চুরির অভিযোগে হাত-পা বেঁধে জেলেকে মারধর

ভোলা প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ০৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২৩:৪৬

ভোলার বোরহানউদ্দিন উপজেলায় দোকান চুরির অভিযোগে মো. সোবহান নামে এক জেলেকে বাড়ি থেকে ধরে এনে প্রকাশ্যে হাত-পা বেঁধে বেদম মারধর করেছেন ইউপি সদস্যসহ স্থানীয় প্রভাবশালীরা।

এ ঘটনার একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে গত দু’দিন ধরে ভাইরাল হয়। পরে বুধবার দুপুরের দিকে এর সাথে জড়িত উপজেলার হাসান নগর ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের সদস্য (মেম্বার) মো. নহিদ ও মহিলা ইউপি সদস্যের স্বামী মো. আমজাদকে পুলিশ গ্রেপ্তার করে। আহত জেলে সোবহান বর্তমানে বোরহানউদ্দিন হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। এ ঘটনায় সোবহানের স্ত্রী বাদী হয়ে ৭-৮ জনকে আসামি করে বোরহানউদ্দিন থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

জানা যায়, কয়েকদিন আগে বোরহানউদ্দিনের হাসান নগর ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের নাগর মৌলভীর দোকান চুরি হয়। এতে ওই এলাকার ইউপি সদস্য নাহিদ ও মহিলা ইউপি সদস্যের স্বামী আমজাদ, মেহেদী চৌধুরী, নাগর মৌলভীর ছেলে হাসান ও আরিফ, সাইফুলের ছেলে শাকিলসহ স্থানীয় প্রভাবশালী ৭-৮ মিলে জেলে সোবাহানকে সন্দেহ করতে থাকেন। পরে তারা বাড়ি থেকে সোবাহানকে ধরে এনে ওই দোকানের মধ্যে হাত-পা বেঁধে লাঠি দিয়ে বেদম মারধর করেন। এক পর্যায়ে তাকে মারতে মারতে বাহিরে নিয়েও প্রকাশ্যে মারতে থাকেন। সোবাহানকে বাঁচাতে তার স্ত্রী ছুটে এলে তারা তাকেও মারধর ও শ্লীতাহানি করেন। পরে সোবহান জ্ঞান হারিয়ে ফেললে তাকে ছেড়ে দেয়া হয়। সেখান থেকে তাকে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে বোরহানউদ্দিন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এর ভিডিও চিত্র সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ে ব্যাপক আলোড়ন সৃষ্টি হয়। পরে বুধবার দুপুরের দিকে বোরহানউদ্দিন থানা পুলিশ নাহিদ মেম্বার ও মহিলা ইউপি সদস্যের স্বামী আমজাদকে আটক করে। এ ঘটনায় সোবাহানের স্ত্রী বাদী হয়ে বোরহানউদ্দিন থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।

বোরহানউদ্দিন থানার সেকেন্ড অফিসার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. মোহাইমিনুল ইসলাম জানান, এ ঘটনায় জড়িত ইউপি সদস্য মো. নাহিদ ও মহিলা ইউপি সদস্যের স্বামী মো. আমজাদকে গ্রেপ্তার করে আদালতে পাঠানো হয়েছে। বাকি আসামিদেরও গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

ঢাকাটাইমস/০৪সেপ্টেম্বর/ইএস
    

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :