বিএনপি খেটে খাওয়া মানুষের কথা ভাবে না: তথ্যমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ৩১ মে ২০২০, ১৯:০৭
ফাইল ছবি

করোনা পরিস্থিতির মধ্যে দেশে অঘোষিত লকডাউন খুলে দেয়া নিয়ে বিএনপি নেতাদের বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাছান মাহমুদ বলেছেন, ‘বিএনপি খেটে খাওয়া মানুষের কথা ভাবে না, সেজন্যই তারা সবকিছু বন্ধ করে দেয়ার মতো কথা বলতে পারে।’

রবিবার সচিবালয়ে নিজ দপ্তরে সংক্ষিপ্ত ব্রিফিংয়ে তথ্যমন্ত্রী বিএনপিকে উদ্দেশ্য করে এসব কথা বলেন।

হাছান মাহমুদ বলেন, ‘মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর প্রতিদিন নানা কথা বলছেন। বিএনপি’র বক্তব্যে মনে হয়, তাদের চিন্তাধারা একপেশে। দেশের কোটি কোটি খেটে খাওয়া মানুষের কথা তারা মোটেও চিন্তা করে না। প্রতিদিনের আয়ের ওপরই যে কোটি কোটি মানুষের জীবন-জীবিকা চলে, তাদের মুখে আহার ওঠে, সেই কথাটা মোটেই তারা চিন্তা করে না।’

সেজন্যই তারা সবকিছু একেবারে বন্ধ করে দেয়ার মত কথা বলতে পারে যোগ করেন হাছান মাহমুদ।

দীর্ঘ ৬৬ দিন বন্ধ শেষে আজ থেকে অফিস-আদালত ও দোকানপাট খুলতে শুরু করেছে। সীমিত পরসরে গণপরিবহন, ট্রেন ও লঞ্চ চলাচল শুরু হয়েছে।

এদিকে লকডাউন শেষে সব কিছু খোলার দিনে দেশে করোনাভাইরাসে একদিনে সবচেয়ে বেশি মৃত্যুর খবর দিল স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। আজ সকাল ৮টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় দেশে আরও ৪০ জনের মৃত্যু হয়েছে এ ভাইরাসে। তাতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৬৫০ জনে।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘বিএনপি কারফিউ দেয়ার কথাও মাঝেমধ্যে বলে। আমাদের দেশ একটি খেটে খাওয়া মানুষের দেশ, এখানে কোটি কোটি মানুষ তাদের প্রতিদিনের উপার্জনের ওপর নির্ভর করে, তাদের কথা মাথায় রেখেই সরকার সঠিক পদক্ষেপ নিয়ে এগুচ্ছে।’

আওয়ামী লীগের এই যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘বাংলাদেশেও মানুষের জীবন-জীবিকা রক্ষার জন্যই মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ২৬ মার্চ থেকে ঘোষিত সাধারণ ছুটি আজকের পর আর প্রলম্বিত করেননি। কারণ আমাদের দেশ একটি খেটে খাওয়া মানুষের দেশ। এখানে মাসের পর মাস সবকিছু বন্ধ করে রাখা সম্ভব নয়।’

তবে সবকিছু খুলে দেয়ার বিষয়ে সাধারণ মানুষকে সতর্ক করেন মন্ত্রী। বলেন, ‘তবে এই অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড শুরু করা কিংবা ছুটি প্রলম্বিত না করার মানে এই নয় যে, আমরা করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব শুরু হওয়ার আগে যেভাবে চলতাম, সেভাবে চলবো। এখন অবশ্যই আমাদের স্বাস্থ্যবিধি মানতে হবে, সবাইকে মাস্ক পরতে হবে, জনসমাগম এড়িয়ে চলতে হবে, সব ধরনের শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে। আড্ডা থেকে শুরু করে সামাজিক মেলামেশা পরিহার করতে হবে।’

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘শুধুপ্রয়োজনেই আমরা ঘর থেকে বের হবো ও কাজ করবো, অপ্রয়োজনীয় কোনো কিছু করবো না, তাহলেই আমরা আমাদেরকে সুরক্ষা দিতে পারবো।’

(ঢাকাটাইমস/৩১মে/এনআই/জেবি)

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :