বেইলি রোড ট্রাজেডি: ঘটনাস্থল পরিদর্শনে জামায়াতের শীর্ষনেতারা 

​​​​​​​নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা টাইমস
| আপডেট : ০১ মার্চ ২০২৪, ১৯:১১ | প্রকাশিত : ০১ মার্চ ২০২৪, ১৮:৪১

রাজধানীর বেইলি রোডের বহুতল ভবনে ভয়াবহ আগুনের ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন জামায়াতে ইসলামীর ভারপ্রাপ্ত আমির ও সাবেক সংসদ সদস্য অধ্যাপক মুজিবুর রহমান। ঘটনাস্থল পরিদর্শনকালে তিনি স্থানীয় জনগণ, দুর্ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্থ মানুষ এবং গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলেন। তিনি অগ্নি দুর্ঘটনায় নিহতদের রূহের মাগফিরাত কামনা করেন এবং তাদের পরিবার-পরিজন ও যারা আহত হয়েছেন তাদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

জামায়াত আমির এই বিপদে মহান আল্লাহর উপর ভরসা রেখে সবরের সঙ্গে পরিস্থিতি মোকাবেলা করতে সবার প্রতি পরামর্শ দেন এবং জামায়াতে ইসলামীর পক্ষ থেকে ক্ষতিগ্রস্তদের যথাসম্ভব সহযোগিতার আশ্বাস দেন। তিনি রাজধানীসহ সারাদেশে প্রতিনিয়ত এ ধরনের অগ্নিকান্ডের ঘটনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে ঘটনার প্রকৃত কারণ অনুসন্ধান ও তার পুনরাবৃত্তি রোধে কার্যকর পরিকল্পনা ও উদ্যোগ নেওয়ার জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানান।

শুক্রবার বিকালে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনাস্থল পরিদর্শনের সময় আরও ছিলেন দলের কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ সদস্য ও ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের আমির মু. নূরুল ইসলাম বুলবুল, কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ সদস্য মোবারক হোসাইন, কেন্দ্রীয় মজলিসে শুরা সদস্য ও ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের নায়েবে আমির যথাক্রমে আব্দুস সবুর ফকির ও ড. হেলাল উদ্দিন। এছাড়াও ছিলেন কেন্দ্রীয় মজলিসে শুরা সদস্য ও ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের সহকারী সেক্রেটারি কামাল হোসাইন, ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের সহকারী প্রচার সম্পাদক আশরাফুল আলম ইমন, সহকারী অফিস সম্পাদক আব্দুস সাত্তার সুমন, সহকারী সমাজকল্যাণ সম্পাদক শাহীন আহমদ খান, ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের মজলিসে শুরা সদস্য মাহফুজুল হক চৌধুরীসহ বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ।

অধ্যাপক মজিবুর রহমান বলেন, আল্লাহ রাব্বুল আলামিন মানুষকে বিপদে ফেলে পরীক্ষা করেন। সেই কঠিন বিপদ ও মুসিবতের সময় ধৈর্য্য বা সবরের মাধ্যমে আমাদের আল্লাহ তায়ালার সাহায্য চাইতে হবে। হাদিসে অগ্নিকাণ্ড সহ এ ধরনের দুর্ঘটনায় যারা নিহত হন তাদেরকে শহীদ হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে। দেশের যেখানেই কোনো দুর্ঘটনা ঘটছে আমরা জামায়াতে ইসলামীর পক্ষ হতে ছুটে গিয়েছি, ক্ষতিগ্রস্তদের সার্বিক খোঁজখবর নিয়েছি, সীমিত সামর্থের আলোকে সহযোগিতা নিয়ে ক্ষতিগ্রস্ত ভাই-বোনের পাশে দাঁড়িয়েছি। মূলত আমরা একজন মুসলমান হিসেবে আখেরাতে নিজেদের নাজাতের জন্য অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে আমাদের সেবা কার্যক্রম পরিচালনা করে যাচ্ছি।

জামায়াত আমির বলেন, বেইলি রোডের অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় বৃহস্পতিবার রাত থেকেই আমাদের ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের স্বেচ্ছাসেবক টিম কাজ করে যাচ্ছে। আমরা ১০টি অ্যাম্বুলেন্স দিয়ে সম্পূর্ণ বিনামূল্যে সেবা দিয়ে যাচ্ছি। আমরা ক্ষতিগ্রস্তদের সার্বিক খোঁজখবর অব্যাহত রেখেছি। প্রয়োজনে আর্থিক সহযোগিতাসহ অন্যান্য সেবা নিয়ে তাদের কাছে পৌঁছে যাবো ইনশাআল্লাহ।

মুজিবুর রহমান বলেন, সম্প্রতি বঙ্গবাজার, নিউমার্কেটসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে প্রতিনিয়ত আগুনের ঘটনা ঘটছে। দুর্ঘটনার পরপরই তদন্ত কমিশন গঠন হয় অথচ কোন এক অজানা কারণে তদন্ত কমিশনের রিপোর্টগুলো অজানায় থেকে যায়। অগ্নিকাণ্ডের প্রকৃত কারণ খুঁজে বের করে তার প্রতিকারের দায়িত্ব হলো সরকার ও তার দায়িত্বপ্রাপ্ত সংস্থাগুলোর। আমরা প্রত্যাশা করি সরকার এর কারণ অনুসন্ধান ও ঘটনার পুনরাবৃত্তি রোধে কার্যকর উদ্যোগ নেবে। অগ্নিনির্বাপনের জন্য অত্যাধুনিক যন্ত্রপাতি সংগ্রহ ও তার যথার্থ ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে। এ জাতীয় দুর্ঘটনা থেকে রক্ষা পেতে ভবন নির্মাণে প্রয়োজনীয় নিয়মগুলো যথাযথভাবে মেনে চলতে হবে।

(ঢাকাটাইমস/০১মার্চ/জেবি/কেএম)

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :