সমাপনীতে সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী

গিনেজ বুকে নাম লেখাতে চায় বইমেলা

তানিয়া আক্তার, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ২৩:৫০

গিনেজ বুক অব রেকর্ডসে যাতে বাংলাদেশের বইমেলা অন্তর্ভুক্ত হতে পারে সেজন্য বইপ্রেমীর সংখ্যার বীরভূম নির্ধারণে বাংলা একাডেমির প্রতি অনুরোধ জানিয়েছেন সংস্কৃতিবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ।

শনিবার সন্ধ্যায় বাংলা একাডেমির মূল মঞ্চে অমর একুশে গ্রন্থমেলা ২০২০ সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ অনুরোধ জানান তিনি। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন অধ্যাপক আনিসুজ্জামান।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, 'পৃথিবীতে এত দীর্ঘ সময় ধরে হাজার হাজার মানুষের মিলনমেলায় নিয়ে বইমেলা অনুষ্ঠিত হয় না। এটি একমাত্র আমাদের দেশে হয়। বাংলা একাডেমির কাছে আমার অনুরোধ, বইপ্রেমীর এই সংখ্যাটা যাতে নির্ভুলভাবে নির্ণয় করা হয়, যাতে আমরা গিনেজ বুক অব রেকর্ডসে অন্তর্ভুক্ত করতে পারি।'

আগামী দিনে অমর একুশে গ্রন্থমেলার নাম অমর একুশে বইমেলা হবে বলে জানান সংস্কৃতি ৫প্রতিমন্ত্রী। এছাড়া বাইশে নভেম্বর আন্তর্জাতিক বইমেলা করতে যাচ্ছি। সে প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে। কলকাতা বইমেলা বঙ্গবন্ধুকে উৎসর্গ করা হবে। এটা আমাদের জন্য পরম পাওয়া।'

তিনি আরো বলেন, 'বইয়ের পাঠক লেখক প্রকাশক বেড়েছে, তবে মানসম্মত বই গতবারের চেয়ে কমেছে। সামনের বার আমরা এ বিষয়টি নিয়ে পরিকল্পতভাবে এগোবো।'

বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক কবি হাবীবুল্লাহ সিরাজী বলেন, 'বই যেন সবার নিত্যসঙ্গী হয়। এবারের মেলা আমরা চেষ্টা করেছি সর্বাঙ্গীন সুন্দর রাখতে। এত মানুষের মিলনমেলা কিছু তুটি থাকতেই পারে। আমরা আগামীতে আরও নির্ভুল করার চেষ্টা করব।'

অমর একুশে গ্রন্থমেলা ২০২০ উপলক্ষে বাংলা একাডেমি পরিচালিত চারটি গুণীজন স্মৃতি পুরস্কার বিজয়ীদের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে। ২০১৯ সালে প্রকাশিত বিষয় ও গুণমানসম্মত সর্বাধিক সংখ্যক গ্রন্থ প্রকাশের জন্য ‘কথাপ্রকাশ’-কে চিত্তরঞ্জন সাহা স্মৃতি পুরস্কার, ২০১৯ সালে প্রকাশিত গ্রন্থের মধ্যে শৈল্পিক ও গুণমান বিচারে সেরা গ্রন্থ বিভাগে আবুল হাসনাত রচিত ‘প্রত্যয়ী স্মৃতি ও অন্যান্য’ গ্রন্থের জন্য ‘জার্নিম্যান বুকস’, মঈনুস সুলতান রচিত ‘জোহানেসবার্গের জার্নাল’ গ্রন্থের জন্য ‘প্রথমা’ প্রকাশনকে এবং রফিকুন নবী রচিত ‘স্মৃতির পথরেখা’ গ্রন্থের জন্য বেঙ্গল পাবলিকেশন্সকে মুনীর চৌধুরী স্মৃতি পুরস্কার-২০২০ প্রদান করা হয়।

২০১৯ সালে প্রকাশিত শিশুতোষ গ্রন্থের মধ্য থেকে গুণমান বিচারে সর্বাধিক গ্রন্থ প্রকাশের জন্য পাঞ্জেরী পাবলিকেশন্স লিমিটেড-কে রোকনুজ্জামান খান দাদাভাই স্মৃতি পুরস্কার, এবং ২০২০ সালের অমর একুশে গ্রন্থমেলায় অংশগ্রহণকারী প্রকাশনা প্রতিষ্ঠানসমূহের মধ্য থেকে নান্দনিক অঙ্গসজ্জায় সেরা প্রতিষ্ঠান হিসেবে ‘অভিযান’ (এক ইউনিট), ‘কুঁড়েঘর প্রকাশনী লিমিটেড’ (২-৪ ইউনিট) এবং ‘বাংলা প্রকাশ’ (প্যাভেলিয়ন)-কে শিল্পী কাইয়ুম চৌধুরী স্মৃতি পুরস্কার-২০২০ প্রদান করা হয়।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন অমর একুশে গ্রন্থমেলার আহ্বায়ক ড. জালাল আহমেদ প্রমুখ।

(ঢাকাটাইমস/ ২৯ ফেব্রুয়ারি/ মোআ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

সাহিত্য বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :