‘কর্তৃপক্ষ সচেতন হলে কেরানীগঞ্জের ঘটনা এড়ানো যেত’

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ১১ ডিসেম্বর ২০১৯, ২০:০৯

ঢাকা মেডিকেলে এসে কেরানীগঞ্জের চুনকুঠিয়ায় প্লাস্টিক কারখানায় আগুনের ঘটনায় দগ্ধদের দেখেছেন কেরানীগঞ্জ আসনের সাংসদ এবং বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপু। এ সময় তিনি জানান, কর্তৃপক্ষ সচেতন হলে এই দুর্ঘটনা এড়ানো যেত।

বুধবার সন্ধ্যার পর তিনি ঢাকা মেডিকেলে আসেন। এ সময় তিনি সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, এ ঘটনায় দগ্ধ হয়ে প্রায় ৩৪ জনের মতো ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বান ইউনিটে ভর্তি আছেন। তাদের ৩০ শতাংশের বেশি শরীর ঝলসে গেছে। আমরা জানতে পেরেছি একজনের মৃত দেহ পাওয়া গেছে। বাকি কেউ আছে কি না তাদের এখনো কারখানার ভেতরে খোঁজা হচ্ছে।

নসরুল হামিদ বলেন, আমরা প্রচণ্ডভাবে দুঃখ প্রকাশ করছি। এটা একটা অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা। পরবর্তী সময়ে এই ধরনের ঘটনার পুনরাবৃত্তি যাতে না হয় এজন্য স্থানীয় প্রশাসনের সঙ্গে আমি কথা বলেছি। যেসব কারখানা ঝুঁকিপূর্ণ সে সকল কারখানা চিহ্নিত করে আইনগত ব্যবস্থা নিতে হবে। বারবার বলার পরেও লোকাল গভর্নমেন্টসহ কর্তৃপক্ষের এই বিষয়গুলো দেখা উচিত ছিল।

প্রতিমন্ত্রী জানান, যারা এখানে দগ্ধ হয়ে এসেছেন তাদের সকলের অবস্থা শঙ্কামুক্ত না। কারখানা থেকে যদি আরও নতুন রোগী আসে তাহলে তাদেরকে ঢাকা মেডিকেল থেকে নতুন বার্ন হাসপাতালে হস্তান্তর করবে।

দগ্ধদের চিকিৎসায় আর্থিক সহায়তার বিষয়ে তিনি বলেন, ‘সে বিষয়টি তো আসবেই। আমরা দ্রুতই জানাবো সাহায্যের বিষয়ে।’

কারখানার বিরুদ্ধে কী ধরনের ব্যবস্থা নেওয়া হবে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এগুলো একটাও অনুমোদিত না। স্ব স্ব কর্তৃপক্ষ যদি তাদের দায়িত্ব পালন করতেন তাহলে প্রথম থেকে এসব হতো না।

(ঢাকাটাইমস/১১ডিসেম্বর/এসএস/জেবি)

সংবাদটি শেয়ার করুন

জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :