কোচিং বাণিজ্যের আড়ালেই জাল সনদের ব্যবসা

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ১৭ মার্চ ২০২০, ১৩:৪৭

কোচিং বাণিজ্যের আড়ালে করেন জাল সনদের ব্যবসা। এজন্য গ্রামের সহজ সরল স্বল্পশিক্ষিত লোকজনকে টার্গেট করে তাদের কাছ থেকে মোটা অঙ্কের টাকা হাতিয়ে নেওয়াই ছিল তার কাজ। এমন অভিযোগে র‌্যাবের কাছে গ্রেপ্তার হন কুমদ কর্মকার ওরফে জয়। গতকাল সোমবার বিকালে তাকে রাজধানীর ইত্তেফাক মোড় থেকে গ্রেপ্তার করা হয়।

র‌্যাব-৩ এর একটি সূত্র জানায়, সোমবার বিকাল ইত্তেফাক মোড়ের মোতালেব ম্যানসনের পঞ্চম তলার ৫১২ নম্বর রুম থেকে কুমদ কর্মকার ওরফে জয়কে গ্রেপ্তার করা হয়। এ সময়ে তার অফিস তল্লাশি করা হয়। পরে সেখান থেকে বিভিন্ন নামে এইচএসসি পরীক্ষার ৬০টি রেজিস্টেশন কার্ড, ২০টি একাডেমিক ট্রান্সক্রিপ্ট, বাউবির ৪৮টি দ্বিতীয় বর্ষের তথ্য কার্ড, বিভিন্ন নামের পাঁচটি সদনপত্র, বাউবির টাকা জমা দেওয়ার রশিদ বই একটি, ৩০টি এইচএসসি পরীক্ষার প্রবেশ পত্রসহ বিভিন্ন কাগজপত্র উদ্ধার করা হয়।

গ্রেপ্তার কুমদ কর্মকার জয়ের বরাত দিয়ে র‌্যাব জানিয়েছে, তিনি দীর্ঘদিন ধরে কোচিং বাণিজ্যের আড়ালে গ্রামের সহজ সরল স্বল্পশিক্ষিত ছাত্র-ছাত্রীদের টার্গেট করতেন। পরে সরলতার সুযোগ নিয়ে তাদের কাছ থেকে মোটা অঙ্কের টাকা হাতিয়ে নিয়ে তাদের বানোয়াট জাল শিক্ষাসনদ দিতেন।

গ্রেপ্তারকৃত কুমদ কর্মকার জয় নোয়াখালী জেলার নির্মল কর্মকারের ছেলে।

এ ব্যাপারে র‌্যাব-৩ এর অপারেশন অফিসার এবিএম ফয়জুল ইসলাম ঢাকাটাইমসকে বলেন, তার বিরুদ্ধে ওয়ারী থানায় জাল জালিয়াতি ও প্রতারণার একটি মামলা করা হচ্ছে।

ঢাকাটাইমস/১৭ মার্চ/এএ /এমআর

সংবাদটি শেয়ার করুন

অপরাধ ও দুর্নীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :