এই সরকার ক্ষমতায় থাকলে বিএনপির অস্তিত্ব রাখবে না: মির্জা আব্বাস

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা টাইমস
| আপডেট : ২৬ মে ২০২৪, ১৯:১১ | প্রকাশিত : ২৬ মে ২০২৪, ১৭:২৬

বর্তমান সরকার বারবার ক্ষমতায় থাকলে জিয়াউর রহমান, খালেদা জিয়া, তারেক রহমান এবং বিএনপির কোনো অস্তিত্ব রাখবে না বলে মন্তব্য করেছেন দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস। তিনি বলেন, ‘এই সরকার থাকলে এদেশের স্বাধীনতাও থাকবে না। যদি দেশের সাধারণ মানুষ সচেতন না হয়।’

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জীবন-সংগ্রামের ওপর লেখা এক গ্রন্থ প্রকাশনার অনুষ্ঠানে মির্জা আব্বাস এসব কথা বলেন।

গুলশানে হোটেল লেকশোরে সাংবাদিক মাহফুজ উল্লাহর লেখা ইংরেজি গ্রন্থ ‘বেগম খালেদা জিয়া: হার লাইভ, হার স্টোরি’র বাংলা সংস্করণ ‘খালেদা জিয়া: জীবন ও সংগ্রাম’ শীর্ষক গ্রন্থের প্রকাশনা উপলক্ষে এই অনুষ্ঠান হয়।

ইতি প্রকাশনা ৬৭০ পৃষ্ঠার এই গ্রন্থটি প্রকাশ করেছে। শাহরিয়ার সুলতান ইংরেজি এই গ্রন্থটি অনুবাদ করেন। গ্রন্থটির মূল্য দুই হাজার টাকা।

অনুষ্ঠানে মির্জা আব্বাস বলেন, ‘আমরা যদি দেশের মানুষকে সচেতন করতে না পারি, যদি নিজেরা সচেতন না হই, তাহলে এই সরকারের হাত থেকে বাঁচতে পারবো না। আজকে বক্তাদের বক্তব্যেও এই কথাটি উচ্চারিত হয়েছে।’

উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে যেতে না দিয়ে সরকার খালেদা জিয়াকে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিচ্ছে বলে অভিযোগ করেন মির্জা আব্বাস। বলেন, ‘যার সম্পর্কে কথা বলছি, তিনি (খালেদা জিয়া) কিন্তু আমাদের মাঝে এখানে নেই। ওনাকে আমাদের সামনে আসতে দেওয়া হয় না, ওনাকে কথা বলতে দেওয়া হয় না। দেশের ডাক্তাররা আশা ছেড়ে দিয়েছেন। তারা বলছেন, তাকে অবিলম্বে বিদেশে নেওয়া দরকার।’

মির্জা আব্বাস বলেন, ‘বারবার বারবার বারবার বলার পরেও জেনেশুনে একটা মানুষকে কীভাবে হত্যা করা হচ্ছে, এটা ইতিহাস সাক্ষী হয়ে থাকবে। আজকে বিভিন্নজনের বক্তব্যে এটা উঠে এসেছে এবং আসবে। ইতিহাস সাক্ষী হয়ে থাকবে যে, যারা ওনাকে বিদেশে যেতে দিচ্ছে না, তারা ইতিহাসে অপরাধীর মতো থাকবে। যখন সুযোগ আসবে, ইনশাল্লাহ তাদের বিচার হবে।’

গুলশানের বাসা ‘ফিরোজা’য় বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের নিবিড় পর্যবেক্ষণে খালেদা জিয়া চিকিসা দিচ্ছেন তার জন্য গঠিত মেডিকেল বোর্ড। গুরুতর অসুস্থ হয়ে কিছু দিন পরপর তাকে এভারকেয়ার হাসপাতালে ভর্তি হতে হয়।

অসুস্থ বিএনপি চেয়ারপারসনকে এভারকেয়ার হাসপাতালে দেখতে যাওয়ার কথা তুলে ধরে নাগরিক ঐক্যের সভাপতি মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, ‘এতো নির্দয়-নিষ্ঠুর আচরণ কোনো মানুষ মানুষের সঙ্গে করতে পারে এটা বলা যায় না। আমি এখানে অধ্যাপক এজেডএম জাহিদ হোসেন (বেগম খালেদা জিয়ার ব্যক্তিগত চিকিৎসক) দেখতে পারছি। আমি ওনাকে (খালেদা জিয়াকে) হাসপাতালে দেখতে গিয়েছিলাম। ওনারা (চিকিৎসকরা) দেখিয়েছিলেন… কী রকম করে হার্টে বাইপাস করা যাচ্ছে না, কিন্তু সেটার একটা বিকল্প তারা করছেন যাতে রক্ত জমে ব্লক হয়ে মারা না যান, সেরকম করে একটা প্যাসেজ তৈরি করা। দেখে আমার নিজের এত খারাপ লেগেছিল যে, এই দৃশ্য দেখার পরে কেউ তাকে আটকিয়ে রাখতে পারে এটা আমার কাছে অবিশ্বাস্য। শেখ হাসিনা সেটা দেখেছেন তাতো আমি বলি না। কিন্তু তিনি জানেন না তা হতে পারে না। কারণ উনি প্রতিনিয়ত খবর তো রাখেন। রাখার পরেও এই নিষ্ঠুর আচরণ করেন।’

নানা চরাই-উতরাই পেরিয়ে নিজের কর্মদক্ষতায় খালেদা জিয়া দেশের রাজনৈতিক অঙ্গনে সবচেয়ে জনপ্রিয় নেত্রী হয়েছেন উল্লেখ করে সাংবাদিক মাহফুজউল্লাহর গ্রন্থটি নেতাকর্মীদের পড়ার অনুরোধ জানান মান্না।

সরকারের সমালোচনা করে নাগরিক ঐক্যের সভাপতি বলেন, ‘৭ জানুয়ারির পরে দেশের মানুষের মধ্যে অনেকে বলেছেন, আর পারলেন না, এরা পাঁচ বছরই থাকবেন। কেউ কেউ বলেন, যতদিন শেখ হাসিনা জীবিত আছে নড়াতে পারবেন না। এখন দেখছি নিজে নিজেই নড়ছে।’

মান্না বলেন, ‘কেন তিনটা এমন এমন শট হয়েছে? একটা প্রাক্তন আইজিপি, একটা প্রাক্তন চিফ অব স্টাফ, আরেকটা তিনবারের এমপি। চোরগুলো, ডাকাতগুলো গায়ের জোরে এমপি হয়েছে। তাদের চেহারা এক্সপোজড হয়েছে, যার ফলে সবাই বুঝতে পারছে। পত্রিকায় লেখেছে দেখলাম তিনটা বিষয় নিয়ে বিব্রত সরকার। এই দায় কার? চিফ অব স্টাফ কে বানিয়েছে, আইজি কে বানিয়েছে, এমপি কে বানিয়েছে? সবাইকে উনি (শেখ হাসিনা) প্রতিপালন করে, বড় করে লুটপাট করবার ক্ষমতা দেবার পরে সবগুলো এক্সপোজড হয়ে গেছে, তখন আবার পত্রিকায় লেখছে দায় কার? বাহ।’

রাষ্ট্র বিজ্ঞানী অধ্যাপক দিলারা জামান বলেন, ‘বেগম খালেদা জিয়া একজন প্রা্গমেটিক পপুলার লিডার। আজকে তার ওপর জেল-জুলুম-নির্যাতন উনি ভিকটিম হয়েছেন, এটা একটা টর্চার। রাজনীতি করতে গিয়ে উনি বিভিন্ন সরকারের আমলে ভিকটিম হয়েছেন। হাসিনার আমলে জেলে গিয়েছেন, এরশাদের আমলে জেলে গিয়েছেন, এখন উনি কত বছর ধরে জেলে আছেন, চিকিৎসা করার সুযোগ পাচ্ছেন না। চোখ দেখাতে আমাদের প্রেসিডেন্ট চলে ‍যাচ্ছেন সিঙ্গাপুরে ফ্যামিলিসহ। আরও অনেক নেতা চলে যাচ্ছেন সিঙ্গাপুর, লন্ডন, জার্মানিতে যখন-তখন। অথচ বেগম জিয়াকে যেতে দেওয়া হচ্ছে না। এটা একটা প্রতিশোধ, এটা একটা রেলিভেন্স। এভাবে তাকে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দেওয়া হচ্ছে।’

তিনি বলেন, ‘আমি বলব, বেগম খালেদা জিয়া প্রিভ্যাইল সিম্বোলাইজেস বাংলাদেশ। তিনি আজকে নিজের প্রিয় জন্মভূমিতে বন্দি, আমি মনে করি বাংলাদেশও বন্দি। বাংলাদেশ ইজ এ প্রিজনার, ভেতর থেকে বাংলাদেশও বন্দি। সুতরাং খালেদা জিয়া বাংলাদেশকে সিম্বোলাই করে বলে আমি মনে করি।’

অর্থনীতিবিদ অধ্যাপক মাহবুবউল্লাহর সভাপতিত্বে ও কবি আবদুল হাই শিকদারের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান, ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক আসিফ নজরুল, অধ্যাপক সিদ্দিকুর রহমান খান, গ্রন্থের অনুবাদক শাহরিয়ার সুলতান, ‘ইতি প্রকাশনা’র প্রকাশক জহির দীপ্তি এবং গ্রন্থের লেখক প্রয়াত সাংবাদিক মাহফুজউল্লাহ‘র সহধর্মিনী দিনারজাদি বেগম বক্তব্য দেন।

প্রকাশনা অনুষ্ঠানে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য জমির উদ্দিন সরকার, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, জাতীয় পার্টি (কাজী জাফর) মোস্তফা জামাল হায়দার, জামায়াতে ইসলামী মজিবুর রহমান, এনপিপির ফরিদুজ্জামান ফরহাদ, সাম্যবাদী দল (মার্কবাদী-লেলিনবাদী) হারুন চৌধুরী, গণঅধিকার পরিষদের নূরুল হক নূর, জাগপা খন্দকার লুৎফুর রহমান, ইকবাল হোসেন প্রধান, এনডিপির আবু তাহের, পিপলস পার্টির বাবুল সর্দার চাখারি, সাম্যবাদী দলের সৈয়দ নুরুল ইসলাম, গণদলের এটিএম গোলাম মাওলা চৌধুরী, ইসলামী ঐক্যজোটের মাওলানা আবদুল করীম, জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের ‍গোলাম মহিউদ্দিন ইকরাম,বাংলাদেশ ন্যাপের শাওন সাদেকী, বিএনপির আলতাফ হোসেন চৌধুরী, আবদুল আউয়াল মিন্টু, এজেডএম জাহিদ হোসেন, আহমেদ আজম খান, মনিরুল হক চৌধুরী, আবদুস সালাম, আফরোজা খানম রীতা, এসএম আবদুল হালিম, হাবিবুর রহমান হাবিব, অধ্যাপক শাহিদা রফিক, অধ্যাপক তাজমেরী এস এ ইসলাম, ইসমাইল জবিহউল্লাহ, বিজন কান্তি সরকার, সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, খায়রুল কবির খোকন, জহির উদ্দিন স্বপন, শ্যমা ওবায়েদ, শামসুর রহমান শিমুল বিশ্বাস আফরোজা আব্বাস, শিরিন সুলতানা, নিলোফার চৌধুরী মনি, এবিএম আশরাফ উদ্দিন নিজাম, অধ্যাপক আনম ইউসুফ হায়দার, অধ্যাপক গোলাম হাফিজ কেনেডী উপস্থিত ছিলেন।

(ঢাকাটাইমস/২৬মে/জেবি/এজে)

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

রাজনীতি এর সর্বশেষ

ঢাকা মহানগর উত্তর-দক্ষিণ বিএনপি এবং যুবদলের কেন্দ্রীয় কমিটি বিলুপ্ত

সরকারের দুঃশাসনে জনগণের ঈদ আনন্দ আজ ম্লান: সালাম

জনগণের কাছে সরকারের ন্যূনতম মূল্য নেই: আমিনুল হক

মহিলা দলের নেতাকর্মীদের ঈদ উপহার দিলেন বিএনপি নেতা বকুল

হরিজনদের উচ্ছেদ করে ভাগ বাটোয়ারা করলে তা হবে ডাকাতি: জিএম কাদের

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ কৃষক দলের পূর্ণাঙ্গ আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা

সংসদে প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া বক্তব্যের প্রতিবাদ মির্জা ফখরুলের

অঢেল সম্পদের মালিক ঝিনাইদহ জেলা আ.লীগের সম্পাদক কে এই মিন্টু?

গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনতে ঐক্যবদ্ধভাবে লড়াই চালিয়ে যেতে হবে: দুদু

সরকারের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধভাবে লড়াই করতে হবে: ফারুক

এই বিভাগের সব খবর

শিরোনাম :