মুজিববর্ষ উপলক্ষে তেঁতুলিয়া-টেকনাফ সাইক্লিং এক্সপেডিশন উদ্বোধন

পঞ্চগড় প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ০৮ নভেম্বর ২০২০, ১৬:৪৯ | প্রকাশিত : ০৮ নভেম্বর ২০২০, ১৬:৪৭

মুজিববর্ষকে স্মরণীয় করে রাখতে পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়া উপজেলার বাংলাবান্ধা সীমান্তের জিরো লাইন বরাবর বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর উদ্যোগে ‘মুজিববর্ষ সাইক্লিং এক্সপেডিশন’র উদ্বোধন হয়েছে।

রবিবার দুপুরে বাংলাদেশ পতাকা ও পায়রা উড়িয়ে সেনাবাহিনীর ৬৬ পদাতিক ডিভিশনের জিওসি ও রংপুর এরিয়া কমান্ডার মেজর জেনারেল নজরুল ইসলাম এর উদ্বোধন করেন।

এসময় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর উপর অর্পিত দায়িত্ব যেখানে যখন যেভাবে প্রয়োজন হবে দেশের সার্বিক কল্যাণে জাতির পিতার স্বপ্ন বাস্তবায়নে সফলতার সঙ্গে পালন করা হবে। দেশের সরকার প্রধানের যেকোন উদ্যোগকে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী অত্যন্ত দৃঢ়ভাবে, সচলভাবে এবং সফলভাবে সম্পন্ন করবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘সমরে আমরা, শান্তিতে আমরা, সর্বত্র আমরা, দেশের তরে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী এই মূল মন্ত্রে উজ্জীবিত। শুধু দেশে নয় বিশ্বপরিমণ্ডলেও বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর অবস্থান অত্যন্ত উজ্জ্বল। বাংলাদেশের স্বাধীনতা ও অখণ্ডতা রক্ষার ক্ষেত্রে এবং সার্বভৌমত্ব রক্ষার ক্ষেত্রে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী অতিতের ন্যায় সার্বিকভাবে জনসাধারণের আস্থার একটি স্থান এবং তাদের উপর অর্পিত দায়িত্ব যেকোন বিনিময়ে পালন করে যাবে।’

জেনারেল নজরুল ইসলাম বলেন, ‘সরকার ২০২০ সালের ১৭ মার্চ থেকে ২০২১ সালের ২৬ মার্চ পর্যন্ত সময়কালকে মুজিববর্ষ হিসেবে উদযাপনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তারই অংশ হিসেবে তেঁতুলিয়া থেকে টেনাফ পর্যন্ত সাইকেলে দীর্ঘ পথ পাড়ি দেবার দুঃসাহসিক প্রয়াস গ্রহণ করা হয়েছে। সম্পূর্ণ পথে জাতির পিতার জন্মশতবর্ষের চেতনাকে ধারণ করার জন্য বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর সকল ফরমেশনের ১০০ জন সাইক্লিস্টের অংশগ্রহণে এই বছরকে আরো তাৎপর্যপূর্ণ করে তোলার প্রচেষ্টা গ্রহণ করা হয়েছে। একইসঙ্গে একাত্তরের চেতনাকে মহিমান্বিত করে তোলার জন্য ৭১ জন সাইক্লিস্ট এই অপরাজেয় সাইক্লিং এক্সপেডিশন চলমান রাখবে।’

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের পর বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ১০০ সেনাসদস্য তেঁতুলিয়া বাংলাবান্ধা থেকে টেকনাফ পর্যন্ত ১০১০ কিলোমিটার পথে যাত্রা শুরু করেন। এসময় সড়কের দুই পাশে কয়েকশ নারী-পুরুষ ও শিক্ষার্থী পতাকা উড়িয়ে এবং হাততালি দিয়ে সাইক্লিস্টদের স্বাগত জানান। আগামী ৩ ডিসেম্বর টেকনাফে মুজিববর্ষ সাইক্লিং এক্সপেডিশন শেষ হওয়ার কথা।

অনুষ্ঠানে পঞ্চগড়ের জেলা প্রশাসক সাবিনা ইয়াসমিন, পুলিশ সুপার ইউসুফ আলী, পঞ্চগড় ১৮ বিজিবি অধিনায়ক লে. কর্নেল খন্দকার আনিসুর রহমানসহ সেনাবাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকতারা উপস্থিত ছিলেন।

(ঢাকাটাইমস/৮নভেম্বর/পিএল)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত