দেবীদ্বারে চেয়ারম্যানের গাড়িতে গুলি: মামলায় স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতাসহ আসামি ৫৯

দেবীদ্বার (কুমিল্লা) প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ০৬ অক্টোবর ২০২২, ২১:০৯ | প্রকাশিত : ০৬ অক্টোবর ২০২২, ২১:০০
ছবিতে মামলার আসামি উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতা মো. সাদ্দাম হোসেন ও গুলিতে ক্ষতিগ্রস্ত গাড়ি

কুমিল্লার দেবীদ্বারে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ কুমিল্লা জেলা (উত্তর) সাংগঠনিক সম্পাদক মো. আবুল কালাম আজাদের গাড়িবহরে হামলা ও গুলি বর্ষণের ঘটনায় মামলা হয়েছে। মামলায় দেবীদ্বার উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. সাদ্দাম হোসেনসহ নয়জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত ৪০-৫০ জনকে আসামি করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় দেবীদ্বার থানার অফিসার ইনচার্জ কমলকৃষ্ণ ধর মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, বুধবার (৫ অক্টোবর) রাত সাড়ে ৯টায় দেবীদ্বার থানায় উপজেলার আশরা গ্রামের রফিকুল ইসলামের ছেলে মো. গিয়াস উদ্দিন এই মামলা করেন।

মামলায় অন্যান্য অভিযুক্তরা হলেন, আনিসুর রহমান (৪০), আমিনুল ইসলাম সুমন (৩৩), জহিরুল ইসলাম (৩৮), ওমর ফারুক (৩৬), জামিউর রহমান (২৬), আহাম্মেদ শুভ (২৪), মো. নিশান মিয়া(২৪), নুরুন্নবী(২৪)সহ আরো অজ্ঞাত ৪০-৫০ জন।

বাদী তার মামলার আবেদনে বলেন, অভিযুক্তরা গত ৩ অক্টোবর রাত ১০টা থেকে রাত সাড়ে ১০টায় উপজেলার ভিংলাবাড়ি সাহাপাড়া পুজামন্ডপ পরিদর্শন শেষে ফেরার পথে উপজেলা চেয়ারম্যানের গাড়ি বহরে হামলা করে এবং উপজেলা চেয়ারম্যানের ব্যবহৃত গাড়ি (ঢাকা মেট্রো-ঘ-১৫১৫২৪) ভাঙচুর করে। এ সময় উপজেলা চেয়ারম্যান মো. আবুল কালাম আজাদ স্থানীয় প্রশাসনকে বিষয়টি জানিয়ে ঘটনাস্থল ত্যাগ করেন।

চেয়ারম্যান রাত সাড়ে ১১টায় উপজেলা দক্ষিণ ভিংলাবাড়ি ধলাহাস রোডের ফতেহাবাদ মোড়ে পৌঁছালে একই অভিযুক্তরা উপজেলা চেয়ারম্যানকে হত্যার উদ্দেশ্যে উপজেলা এলোপাথাড়ি গুলিবর্ষণ করতে থাকে। এসময় হামলার নেতৃত্বে ছিলেন স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক দেবীদ্বার পুরাতন বাজার এলাকার জামাল হোসেনের ছেলে মো. সাদ্দাম হোসেন, আনিছুর রহমান ও আমিনুল ইসলাম সুমন।

সমর্থকরা উপজেলা চেয়ারম্যানকে নিরাপদে সরিয়ে নিলেও তাকে বহনকারী সরকারি গাড়িতে গুলি লাগে। অন্যদিকে প্রতিপক্ষের এ হামলায় উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের পাঁচজন সমর্থক আহত হন। এর মধ্যে গুরুতর আহত ভিংলাবাড়ি এলাকার মো. সজিব মিয়াকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় প্রথমে দেবীদ্বার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পরে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। আহত অন্যরা হলেন- ভিংলাবাড়ি এলাকার মো. জহির, মাহবুব হোসেন, বানিয়াপাড়া এলাকার হিমেল ও শুভ।

এ ব্যপারে মামলার প্রধান আসামি সাদ্দাম হোসেনের সঙ্গে তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোনে একাধিকার যোগাযোগ করার চেষ্টা করেও ফোন বন্ধ থাকায় কথা বলা সম্ভব হয়নি।

দেবীদ্বার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কমলকৃষ্ণ ধর জানান, পুজামন্ডপে হামলার ঘটনায় এজহার নামীয় নয়জনসহ অজ্ঞাতনামা আরো ৪০/৫০ জনকে অভিযুক্ত করে মামলা হয়েছে। মামলায় অভিযুক্ত কাউকে আটক করা সম্ভব হয়নি। মামলার তদন্ত ও আসামি গ্রেপ্তারে অভিযান অব্যাহত আছে।

(ঢাকাটাইমস/০৬অক্টোবর/এআরডি/কেএম)

সংবাদটি শেয়ার করুন

অপরাধ ও দুর্নীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :