আইনজীবীদের প্রণোদনা দিতে প্রধানমন্ত্রীর কাছে আবেদন

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ০৫ এপ্রিল ২০২০, ২০:৩০

দেশে আইন পেশায় নিয়োজিত জুনিয়র আইনজীবীদের আর্থিক ক্ষতি কাটাতে প্রণোদনা দিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে আবেদন করা হয়েছে।

হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশের চেয়ারম্যান আইনজীবী মনজিল মোরসেদ আবেদনের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

রবিবার তিনি ঢাকা টাইমসকে বলেন, করোনার কারণে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যবহার করে গত ৩ এপ্রিল প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়ার কাছে একটি আবেদন পাঠানো হয়েছে।

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের ঘোষিত ছুটির ধারাবাহিকতায় গত ২৯ মার্চ থেকে ২ এপ্রিল পর্যন্ত সুপ্রিম কোর্টের উভয় বিভাগ ও সকল অধস্তন আদালত সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়। এরপর এই ছুটি পুনরায় ৯ এপ্রিল পর্যন্ত বর্ধিত করা হয়েছে। ফলে আইনজীবীরা তাদের দৈনিক উপার্জন থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। এমন বাস্তবতায় এ আবেদন পাঠানো হলো।

আবেদনে বলা হয়েছে, আইনপেশায় ৫৫ হাজারের বেশি ব্যক্তি নিয়োজিত আছেন। তার মধ্যে একটি অংশ জুনিয়র হিসেবে কাজ করছেন। সাধারণত সিনিয়রদের প্রতিদিনের দেয়া অর্থই তাদের একমাত্র অবলম্বন। আদালত বন্ধ থাকায় তারা সে সুবিধা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। এছাড়া জুনিয়রশিপ শেষ করে যারা নিজস্বভাবে প্র্যাকটিস শুরু করেছেন, তাদেরও প্রথম কয়েক বছর সামান্য আয় দিয়ে চলতে হয়। দীর্ঘদিন কোর্ট বন্ধ থাকায় তারাও আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন।

তিনি আরও বলেন, করোনার কারণে দেশের সকল মানুষকে নিজ নিজ বাসায় অবস্থান করতে সরকারের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে এবং এ আদেশ কার্যকর করতে অফিস-আদালত ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। এ ছুটিতে দিনমজুর, রিকশাওয়ালা ও দৈনিক আয়ের লোকদের সংকটের কথা বিবেচনা করে সরকারি অর্থ বা খাদ্য সরবরাহ করা হয়েছে। এমনকি ব্যবসা-বাণিজ্যের মন্দাভাব বিবেচনা করে ব্যবসায়ীদের আর্থিক প্রণোদনা ঘোষণা করা হয়েছে। এমন বাস্তবতায় আইনজীবীদের জন্য সরকারের পক্ষ থেকে আর্থিক সহযোগিতার জন্য ৩০০ কোটি টাকা প্রণোদনা তহবিল গঠন করার আহ্বান জানাচ্ছি।

‘এ অর্থ থেকে প্রত্যেক জুনিয়র বা ক্ষতিগ্রস্ত আইনজীবীকে এক লাখ টাকা বিনাসুদে প্রদান এবং ২০২১ সালে চার কিস্তিতে পরিশোধের ব্যবস্থা করার অনুরোধ করেছি।‘

ঢাকা টাইমস/৫ এপ্রিল/এআইএম/ইএস

সংবাদটি শেয়ার করুন

আদালত বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত