২২ জানুয়ারি উদ্বোধন

ই-পাসপোর্ট মিলবে আগারগাঁও, উত্তরা ও যাত্রাবাড়ীতে

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ১৯ জানুয়ারি ২০২০, ১৬:২৫

বহুল প্রতীক্ষিত ইলেকট্রনিক পাসপোর্ট (ই-পাসপোর্ট) চালু হচ্ছে আগামী ২২ জানুয়ারি। রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে এর উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

প্রাথমিকভাবে আগারগাঁও, যাত্রাবাড়ী এবং উত্তরা পাসপোর্ট অফিস থেকে ই-পাসপোর্ট বিতরণ করা হবে। পরবর্তীতে পর্যায়ক্রমে সর্বত্র ই-পাসপোর্ট বিতরণ করা হবে। দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে বাংলাদেশেই প্রথম ই-পাসপোর্ট চালু হচ্ছে।

রবিবার সচিবালয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে ‘ই-পাসপোর্ট ভবন ও ই-পাসপোর্ট কার্যক্রম উদ্বোধন সংক্রান্ত’ এক প্রেস ব্রিফিংয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল এসব তথ্য জানান।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর উদ্বোধনের পরই প্রাথমিকভাবে রাজধানীর আগারগাঁও, উত্তরা ও যাত্রাবাড়ী থেকে ই-পাসপোর্ট সরবরাহ করা হবে।’

 

ইন্টারন্যাশনাল সিভিল এভিয়েশন অর্গানাইজেনের মতে, বিশ্বের ১০০টিরও বেশি দেশ বর্তমানে ই-পাসপোর্ট ব্যবহার করছে। পাসপোর্ট বুকলেটে একটি ইলেকট্রনিক চিপ ব্যবহারের মাধ্যমে চিরাচরিত নন-ইলেকট্রনিক পাসপোর্টের চেয়ে ইলেকট্রনিক পাসপোর্ট অধিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করে।

এতে পাসপোর্টের দুটি পেজে দৃশ্যমান বায়োগ্রাফিক্যাল তথ্যভাণ্ডার ও একটি ডিজিটাল নিরাপত্তা ফিচার থাকে। ডিজিটাল ফিচার হচ্ছে কোনো দেশের সুনির্দিষ্ট ডিজিটাল স্বাক্ষর। এই ডিজিটাল স্বাক্ষরগুলো প্রতিটি দেশে একক এবং স্ব স্ব সার্টিফিকেটের মাধ্যমে এটি যাচাই করা যাবে।

ই- পাসপোর্ট মেয়াদ, বিতরণের সময় ও ফি-র পরিমাণ:

পাঁচবছর মেয়াদী ৪৮ পৃষ্ঠার পাসপোর্টের সাধারণটি পাওয়া যাবে ১৫ দিনে। তবে জরুরি ও অতি জরুরি পাসপোর্ট মিলবে সাত দিন ও দুই দিনে। পাসপোর্টে খরচ পড়বে সাড়ে তিন হাজার (সাধারণ), সাড়ে পাঁচ হাজার (জরুরি) ও সাড়ে সাত হাজার (অতি জরুরি) টাকা।

দশবছর মেয়াদী ৪৮ পৃষ্ঠার সাধারণ পাসপোর্ট পাওয়া যাবে ১৫ দিনে। জরুরি ও অতি জরুরি পাসপোর্ট মিলবে সাত দিন ও দুই দিনে। খরচ পড়বে পাঁচ হাজার (সাধারণ), সাত হাজার (জরুরি) ও নয় হাজার (অতি জরুরি) টাকা।

এছাড়া পাঁচ বছর মেয়াদী ৬৪ পৃষ্ঠার সাধারণ পাসপোর্টও পাওয়া যাবে ১৫ দিনে। খরচ পড়বে সাড়ে পাঁচ হাজার (সাধারণ), সাড়ে সাত হাজার (জরুরি) ও সাড়ে দশ হাজার (অতি জরুরি) টাকা।

দশবছর মেয়াদী ৬৪ পৃষ্ঠার সাধারণ পাসপোর্টের পাওয়া যাবে ১৫ দিনে। খরচ পড়বে সাত হাজার (সাধারণ), নয় হাজার (জরুরি) ও ১২ হাজার (অতি জরুরি) টাকা। সকল পাসপোর্টের উপর ১৫ শতাংশ ভ্যাট দিতে হবে।

জানা গেছে, দুই মিলিয়ন পাসপোর্ট তৈরি হবে জামার্নিতে। ফলে যারা আগে আবেদন করবেন, তারা জামার্নির তৈরি পাসপোর্ট পাবেন। মেশিন রিডেবল পাসপোর্টের পাশাপাশি ইলেক্ট্রনিক পাসপোর্টের জন্য ২০১৮ সালের ১৯ জুলাই ডিআইপি এবং ভেরিডসের মধ্যে একটি চুক্তি স্বাক্ষর হয়।

 

ঢাকাটাইমস/১৯ জানুয়ারি/এসএস/ইএস

সংবাদটি শেয়ার করুন

জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :