এবার গ্রাহক পর্যায়ে বিদ্যুতের দাম বাড়াতে চায় পিডিবিসহ তিন কোম্পানি

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ২৪ নভেম্বর ২০২২, ১৯:৩০ | প্রকাশিত : ২৪ নভেম্বর ২০২২, ১৯:২৫

পাইকারি পর্যায়ে বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধির দুদিন পরই গ্রাহক পর্যায়ে দাম বাড়ানোর আবেদন করেছে বিতরণকারী তিন কোম্পানি। তারা গড়ে ১৯ দশমিক ৪৪ শতাংশ দাম বাড়ানোর আবেদন বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশনের (বিইআরসি) কাছে জমা দিয়েছে।

বিদ্যুতের দাম বাড়াতে বৃহস্পতিবার বিইআরসির কাছে আবেদন করা কোম্পানি তিনটি হলো—বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড (পিডিবি), ওয়েস্ট জোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানিসহ (ওজোপাডিকো) ও ঢাকা পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেডের (ডিপিডিসি)।

সম্প্রতি পাইকারি পর্যায়ে বিদ্যুতের দাম ১৯ দশমিক ৯২ শতাংশ বৃদ্ধি করা হয়। এরপরই বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর বিষয়ে বিতরণকারী তিন কোম্পানি আবেদন করল। তবে পাইকারি পর্যায়ে দাম বাড়ানোর পর বিদ্যুৎ ও জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ গ্রাহক পর্যায়ে বিদ্যুতের বাড়ানো হচ্ছে না বলে জানিয়েছিলেন।

জানা গেছে, প্রতি ইউনিট বিদ্যুতের দাম গড়ে ১ টাকা ৪৭ পয়সা বাড়ানোর আবেদন করেছে পিডিবি। এই সংস্থাটিসহ তিনটি কোম্পানিই গড়ে প্রায় ২০ শতাংশ বাড়ানোর আবেদন করেছে বলে আভাস পাওয়া গেছে।

গত সোমবার পাইকারি পর্যায়ে বিদ্যুতের দাম বাড়িয়েছে এ খাতের নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিইআরসি। প্রতি ইউনিট ৫ টাকা ১৭ পয়সা থেকে বাড়িয়ে ৬ টাকা ২০ পয়সা করা হয়েছে। অর্থাৎ পাইকারি পর্যায়ে ইউনিটে ১ টাকা ৩ পয়সা দাম বেড়েছে।

সেসময় বিইআরসি জানিয়েছিল, এখনই খুচরা পর্যায়ে দাম বাড়ানোর প্রভাব পড়বে না। এরপর পিডিবি সবার আগে খুচরা দাম বাড়ানোর আবেদন জমা দিয়েছে।

তবে ঢাকা পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেডের (ডিপিডিসি) পরিচালক বিকাশ দেওয়ান বলেন, ‘পাইকারি পর্যায়ে বিদ্যুতের দাম বাড়ায় গ্রাহক পর্যায়ে প্রভাব পড়বে। লোকসান গুনতে হবে। তাই সবদিক বিবেচনা করে দাম বাড়ানোর আবেদন করা হচ্ছে।’

এ বিষয়ে বিইআরসির চেয়ারম্যান আবদুল জলিল বলেন, ‘আবেদনপত্র গ্রহণ শাখায় তিনটি আবেদন জমা হয়েছে। সব সংস্থার আবেদন জমা হওয়ার পর যাচাইবাছাই করে আইনানুযায়ী পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

বিইআরসির তথ্যমতে, আবেদনপত্রগুলোতে সব তথ্য-প্রমাণাদি ঠিক থাকলে একটি কারিগরি মূল্যায়ন কমিটি গঠন করা হবে। সেই কমিটি প্রতিবেদন দিলে গণশুনানি হবে। পুরো প্রক্রিয়া শেষে আদেশ ঘোষণা করতে কমিশনের অন্তত এক থেকে দেড় মাস সময় লাগতে পারে।

প্রসঙ্গত, গত ১৪ বছরে ৯ বার বিদ্যুতের দাম বেড়েছে। এর মধ্যে পাইকারি পর্যায়ে ১১৮ শতাংশ ও গ্রাহক পর্যায়ে ৯০ শতাংশ বেড়েছে বিদ্যুতের দাম।

সবশেষ দাম বাড়ানো হয় ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারিতে, যা ওই বছরের মার্চ থেকে কার্যকর হয়। ওই সময় পাইকারি পর্যায়ে ৮ দশমিক ৩৯ শতাংশ দাম বাড়ানো হয়। একই সময় খুচরা পর্যায়ে দাম বাড়ানো হয় ৫ দশমিক ৩ শতাংশ।

(ঢাকাটাইমস/২৪সেপ্টেম্বর/আরকেএইচ/ডিএম)

সংবাদটি শেয়ার করুন

জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

জাতীয় এর সর্বশেষ

বিমানবন্দর স্টেশন-মহাখালী সড়কের দুটি লেন ব্যবহার না করার অনুরোধ বিআরটির

বিজয়ের ডিসেম্বর শুরু

সাহিত্য চর্চায়ও স্বাক্ষর রাখছেন দুদকের পরিচালক কাজী সায়েমুজ্জামান

টিসিবির জন্য ২ কোটি ২০ লাখ লিটার সয়াবিন তেল কিনবে সরকার

৪ ডিসেম্বর থেকে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ ট্রেন চলাচল বন্ধ

বাংলাদেশের নারী পুলিশের সাহসী ভূমিকা আন্তর্জাতিকভাবে প্রশংসিত: আইজিপি

বাংলাদেশকে সবচেয়ে বেশি অগ্রাধিকার দেয় ভারত: প্রণয় ভার্মা

মেয়র আতিকের সঙ্গে মার্কিন রাষ্ট্রদূতের সৌজন্য সাক্ষাৎ

প্রথম দফায় সরকারিভাবে মালয়েশিয়ায় পৌঁছেছেন বাংলাদেশি ৩০ কর্মী

খাদ্য নিরাপত্তা: আড়াই বিলিয়ন টন বেশি ধান উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা সরকারের

এই বিভাগের সব খবর

শিরোনাম :