খালেদা জিয়া শিক্ষার্থীদের হাতে অস্ত্র তুলে দিয়েছিল: পানিসম্পদ উপমন্ত্রী

শরীয়তপুর প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ০২ মার্চ ২০২৩, ২১:২৭

পানিসম্পদ উপমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক একেএম এনামুল হক শামীম বলেছেন, পাকিস্তানের সামরিক শাসক জেনারেল আইয়ুব খান ছাত্রদের হাতে অস্ত্র তুলে দেন। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর ওই আইয়ুবের পদাঙ্ক অনুসরণ করে জিয়াউর রহমান ও খালেদা জিয়া ছাত্রদের অস্ত্র দিয়েছিলেন। আর ১৯৯৫ সালের ১২ সেপ্টেম্বর বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা শাপলা চত্বরে ছাত্রদের হাতে বই-খাতা-কলম তুলে দিয়ে বলেছিলেন, ‘অস্ত্র নয় বই কাগজ কলমই হচ্ছে ছাত্রদের প্রকৃত হাতিয়ার’।

বৃহস্পতিবার বিকালে শরীয়তপুরের সখিপুর উচ্চ বিদ্যালয়ে বার্ষিক ক্রীড়া, সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা ক্ষমতায় এসে শিক্ষাব্যবস্থাকে বিশ্বমানের করতে কাজ করে চলছেন। তিনি ক্ষমতায় এসে একটি যুগোপযোগী ও আন্তর্জাতিক মানের শিক্ষানীতি করেছেন। গত ১৪ বছরে কোনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে অস্ত্রের ঝনঝনানি নেই, অস্ত্রের মহড়া নেই, সেশন জট নেই। বছরের প্রথম দিন শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন বই তুলে দেয়া শেখ হাসিনার সরকারের অনন্য কৃতিত্ব।

শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্য উপমন্ত্রী বলেন, তোমাদের সৌভাগ্য তোমরা বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার মতো রাষ্ট্রপ্রধান পেয়েছ- যিনি সততায় সেরা, মেধায় সেরা, যোগ্যতায় সেরা, দক্ষতায় সেরা। সেরাদের সেরা প্রধানমন্ত্রী হচ্ছেন জননেত্রী শেখ হাসিনা। কারণ, তিনি একমাত্র রাজনীতিবিদ, যিনি পরবর্তী নির্বাচন নয়, পরবর্তী প্রজন্ম নিয়ে ভাবেন। তিনি আগামী প্রজন্মের জন্য বিশ্বমানের উন্নত সমৃদ্ধ স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণে কাজ করে চলছেন।

এনামুল হক শামীম বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বদৌলতে পদ্মাসেতু হয়েছে। এখন মেঘনা সেতুও নির্মাণ হবে। শরীয়তপুরে ফোরলেন হচ্ছে। সাবমেরিন ক্যাবলের মাধ্যমে পদ্মা মাঝের দুর্গম চরাঞ্চলও বিদ্যুতের আলোয় আলোকিত হয়েছে। নড়িয়া-সখিপুরের সকল ননএমপিওভুক্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানও এমপিও ভুক্ত হয়েছে। শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাব স্থাপন করা হয়েছে। সীমানা প্রাচীর স্থাপন করা হয়েছে। শরীয়তপুরে কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় অনুমোদন হয়েছে।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রাথমিক শিক্ষা থেকে শুরু করে বিশ্ববিদ্যালয় পর্যন্ত শিক্ষার মানোন্নয়নে কাজ করে চলছেন। তিনি প্রতিটি উপজেলা শহরে থাকা মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে সরকারিকরণ করছে। তিনি প্রতিটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাব স্থাপন করেছেন। পুরাতন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে নতুন নতুন ভবন করে দিচ্ছেন। তিনি দেশের কৃষি শিক্ষা ও তথ্যপ্রযুক্তির ওপর বিশেষ গুরুত্ব দিচ্ছেন। এজন্য জেলায় জেলায় বিশ্ববিদ্যালয় গড়ে তুলছেন। এছাড়া শিক্ষকদেরও তিনি নানাভাবে সম্মানিত করছেন। তাই আগামী নির্বাচনেও জনগণ বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনাকে আবারও আনবে। পঞ্চমবারের মতো প্রধানমন্ত্রী পৃথিবীর ইতিহাসে এক বিরল রেকর্ড স্থাপন করবেন।

স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও ভেদরগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান হুমায়ুন কবির মোল্যার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন- আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক উপ-কমিটির সাবেক সদস্য তাহমিনা খাতুন শিলু, ভেদরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ আল মামুন, জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়রাম্যান এমএ কাইউম পাইক, আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক কাওসার আহম্মেদ তকি, সখিপুর থানার সহ-সভাপতি ও চরকুমারিয়া ইউপি চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হক মোল্যা, সাংগঠনিক সম্পাদক ফয়সাল আহম্মেদ রতন, ইউনিয়নের সভাপতি ফায়েজুর রহমান মোল্যা, সাধারণ সম্পাদক মো. মাহবুবুর রহমান আক্তার।

এতে শিক্ষক-শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও স্থানীয় আওয়ামী লীগ এবং সহযোগী সংগঠনের বিপুলসংখ্যক নেতাকর্মী অংশগ্রহণ করেন।

পরে পানিসম্পদ উপমন্ত্রীর রত্নগর্ভা মায়ের নামে প্রতিষ্ঠিত বেগম আশ্রাফুন্নেছা ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে ২৪ জন মেধাবী ও গরিব শিক্ষার্থীদের বৃত্তি প্রদান করা হয়।

এর আগে ২ কোটি টাকা ব্যয়ে চরকুমারিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের বিজয়-৭১ ভবন ও শহীদ স্মৃতি নামে দুইটি নবনির্মিত ভবন এবং ১০ কোটি ৫৪ লাখ ৩৮ হাজার ৪১ টাকা ব্যয়ে মোল্লারহাট থেকে বালারবাজার পর্যন্ত সড়কের কাজের উদ্বোধন করেন উপমন্ত্রী।

(ঢাকাটাইমস/০২মার্চ/এলএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :