শিক্ষার্থীদের পড়াশোনায় আবারো এগিয়ে এলো ‘সিইপি’

রবিউন নাহার তমা
 | প্রকাশিত : ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৫:০৪

কমিউনিটি এডুকেশন প্রোগ্রাম বা ‘সিইপি’ প্রবাসী বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের কাছে বর্তমানে সুপরিচিত একটি নাম। গত ৭ জুলাই কমিউনিটি এডুকেশন প্রোগ্রাম তাদের আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু করে। আড়াই মাসের প্রোগ্রামে তারা ইতালি, মালোয়েশিয়া, যুক্তরাষ্ট্রসহ সাতটি দেশের শিক্ষার্থীদের ফ্রি অনলাইন ক্লাসের মাধ্যমে পড়াশোনা চালিয়ে যেতে সহায়তা করেছে। কোর্স শেষে সমাপনী পরীক্ষার পর রোমের "Good Shepard Int. School"-এ এক অনাড়ম্বর অনুষ্ঠানের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের সার্টিফিকেট প্রদান করা হয়।

প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী গত ১৪ সেপ্টেম্বর থেকে ইতালি সরকার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার অনুমতি দিয়েছে। কিন্তু দীর্ঘ কয়েক মাসের পড়াশোনার ক্ষতি পুষিয়ে ওঠা সহজ নয়। উপরন্তু বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থার বিবৃতি অনুযায়ী সেপ্টেম্বরে ইউরোপজুড়ে আবারো আশঙ্কাজনক হারে বেড়ে গেছে করোনার সংক্রমণ। ইতোমধ্যেই মাদ্রিদে দ্বিতীয়বারের মতো লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে, যুক্তরাজ্য সরকার করোনা পজিটিভ ব্যক্তি সেলফ আইসোলেশনে না থাকলে ধার্য করেছে দশ হাজার পাউন্ডের বিশাল জরিমানা। সুতরাং দ্বিতীয়বারের মতো গোটা ইউরোপ এমনকি অন্য মহাদেশেও লকডাউনের সম্ভাবনা একেবারে উড়িয়ে দেয়া যাচ্ছে না। এমতাবস্থায় শিক্ষার্থীদের সুবিধার কথা বিবেচনা করে ইতালি প্রবাসী ‘ইউনিভার্সিটি অব রোম তর ভেরগাতা'-এর বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের প্রতিষ্ঠান

'কমিউনিটি এডুকেশন প্রোগ্রাম' বা ‘সিইপি’ আবারো তাদের ফ্রি এডুকেশন চালু করতে যাচ্ছে। তারা ১ অক্টোবর থেকে ১৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত আরেকটি আড়াই মাসের প্রোগ্রাম চালু করতে যাচ্ছে বলে জানা গেছে।

ইতালিয়ান স্কুলগুলোতে সাধারণত বিকেল ৪টা ৩০ মিনিট পর্যন্ত শিক্ষা কার্যক্রম চালু থাকে। যেহেতু শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা, সেহেতু তারা এবারে IGCSE কারিকুলামে ক্লাস ইলেভেন পর্যন্ত শিক্ষার্থীদের জন্য উইকেন্ড প্রোগ্রামের ব্যবস্থা করছে। এর আওতায় শিক্ষার্থীরা শনি ও রবিবার এই দুদিন অনলাইনে ফ্রি ক্লাস করতে পারবে। তাছাড়া শিক্ষার্থীদের জন্য উইকেন্ড প্রোগ্রাম ছাড়াও 'After School' বা ' dopo scuola' প্রোগ্রামও চালু করার কথা ভাবনায় আছে বলে জানালেন কমিউনিটি এডুকেশন প্রোগ্রামের প্রতিষ্ঠাতা সুজন খান।

উইকেন্ড প্রোগ্রামে ক্লাস চলবে সকাল ৯টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত। অভিভাবকদের অনুরোধে এবারও মূলত ইংলিশ, ম্যাথ ও সায়েন্স পড়ানো হবে। উইকেন্ড ক্লাস ছাড়াও শিক্ষার্থীদের জন্য থাকছে ভিডিও লেসন, যা দেখে তারা শিখতে পারবে এবং সেখান থেকে প্রশ্নও করতে পারবে। ডেভেলপ করা হয়েছে একটি স্কুল ম্যানেজমেন্ট সফটওয়্যার যার মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের প্রগ্রেস রিপোর্ট প্রদান করা হবে। তাছাড়া রয়েছে আরও কিছু পরিকল্পনা।

সর্বোপরি শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণ এবং অভিভাবকদের চেষ্টায় কমিউনিটি এডুকেশন প্রোগ্রামের কার্যক্রম আরও এগিয়ে যাবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন প্রতিষ্ঠাতারা।

লেখক: শিক্ষক

ঢাকাটাইমস/২৪আগস্ট/এসকেএস

সংবাদটি শেয়ার করুন

পাঠকের অভিমত বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :