নিজ বাড়িকে ‘জরুরি স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্র’ বানালেন এম এ রাজ্জাক খান

অর্থনৈতিক প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ১৪ জুলাই ২০২১, ১৬:৩১ | প্রকাশিত : ১৩ জুলাই ২০২১, ২২:৩৬

করোনাকালীন দুর্যোগে মানুষকে জরুরি স্বাস্থ্যসেবা দিতে শৈশবের স্মৃতি বিজড়িত চুয়াডাঙ্গার পলাশপাড়ায় নিজ বাড়ি ‘খান মহল’কে ‘জরুরি স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্র’ বানালেন মিনিস্টার গ্রুপের চেয়ারম্যান, এফবিসিসিআই এর সহ-সভাপতি এবং আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় অর্থ ও পরিকল্পনা বিষয়ক উপ কমিটির সদস্য এম এ রাজ্জাক খান রাজ।

মঙ্গলবার এম এ রাজ্জাক খান রাজের সভাপতিত্বে চুয়াডাঙ্গার পলাশপাড়ার ‘খান মহল’কে ‘স্বাস্থ্য সেবা কেন্দ্র’ হিসেবে উদ্বোধন করেন চুয়াডাঙ্গার জেলা প্রশাসক মো. নজরুল ইসলাম সরকার।

এখন থেকে প্রতিদিন সাধারণ মানুষকে এই স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্রে বিশেষজ্ঞ ডাক্তার দ্বারা বিনামূল্যে চিকিৎসাসেবা দেয়া হবে।

এই সেবাটি সুস্থভাবে পরিচলানা ও বেগবান করতে ‘আমাদের চুয়াডাঙ্গা ফাউন্ডেশন’ নামে একটি ফাউন্ডেশন গঠন করা হয়েছে। স্বাস্থ্যসেবাকে তরান্বিত করা ফাউন্ডেশনের মূল লক্ষ্য হলেও জনহিতকর অন্যান্য কার্যক্রমও পরবর্তীতে অর্ন্তভুক্ত করে ক্রমান্বয়ে দেশব্যাপী এসব সেবা মানুষের কাছে ছড়িয়ে দেওয়া হবে।

চুয়াডাঙ্গাবাসী ০১৪০৪৪৩৩৮৮৮ নম্বরে কল করে বিনামূল্যে স্বাস্থ্যসেবা পেতে পারেন ও জরুরি অক্সিজেন পৌঁছানো হবে। ‘জরুরি স্বাস্থ্যসেবা’ কেন্দ্র থেকে প্রাথমিকভাবে শুধু চুয়াডাঙ্গাবাসীদেরকে বিনাখরচে চিকিৎসা সেবা প্রদান করা হবে।

করোনা এই মহামারিতে মানুষের সুচিকিৎসা প্রদানে এম রাজ্জাক খান রাজ তার নিজ বাড়িকে স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্রে রুপান্তর করে এক অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন বলে মন্তব্য চুয়াডাঙ্গাবাসীর। সাধারণ মানুষের সেবায় সর্বদায়ই তিনি তার হাত সম্প্রসারিত করে রাখেন বলে জানান তারা।

‘জরুরি স্বাস্থ্যসেবা’ উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসক মো. নজরুল ইসলাম সরকার এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চুয়াডাঙ্গা জেলা পুলিশ সুপার মো. জাহিদুল ইসলাম, সিভিল সার্জন ডা.এ এস এম মারুফ হাসান, মেয়র জাহাঙ্গীর আলম মালিক, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম- সম্পাদক ও সাবেক মেয়র মো.রিয়াজুল ইসলাম জোয়ার্দ্দার টোটন, চুয়াডাঙ্গা শাখার বিএমএ-এর সভাপতি ডা. মার্টিন হীরক চৌধুরী, চুয়াডাঙ্গা প্রেসক্লাবের সভাপতি সরদার আল-আমিনসহ প্রমুখ ব্যক্তিবর্গ।

চুয়াডাঙ্গার বিএমএর সভাপতি ও বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক ডা. মার্টিন হীরক চৌধুরী ও অন্যান্য বিশিষ্ঠ চিকিৎসকগণ প্রতিদিন সকাল-সন্ধ্যা সকল ধরনের রোগীর বিনামূল্যে চিকিৎসা ও ওষুধসেবা প্রদান করবেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসক নজরুল ইসলাম বলেন, ‘‘এম এ রাজ্জাক খান রাজের এই উদ্যোগ দেশের জন্য অনন্য দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে। তরুণ উদ্যোক্তা এম এ রাজ্জাক খান দেশের গর্বিত সন্তান। তিনি সফল শিল্পপতি হয়েও ঘরে বসে না থেকে নিজের জেলা চুয়াডাঙ্গার মানুষের সুস্বাস্থ্য নিশ্চিত করার যে উদ্যোগ নিয়েছেন তা প্রশংসার দাবি রাখে। তার এই মহানুভবতা দেশের পিছিয়ে পড়া মানুষগুলোকে স্বস্তি দেবে, স্বাস্থ্য সুরক্ষায় সহায়ক হবে।’

জরুরি স্বাস্থ্যসেবা চালু করার বিষয়ে মিনিস্টার গ্রুপের চেয়ারম্যান এম এ রাজ্জাক খান রাজ বলেন, ‘করোনা মহামারি মোকাবেলায় সবাইকে নিজ অবস্থান থেকে এগিয়ে এসে সহায়তা করতে হবে। আর সে তাগিদ থেকেই ‘আমাদের চুয়াডাঙ্গা ফাউন্ডেশন’-এর ব্যানারে সাধারণ মানুষকে স্বাস্থ্যসেবা দিতে এই উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। দুর্যোগের এই মুহূর্তে অন্য রোগে আক্রান্ত রোগীরাও তাদের চিকিৎসার জন্য প্রয়োজন অনুযায়ী চিকিৎসা সেবা পাচ্ছেন না। যার কারণে আমরা এই জরুরি সেবা চালু করেছি। আর এটি হবে সম্পূর্ণ বিনা খরচে।

(ঢাকাটাইমস/১৪জুলাই/এসআই)

সংবাদটি শেয়ার করুন

অর্থনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :