জাকির নায়েকের ‘বাড়াবাড়িতে’ ক্ষুব্ধ মাহাথির

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ১৮ আগস্ট ২০১৯, ২০:৩৫ | প্রকাশিত : ১৮ আগস্ট ২০১৯, ২০:৩২

ভারতের বিতর্কিত ধর্মপ্রচারক জাকির নায়েক বর্ণবাদী রাজনীতি বিষয়ে আলোচনা করতে গিয়ে সীমা অতিক্রম করেছেন। কুয়ালালামপুরে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদ এ মন্তব্য করেন।

রবিবার ২০১৯ সালের বিশ্ব পরিসংখ্যান কংগ্রেসের ৬২টি তম আন্তর্জাতিক পরিসংখ্যান ইনস্টিটিউট উদ্বোধনকালে প্রধানমন্ত্রী উপরিউক্ত মন্তব্য করেন।

মাহাথির মোহাম্মদ বলেন,‘ধর্মীয় প্রচারকরা ধর্ম প্রচার করেন। কিন্তু জাকির নায়েক তা করছেন না। তিনি মালয়েশিয়ায় বসবাসরত চীন ও ভারতীয় বংশোদ্ভূতদের নিজ নিজ দেশে ফিরে যাওয়ার কথা বলেছেন। এটাই রাজনীতি। তাকে রাজনীতি থেকে দূরে থাকা উচিত।’

সম্প্রতি মালয়েশিয়ার কেলানতানের কোতা বারুতে ‘এক্সিকিউটিভ টক বারসামা ড. জাকির নায়েক’ শিরোনামে আয়োজিত ধর্মীয় আলোচনা অনুষ্ঠানে নিজের স্বেচ্ছা নির্বাসন সংক্রান্ত একটি প্রশ্নের উত্তরে জাকির নায়েক বলেন, মালয়েশিয়ান চীনারা ‘ফিরে যান’। আপনারা এই দেশের ‘পুরোনো অতিথি’। ভারতে মুসলমানদের তুলনায় মালয়েশিয়ায় হিন্দুরা ১০০ শতাংশেরও বেশি অধিকার ভোগ করে।

শুক্রবার এ বিষয়ে জাকির নায়েককে সাত ঘণ্টা ধরে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে মালয়েশিয়ার গোয়েন্দা বাহিনী। শুক্রবার জুমার নামাজ শেষে তিনি পুলিশ হেডকোয়ার্টারে প্রবেশ করেন এবং রাত সোয়া অআটটার দিকে বের হন। তবে এসময় তিনি কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি।

মালয়েশিয়ায় জাকির নায়েকের স্থায়ী নাগরিকত্ব সম্পর্কেও অবহিত নন বলেও প্রধানমন্ত্রী জানান।

প্রধানমন্ত্রী বলেন,‘মালয়েশিয়ায় ধর্ম প্রচারের স্বাধীনতা রয়েছে। এ কাজ থেকে জাকির নায়েককে আমরা বিরত রাখব না। কিন্তু এটি সুস্পষ্ট যে তিনি মালয়েশিয়ায় জাতিগত রাজনীতিতে অংশগ্রহণ করতে ইচ্ছুক। তিনি জাতিগত উন্মাদনা সৃষ্টি করতে চাচ্ছেন। এ ধরণের ব্যবহার নিন্দনীয়।’

মালয়েশিয়ার প্রচলিত আইন অনুসারে জাতিগত অভিযোগের বিষয়ে জাকির নায়েকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হতে পারে।

মাহাথির মোহাম্মদ বলেন,‘সরকার জাকির নায়েকের বিরুদ্ধে যেকোন পদক্ষেপ প্রচলিত আইন অনুসারে গ্রহণ করব। কারণ সরকার আইনের শাসনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল।’      

মালয়েশিয়ায় স্থায়ী নাগরিকত্ব নিয়ে ২০১৫ সাল থেকে বাস করছেন ভারতের বিতর্কিত ধর্ম প্রচারক জাকির নায়েক।

জাকির নায়েক একজন ভারতীয় নাগরিক। দুর্নীতির অভিযোগে ভারতে তিনি ‘ওয়ান্টেড’। জাকির নায়েক কয়েক বছর ধরে নির্বাসিত জীবন কাটাচ্ছেন। সিঙ্গাপুরে প্রবেশের ক্ষেত্রে জাকির নায়েকের উপর নিষেধাজ্ঞা রয়েছে।

এরই মধ্যে জাকির নায়েকের পিস টিভির প্রচার বন্ধ করে দিয়েছে ভারত, বাংলাদেশসহ বিভিন্ন দেশ। আর এরপর তিনি মালয়েশিয়ায় আশ্রয় নেন। তবে সে দেশেও তুমুল বিতর্ক হচ্ছে জাকির নায়েককে নিয়ে। দেশটি থেকে তাকে বের করে দেয়ার দাবিও জানিয়েছে একাধিক রাজনৈতিক দল। এরমধ্যেই তাকে নিষিদ্ধ করেছে মালয়েশিয়ার সারাওয়াক প্রদেশের সরকার।

প্রদেশটির উপপ্রধান মুখ্যমন্ত্রী জ্যামস জামুত মাসিং এবং প্রাদেশিক মন্ত্রী সিম কুই হাইয়ান এ সিদ্ধান্তের ব্যাপারে নিশ্চিত করেন। মাসিং বলেন, ‘জাকির নায়েকের মালয়েশিয়া বিরোধী বক্তব্য সারাওয়াকের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির জন্য বিপজ্জনক। এই জন্য তাকে এখানে প্রবেশে বাধা দিতে এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।’

ভারতীয় বংশোদ্ভূত মালয়েশিয়দের বিরুদ্ধে কথা বলে প্রধানমন্ত্রীর সুনজরে আসার চেষ্টা করছেন জাকির, এমনটাই দাবি করেন মালয়েশিয়ার ন্যাশনাল প্যাট্রিয়টস অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি দাতুক মোহম্মদ আরশাদ রাজি। সংগঠনটির দাবি, মালয়েশিয়দের নিয়ে উসকানিমূলক বক্তব্য দেওয়া বন্ধ করুক জাকির নায়েক। মালয়েশিয়ার বাসিন্দাদের ধর্মের ভিত্তিতে তুলনা করা থেকে বিরত থাকতে তার প্রতি আহ্বান জানানো হয়।

ঢাকাটাইমস/১৮ আগস্ট/আরআর

সংবাদটি শেয়ার করুন

আন্তর্জাতিক বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :