করোনা চিকিৎসায় ইবনে সিনা, উপসর্গের রোগীদের আলাদা ব্লক

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ০৩ জুলাই ২০২০, ২১:৪৮

সাধারণ চিকিৎসার পাশাপাশি করোনায় আক্রান্তদেরও চিকিৎসা শুরু করলো রাজধানীর ইবনে সিনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল। করোনা শনাক্ত হওয়া বা উপসর্গ নিয়ে ভর্তি হওয়া রোগীদের থেকে যাতে সংক্রমণ ছড়াতে না পারে সেজন্য তৈরি করা হয়েছে আলাদা ব্লক। সম্প্রতি কল্যাণপুরে অবস্থিত হাসপাতালটিতে নেয়া হয়েছে এ চিকিৎসা ব্যবস্থা।

জানা গেছে, হাসপাতালটিতে সাধারণ রোগীদের জন্য ‘গ্রিন জোন’ নামে নিরাপদ ব্যবস্থাপনা করা হয়েছে। যা করোনা ইউনিট থেকে সম্পূর্ণ আলাদা। আবার সন্দেহভাজন করোনা রোগীদেরকে জন্য ‘অবজারভেশন কেবিন ব্লকে’ চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

আর করোনা রোগীদের জন্য নির্ধারিত ‘রেড জোনে’ রয়েছে সেন্ট্রাল অক্সিজেন লাইন ব্যবস্থা। যার মাধ্যমে রোগীদেরকে প্রয়োজনে হাই ফ্লো নেসাল ক্যানুলার সেবা দেয়ার ব্যবস্থা রয়েছে।

নমুনা পরীক্ষায় যেসব রোগীর নেগেটিভ ফল এসেছে, কিন্তু এখনো তাদের দেহে পুরোপুরি করোনার লক্ষণ বিদ্যমান অথবা এক্সরে ও সিটিস্ক্যানে করোনার ক্ষত ধরা পড়েছে, এ সকল রোগীর জন্য মেডিকেলের কোভিড ইউনিটে আছে ইয়েলো জোন। রোগীদের সুবিধার্থে এখানেও সেন্ট্রাল অক্সিজেন লাইনের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে।

সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, করোনার সময়েও তাদের হাসপাতালে সাধারণ চিকিৎসাসেবা অব্যাহত রয়েছে। পাশাপাশি করোনা চিকিৎসায় সেন্ট্রাল অক্সিজেন লাইনসহ অত্যাধুনিক সকল সেবা নিয়ে প্রস্তুত করা হয়েছে করোনা-ইউনিট। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রটোকল মেনে হাসপাতালে রোগীদের জন্য আলাদা আলাদা ব্লক করা হয়েছে। এতে করে সংক্রমণের ঝুঁকি এড়ানো যাবে।

জানা গেছে, হেপা ফিল্টার নেগেটিভ প্রেসারের সম্পূর্ণ আলাদা ব্যবস্থা থাকছে হাসপাতালটিতে। সেখানে হাই ফ্লো নেসাল ক্যানুলার সুবিধাসম্পলিত কোভিড আইসিইউ ও সাধারণ আইসিইউ রয়েছে। রোগীর সুরক্ষার কথা বিবেচনা করে প্রতিটি ব্লকে এসি, নন-এসি কেবিনের সুবিধাও রয়েছে।

হাসপাতালটির একজন কর্মকর্তা ঢাকা টাইমসকে জানান, নতুন চালু হওয়া করোনা ইউনিটে রয়েছে দেশের বেসরকারি পর্যায়ের প্রথম বিসিএ-২ পিসিআর ল্যাব। যেখানে দিনে প্রায় তিন শ নমুনা পরীক্ষা করা যায়। ভর্তি রোগীদেরকে একদিনের মধ্যেই করোনা শনাক্ত করা হয়।

এদিকে করোনকালের সম্মুখযোদ্ধা চিকিৎসক ও মেডিকেল শিক্ষার্থীদের জন্য এখানে সরাসরি করোনা পরীক্ষার বিশেষ ব্যবস্থা রয়েছে। এজন্য অবশ্য ০১৭৩১১৯৯৫৯৫ এই নম্বরে যোগাযোগ করে হাসপাতালে যেতে হবে। সঙ্গে নিয়ে যেতে হবে পরিচয়পত্র বা বিএমডিসি রেজিস্ট্রেশন নম্বর।

হাসপাতালে পরীক্ষার সিরিয়ালে জন্য ১০৬১৫ এবং করোনার উপসর্গ ও করোনা আক্রান্ত রোগীদের ভর্তির জন্য ০১৯৭৫৫১৪৬১৪ এবং ০১৭১৬৪৫১৪২৮ এই নম্বরে যোগাযোগ করতে পারবেন বলেও জানানো হয়েছে।

(ঢাকাটাইমস/০৩জুলাই/বিইউ/ইএস)

সংবাদটি শেয়ার করুন

স্বাস্থ্য বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :