নড়াইল জেলা আ.লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সম্পাদক হলেন এ এম আব্দুল্লাহ

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২২ জুন ২০২১, ১৬:০৩

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের নড়াইল জেলা শাখার বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক হয়েছেন লেফটেন্যান্ট কমান্ডার এ এম আব্দুল্লাহ (অব)। সম্প্রতি আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সম্মতিতে দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের স্বাক্ষরিত চিঠিতে এই কমিটি অনুমোদন দেওয়া হয়।

এ এম আব্দুল্লাহ লোহাগড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছিলেন। তিনি মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সন্তান। ছাত্রজীবন থেকেই বঙ্গবন্ধুর আদর্শে আওয়ামী লীগের রাজনীতি এবং সমাজকল্যাণমূলক কাজে সক্রিয়।

এ এম আব্দুল্লাহ ১৯৭৪ সালের ১ ডিসেম্বর নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলায় জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর বাবা প্রয়াত বীর মুক্তিযোদ্ধা মুনশী মোয়াজ্জম হোসেন। তিনি লোহাগড়া সরকারি পাইলট স্কুলের প্রধান শিক্ষক ছিলেন। মা মাজেদা খাতুন পেয়েছেন রত্নগর্ভার সম্মান। শিক্ষা জীবনে এ এম আবদুল্লাহ ১৯৯০ সালে লহাগড়া সরকারি পাইলট হাইস্কুল থেকে মাধ্যমিক পাশ করেন। পরে ১৯৯২ সালে লোহাগড়া সরকারি আদর্শ মহাবিদ্যালয় থেকে ডিস্টিংসনসহ উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হন। ১৯৯৩ সালের ১ জুলাই তিনি বাংলাদেশ নৌবাহীনিতে যোগদান করেন এবং ১৯৯৬ সালের ১ জানুয়ারি কমিশন লাভ করেন।

পরে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) থেকে বিএসসি ইঞ্জিনিয়ারিং পাস করেন। ২০০৭ সালে নর্দান বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এমবিএ ডিগ্রি লাভ করেন। ২০১১ সালে তিনি স্বেচ্ছায় নৌবাহিনী থেকে অবসরে আসেন। পরে দেশের বিভিন্ন বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের উচ্চপদে গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করেন। বর্তমানে তিনি পেশা হিসেবে ব্যবসাকে বেছে নিয়েছেন। এছাড়া মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে সক্রিয় আছেন।

সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকে জ্ঞানের আলো ছড়িয়ে দিতে তিনি লোহাগড়ায় প্রতিষ্ঠা করেছেন মুনশী মোয়াজ্জম হোসেন ফাউন্ডেশন লাইব্রেরি। এছাড়া তিনি সমসাময়িক বিভিন্ন জাতীয় বিষয়, বর্তমান সরকারের উন্নয়নসহ বিবিধ বিষয়ে জাতীয় দৈনিক, সাপ্তাহিক ও সাময়িকীতে নিয়মিত নিবন্ধ লিখছেন। মোটিভেশনাল বিষয়ের লেখক হিসেবেও খ্যাতি রয়েছে তাঁর। গ্রন্থ লেখক হিসেবেও সুনাম কুড়িয়েছেন এ এম আব্দুল্লাহ। তাঁর লেখা বইগুলো হচ্ছে- বিয়ন্ড লিডারশিপ’ বাজেট উন্নয়নের অর্থনীতি, অন্য চোখে, মেঘের ওপাশে আকাশ।

ব্যক্তিগত জীবনে স্ত্রী এবং এক মেয়েকে নিয়ে তাঁর সংসার। স্ত্রী লেফটেন্যান্ট কর্নেল ডা. নাছিমা রহমান বাংলাদেশ সেনাবাহিনীতে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক হিসেবে কর্মরত। মেয়ে হুমায়রা আঞ্জুম মালিহা স্কুলে পড়ছে।

এছাড়া পরিবারের অন্যান্যদের মধ্যে বোন মরিয়ম বেগম (সাথী) লোহাগড়া সরকারি আদর্শ মহাবিদ্যালয়ের প্রভাষক। বোন ডাক্তার সালেহা খাতুন (সুপ্তি) আদ-দ্বীন হাসপাতালের আল্ট্রাসনো বিশেষজ্ঞ। আরেক বোন ড. সুফিয়া খানম বিআইআইএসএসের জ্যেষ্ঠ গবেষণা কর্মকর্তা। বোন লতিফা খানম (লতা) বাংলাদেশ ব্যাংকের যুগ্ম পরিচালক। ভাই এম এম আতিক উল্লাহ্ সড়ক ও জনপথ বিভাগের উপ বিভাগীয় প্রকৌশলী।

(ঢাকাটাইমস/২২জুন/এসএস/এইচএফ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :