়ের কাজের জন্য অত্যাধুনিক বিভিন্ন প্রকারের যন্ত্রপাতি আছে। একটি শিপওয়ে, একটি বৃহৎ ওয়েল্ডিংশপ, একটি বৃহৎ মেশিনশপ, কার্পেন্ট্রিশপ, ফিটিংশপ, লপটিংশপ এবং অত্যাধুনিক ড্রইং ল্যাব আছে।

কর্ম পরিধি: এখানে পড়াশোনা করে  স্বল্প খরচে বিদেশে চাকরির সুযোগ মেলে। পাশাপাশি উচ্চশিক্ষার সুযোগ রয়েছে।  বিশেষ করে সিঙ্গাপুর, জার্মানি, জাপান, ইংল্যান্ড, কাতার, অস্ট্রেলিয়া, দুবাইয়ে চাকরির অবারিত সুযোগ। এছাড়াও ফরেন শিপ. দেশীয় জাহাজ, শিপ ইয়ার্ড ও ডক ইয়ার্ড, পাওয়ার প্লান্ট, ডিজাইন সেকশন, সিমেন্ট ফ্যাক্টরিতে কাজের প্রচুর সুযোগ রয়েছে।

অন্যান্য : এই প্রতিষ্ঠানে সুচিকিৎসার ব্যবস্থা রয়েছে। আছে বৃত্তির ব্যবস্থা। নিরিবিলি ও খোলামেলা পরিবেশে পড়াশোনার জন্য পাবেন উপযুক্ত পরিবেশ।

বাংলাদেশি মেরিন ইনিঞ্জনিয়ারের বিদেশে ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব মেরিন টেকনোলজির থেকে পাস করা শিক্ষার্থীদের বেশিরভাগই সিঙ্গাপুর, জার্মানি, জাপান, ইংল্যান্ড, কাতার, অস্ট্রেলিয়া, দুবাইয়ে জব পেয়ে থাকেন। এসব প্রকৌশলী যদি ভালোভাবে প্রশিক্ষণ নিয়ে বিদেশে যায় তাহলে তারা অনেক ভালো করতে পারবে।

প্রতিষ্ঠার পর থেকে ডিপ্লোমা এবং ট্রেডকোর্স পাস ছাত্র-ছাত্রীরা বাংলাদেশের সরকারি চাকরিসহ শিপিং লাইন্স, বৈদেশিক সমুদ্রগামী জাহাজ, পাওয়ার প্লান্ট, শিপইয়ার্ড, ডকইয়ার্ড, মেরিন ডিজাইন হাউসসহ দেশে ও বিদেশে অত্যন্ত সুনামের সঙ্গে কার্য সম্পন্ন করছে।

নৌ-প্রযুক্তির ওপর দেশে ও বিদেশে প্রচুর চাহিদা থাকা সত্ত্বেও উন্নত শিক্ষাব্যবস্থা না থাকায় দিন দিন বেকারত্ব বেড়েই চলেছে। এখনকার ছাত্রদের সমস্যাবলী উপলব্ধি করে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গত ২০ মার্চ ২০১১ ইং তারিখে নারায়ণগঞ্জের মেরিন টেকনোলজিতে বিএসসি ইঞ্জিনিয়ারিং কোর্স চালু করার নির্দেশ প্রদান করেন।

আপনার যদি মেরিনে ক্যারিয়ার গঠনের ইচ্ছা থাকে তাহলে ভর্তি হোন নারায়ণগঞ্জের বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব মেরিন টেকনোলজিতে। নিজের উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ গড়ুন।

ঢাকাটাইমস/২৩ডিসেম্বর/এসএস

সংবাদটি শেয়ার করুন

শিক্ষা বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :