বিদ্যালয়ের পাঠদান বন্ধ রেখে আ.লীগের কর্মী সমাবেশ করলেন ধর্মমন্ত্রী

​​​​​​​জামালপুর প্রতিনিধি, ঢাকা টাইমস
| আপডেট : ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ২০:৫৩ | প্রকাশিত : ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ২০:৪৬

জামালপুরের ইসলামপুরে বিদ্যালয়ের পাঠদান বন্ধ রেখে আয়োজন করা হয়েছে আওয়ামী লীগের কর্মী সমাবেশ। আর সেই সমাবেশে প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ধর্মমন্ত্রী ফরিদুল হক খান দুলাল।

রবিবার বিকাল ৪টার দিকে চর গোয়ালিনি ইউনিয়নের ডিগ্রির চর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান ভবনের সামনের মাঠে শুরু হয় অনুষ্ঠানটি শেষ হয় সন্ধ্যা ৬টার দিকে। বিদ্যালয় খোলা থাকলেও সকালে একটি বিষয়ে পাঠদান শেষে কার্যক্রম বন্ধ রাখে স্কুল কর্তৃপক্ষ। বেলা ১টা থেকেই শুরু হয় উচ্চ শব্দে মাইক বাজানো।

এদিকে কয়েক ঘণ্টা অপেক্ষার পর বিকাল ৪টার দিকে স্কুল শিক্ষার্থীদের মাঠের প্রবেশপথের দুই পাশে দাঁড় করিয়ে ধর্মমন্ত্রীকে স্বাগত জানানো হয়।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে কয়েকজন শিক্ষার্থী জানায়, শবে বরাতের জন্য রবিবার পাঁচ-ছয়টি ক্লাস করার কথা ছিল। কিন্তু অনুষ্ঠানের কারণে একটি ক্লাস করিয়েই পাঠদান বন্ধ করে দেওয়া হয়। পরে আমাদেরকে কয়েক ঘণ্টা অপেক্ষা করোনার পর মাঠে নামিয়ে সারিবদ্ধ করে মন্ত্রীকে স্বাগত জানানোর জন্য দাঁড় করিয়ে দেওয়া হয়।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন অভিভাবক বলেন, আমাদের সন্তানদের রাজনীতি করার জন্য স্কুলে পাঠানো হয়নি। তাদের লেখাপড়া করার জন্য স্কুলে পাঠিয়েছি। কিন্তু দুর্ভাগ্য, ক্লাস বন্ধ রেখে রাজনৈতিক অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করানো হলো শিক্ষার্থীদের।

স্কুলে পাঠদান বন্ধ করে রাজনৈতিক অনুষ্ঠানের বিষয়ে জানতে বিদ্যালয়টির প্রধান শিক্ষক আব্দুস সালামের মোবাইল ফোনে কয়েকবার ফোন করা হলেও তিনি কল রিসিভ করেননি। কর্মী সমাবেশের সভাপতি চরগোয়ালিনী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি নুরভক্ত দুদু মোল্লার সঙ্গেও মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা যায়নি।

তবে অনুষ্ঠানটির সঞ্চালক চরগোয়ালিনী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল হালিম মোবাইল ফোনে বলেন, ‘মাইকিং শুরু হয়েছে অনেক পরে। আর মন্ত্রী সাহেব এসেছেন বিকাল ৪টার দিকে। এতে স্কুলের পাঠদানের কোনো ক্ষতি হওয়ার কথা নয়। মন্ত্রীকে স্কুলে এনে কিছু দাবির কথা বলা হয়েছে। তাই স্কুল মাঠে অনুষ্ঠান করা হয়েছে।

বিষয়ে জানতে চাইলে ইসলামপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সিরাজুল ইসলাম মোবাইল ফোনে ঢাকা টাইমসকে বলেন, বিষয়টি আমার জানা নেই। তবে স্কুল বা পাঠদান কার্যক্রম বন্ধ রেখে কোনো রাজনৈতিক অনুষ্ঠান করার সুযোগ নেই। কেউ অভিযোগ দিলে আমি তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবো

(ঢাকাটাইমস/২৫ফেব্রুয়ারি/প্রতিনিধি/পিএস/কেএম)

সংবাদটি শেয়ার করুন

সারাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :