তিন দিনে ৩৬ হাজার রিকশা-ভ্যানের নিবন্ধন আবেদন

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ২০:৪৪

অযান্ত্রিক পরিবহনে ইঞ্জিন বা ব্যাটারি লাগিয়ে চলাচলকারী সকল পরিবহন নিষিদ্ধ করেছে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন (ডিএসসিসি)। পাশাপাশি সকল অযান্ত্রিক পরিবহনের নিবন্ধন, নবায়ন ও মালিকানা পরিবর্তনের জন্য আবেদন করতে বলা হয়েছে। এরই প্রেক্ষিতে গত তিন দিনে ৩৬ হাজারের বেশি আবেদন জমা পরেছে বলে জানিয়েছেন দক্ষিণ সিটি কর্তৃপক্ষ।

ডিএসসিসির জনসংযোগ কর্মকর্তা আবু নাছের জানান, ডিএসসিসির আওতাধীন এলাকায় অযান্ত্রিক যানবাহন নিবন্ধন, নবায়ন এবং মালিকানা পরিবর্তনের জন্য করপোরেশন এক গণবিজ্ঞপ্তি প্রচার করেছে। গত রবিবার থেকে আজ পর্যন্ত তিন দিনে রিকশা, ভ্যান, ঠেলাগাড়ি, ট্রলি গাড়ি ও ঘোড়ার গাড়ি নিবন্ধন নবায়নের জন্য মোট ৩৬ হাজার ২৩২টি আবেদন জমা পড়েছে।

এরমধ্যে রবিবার ৩ হাজার ৭৮৭টি, সোমবার ১৩ হাজার এবং আজ ১৯ হাজার ৪৪৫টি আবেদন জমা পড়েছে। আগামী ২৭ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত নগর ভবনের ভাণ্ডার ও ক্রয় বিভাগ এবং আঞ্চলিক কার্যালয়গুলোর দপ্তর হতে অফিস চলাকালীন সময়ে নিবন্ধন, নবায়ন ও মালিকানা পরিবর্তনের আবেদনপত্র সংগ্রহ ও জমা দেয়া যাবে। আর এর জন্য ফি ধরা হয়েছে এক শ টাকা।

ডিএসসিসি জানায়, আবেদনগুলো যাচাই-বাছাই করে যোগ্য বিবেচিত হওয়া আবেদনগুলোর অনুকূলে নির্ধারিত ফি পরিশোধের মাধ্যমে নিবন্ধন দেওয়া হবে।

এছাড়া প্রকাশিত গণবিজ্ঞপ্তি অনুসারে, গত রবিবার থেকে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন এলাকায় মোটরচালিত, যন্ত্রচালিত, ইঞ্জিনচালিত, ব্যাটারিচালিত রিকশা ও ভ্যান চলাচল নিষিদ্ধ করা হয়েছে। এ ধরনের যানবাহন নিবন্ধন প্রদান করা হবে না এবং সকল অবৈধ যানবাহনের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এদিকে দুই সিটি করপোরেশনের তথ্য মতে, রাজধানীতে অনুমোদিত রিকশা ও ভ্যান গাড়ির সংখ্যা ৭৯ হাজার ৫৫৪টি। তবে বাস্তবে ঢাকায় রিকশার সংখ্যা প্রায় ১১ লাখ।

রিকশাকে যানজটের কারণ হিসেবে উল্লেখ করে ১৯৮৬ সাল থেকে গত ৩৪ বছরে এসব রিকশা ও ভ্যান গাড়ির অনুমোদন বন্ধ রাখে সিটি করপোরেশন। তবে এই সময়ের মধ্যে অনুমোদন না দেয়া হলেও প্রতিদিনই রাজধানীতে তৈরি হচ্ছে নতুন নতুন রিকশা ও ভ্যান। অযান্ত্রিক রিকশা ও ভ্যানের পাশাশাশি অযান্ত্রিক পরিবহনে ইঞ্জিন ও মোটর যুক্ত করে তৈরি হয়েছে হাজার হাজার অবৈধ পরিবহন।

(ঢাকাটাইমস/১৫সেপ্টেম্বর/কারই/ইএস)

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজধানী বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :