সাংবাদিক কাকন রেজার মা জাহানারা রেজ্জাকের দাফন সম্পন্ন

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ২০ অক্টোবর ২০১৯, ১৭:৩৩ | প্রকাশিত : ২০ অক্টোবর ২০১৯, ১৭:২১

সাংবাদিক ও কলাম লেখক কাকন রেজার মা জাহানারা রেজ্জাকের জানাযা শেষে দাফন সম্পন্ন হয়েছে। শনিবার বাদ আছর শেরপুর তেরাবাজার জামিয়া সিদ্দিকীয়া মাদরাসা মাঠে নামাজে জানাযা শেষে মরহুমাকে শেরপুর চাপাতলী পৌর কবরস্থানে নাতি সাংবাদিক ফাগুন রেজা’র কবরের পাশে দাফন করা হয়। 

এর আগে শনিবার সকালে শেরপুর জেলার প্রথম সংবাদপত্র ‘সাপ্তাহিক শেরপুর’-এর সম্পাদক ভাষাসৈনিক আব্দুর রেজ্জাকের স্ত্রী জাহানারা রেজ্জাক শেরপুর জেলা শহরের রঘুনাথ বাজারস্থ নিজ বাসভবনে ইন্তেকাল করেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৮২ বছর। জেলায় অত্যন্ত জনপ্রিয় এই সমাজসেবিকার মৃত্যুতে জেলা শহরে শোকের ছায়া নেমে আসে। 

নামাজে জানাযায় জেলা শেরপুর পৌরসভার মেয়র ও আওয়ামী লীগ নেতা গোলাম মোহাম্মদ কিবরিয়া লিটন, জেলা বারের সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট রফিকুল ইসলাম আঁধার, আওয়ামী লীগের সহসভাপতি মিনহাজ উদ্দিন মিনাল, বিএমএ’র সাবেক সভাপতি ডা. সুরুজ্জামান, সাবেক পিপি অ্যাডভোকেট আব্দুল কাদের খান, সাবেক ভারপ্রাপ্ত পৌর মেয়র অ্যাডভোকেট আব্দুল মান্নান, দুর্নীতি দমন কমিশনের আইনজীবী মোখলেছুর রহমান জীবন, বিএনপির সভাপতি সাবেক সংসদ সদস্য মাহমুদুল হক রুবেল,, সাবেক পৌর প্যানেল চেয়ারম্যান মতিউর রহমান মতি, বিএনপি নেতা শহীদুল ইসলাম, মরহুমার আত্মীয় কৃষকলীগ নেতা হোসেন আল ফারুক ডিউন, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ ও পুত্র কাকন রেজা মরহুমার স্মৃতিচারণ করেন। 

মরহুমা জাহানারা রেজ্জাক ছিলেন শেরপুর পৌরসভার সাবেক কাউন্সিলর ও জাতীয় মহিলা সংস্থার শেরপুর জেলার সাবেক চেয়ারম্যান। এছাড়াও জাহানারা বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠানের সাথে যুক্ত ছিলেন। মরহুমার রাজনৈতিক জীবন শুরু হয় মাওলানা ভাসানীর অনুপ্রেরণায় ন্যাপের রাজনীতির মাধ্যমে। তিনি ১৯৭৮ সালে প্রথম মহিলা প্রার্থী হিসাবে পৌরসভার নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে অংশগ্রহণ করেন।

জাহানারা রেজ্জাক দীর্ঘদিন থেকেই বার্ধক্যজনিত কারণে শয্যাশায়ী ছিলেন। গত ২১ মে নাতি সাংবাদিক ফাগুন রেজা আততায়ীর হাতে নিহত হন। এ ঘটনায় তিনি আরো মানসিক ভাবে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েন।

(ঢাকাটাইমস/২০অক্টোবর/এজেড)

সংবাদটি শেয়ার করুন

গণমাধ্যম বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :