বর্ষার এ সময়ে চোখ জুড়ানো আড়িয়াল বিল

আরাফাত রায়হান সাকিব, মুন্সীগঞ্জ
| আপডেট : ০৬ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৪:০৯ | প্রকাশিত : ০৬ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৩:৫১

সুনীল আকাশে সাদা-কালো মেঘমালা, তার নিচে স্বচ্ছ জলরাশি। স্নিগ্ধ ধমকা হাওয়ায় মৃদু ঢেউয়ে জলে ভাসমান শাপলা-সালু-কচুরিপানা মিলে এক চোখ জুড়ানো মনোরম দৃশ্য। সেইসঙ্গে জলে নেচে বেড়াচ্ছে নানা প্রজাতির মাছ। আর দৃষ্টির চারিদিকে সবুজের ছড়াছড়ি। এসবের মাঝে আবার শঙ্খচিল, কানিবক, মাছরাঙ্গা, ডাহুক, পাতিহাঁসসহ হরেক রকমের পাখির আনাগোনা লেগেই আছে। বর্ষার এ সময়টায় এমনই প্রাণ আর প্রকৃতির মিলনমেলার নান্দনিক চিত্র দেখা গেছে মুন্সীগঞ্জের আড়িয়াল বিলজুড়ে। যা প্রাণ জুড়াবে যে কারোর।

এছাড়া স্থানীয় লাখো মানুষের জীবিকার প্রধান উৎস এই বিল। এতে হাজারো বৈচিত্রময় প্রাণীর বসবাস রয়েছে। বিলের দেশীয় প্রজাতির মাছ আর শীতকালের মিষ্টি কুমড়ার খ্যাতি রয়েছে দেশজুড়ে।

মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগর উপজেলা ও ঢাকার নবাবগঞ্জ এবং দোহার উপজেলার কিছু অংশ নিয়ে আড়িয়াল বিলের অবস্থান। ১ লাখ ৬৭ হাজার একর জমিজুড়ে বিস্তৃত এই বিলে রয়েছে ছোট-বড় মিলে প্রায় হাজারখানেক জলাধার, ডোবা ও পুকুর । এছাড়া সাগরদিঘি নৈমুদ্দিন, সানাইবান্ধা, বাগমারা, বৈরাগীরডাঙা, খালেক সাবডাঙা, মনসা, কালাচান দিঘি, বসুমালা, কলাগাছিয়া, নারকেলগাছিয়া, তালগাছিয়া, ঝরঝরিয়া, পরশুরাম, আঠারোপাখি, সাচরাতি, সেলামতিসহ রয়েছে অর্ধশতাধিক দীঘি। অপরূপ সুন্দর এসব দীঘি।

তথ্যমতে, বিলের দক্ষিণে দয়হাটা, শ্যামসিদ্ধি, প্রাণিমণ্ডল, গাদিঘাট, রাড়িখাল ও মাইজপাড়া গ্রাম। উত্তরে শ্রীধরপুর, বাড়ৈখালী, শেখরনগর, মদনখালী, সুতারপাড়া, আলমপুর ও তেঘরিয়া। পূর্বে হাঁসাড়া, ষোলঘর, কেয়টখালী, লস্করপুর ও মোহনগঞ্জ। আর পশ্চিমে কামারগাঁও, বালাসুর, জয়পাড়া, জগন্নাথ পট্টি, কাঁঠালবাড়ী ও মহুতপাড়া গ্রাম অবস্থিত।

জনশ্রুতি রয়েছে, আগে বিলটির নাম ছিল ‘চুড়াইন বিল’। পরবর্তীতে আড়িয়াল খাঁ নদীর নামানুসারে এ বিলের নাম ‘আড়িয়ল বিল’ করা হয়েছে।

জানা গেছে, বর্ষায় পানিতে ভরা থাকলেও শীতকালে এটি বিস্তীর্ণ শস্য ক্ষেতে পরিণত হয়। তখন নানা ধরনের সবজির চাষ হয় বিলের এ জায়গায়।

বিলটিতে যেতে হলে প্রথমে ঢাকার গুলিস্তান থেকে শিমুলিয়া ঘাটগামী বাসে শ্রীনগর উপজেলার ছনবাড়ি স্ট্যান্ডে পৌঁছাতে হবে। জনপ্রতি ভাড়া ৬০টাকা। ছনবাড়ি থেকে শ্রীনগর বাজার অথবা গাদিঘাট এলাকার ট্রলার ঘাট থেকে বিলে ঘুরে দেখার ট্রলার পাওয়া যায়। সারাদিনে ট্রলার ভাড়া সর্বনিম্ন ৪০০০ টাকা।

প্রসঙ্গত, গুলিস্থান থেকে নিয়মিত বিরতিতে শিমুলিয়া ঘাটগামী ইলিশ, স্বাধীন বসুমতি, প্রচেষ্টা, আপন বাস পাওয়া যায়।

(ঢাকাটাইমস/৬সেপ্টেম্বর/পিএল)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :