অবশেষে করোনায় মৃতদের কবর দেয়ার অনুমতি শ্রীলংকার

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১৬:৩২ | প্রকাশিত : ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১২:২১

অবশেষে করোনাভাইরাসে মৃতদের দাফনের ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করেছে শ্রীলংকা। দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্রের বরাত দিয়ে আল জাজিরা জানিয়েছে, মুসলিম জনগোষ্ঠীর প্রতিবাদ এবং আন্তর্জাতিক চাপের মুখে শুক্রবার মৃতদের কবর দেয়ার ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করেছে শ্রীলংকা। ফলে দেশটিতে করোনা আক্রান্ত হয়ে কোনো মুসলিম ব্যক্তি এখন মারা গেলে তার কবর দেয়া যাবে।

গত বছরের মার্চে শ্রীলংকার সরকার কোভিড -১৯ এ মৃতদেহ শুধুমাত্র দাহ করার আইন করে। ওই আইনে কবর দিলে ভূগর্ভস্থ পানির মাধ্যমে করোনা ছড়াতে পারে আশঙ্কা করে কবর দেয়া নিষিদ্ধ করা হয়। তবে দেশটির মুসলিম জনগোষ্ঠী শ্রীলংকা সরকারের এমন দাবির কোনো বৈজ্ঞানিক ভিত্তি নেই বলে প্রতিবাদ করতে থাকে এবং মৃতদেহ পোড়ানো ইসলামী নীতি বিরোধী বলে কবর দেয়ার ওপর নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারে দাবি জানাতে থাকে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা এবং শ্রীলংকার ডাক্তার কমিউনিটি করোনাভাইরাস আক্রান্ত মৃতদেহ কবর দিলে কোনো সমস্যা নেই বলে মত দেয়। তারপরও শ্রীলংকা সরকার কবরের ওপর নিষেধাজ্ঞা বহাল রাখে।

গত বুধবার শ্রীলংকার সংসদ সদস্যরা দেশটিতে পরিদর্শনরত পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানকে বিষয়টি শ্রীলংকার রাজনীতিবিদদের কাছে তোলার আহ্বান জানায়।

এছাড়া গত বুধবার জাতিসংঘের মানবাধিকার কমিশন অফিসের মিশেল ব্যাচলেট জেনেভা কাউন্সিলে এক বিবৃতিতে বিষয়টি উত্থাপন করেন। ওই বিবৃতিতে বলা হয়, করোনায় মারা যাওয়াদের দাহ করা বাধ্যকরণ নীতি সংখ্যালঘু মুসলিম এবং খ্রিস্টানদের কষ্টের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে।

বৃহস্পতিবার শ্রীলংকার মুসলিম জনগোষ্ঠী কবর দেয়ার ওপর নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারে প্রেসিডেন্ট ভবনের বাইরে ব্যাপক বিক্ষোভ করে।

গত বছরের জানুয়ারি থেকে এখন পর্যন্ত শ্রীলংকায় করোনাভাইরাসে মারা গেছে ৪৫৯ জন, আক্রান্ত হয়েছে ৮২ হাজারেরও বেশি মানুষ। দ্বীপরাষ্ট্র শ্রীলংকা বৌদ্ধ ও হিন্দু জনসংখ্যাবহুল দেশ। দেশটিতে ১০ শতাংশ মুসলিম রয়েছে যেটা মোট সংখ্যায় ২ কোটি ১০ লাখ।

(ঢাকাটাইমস/২৬ফেব্রুয়ারি/কেআই}

সংবাদটি শেয়ার করুন

আন্তর্জাতিক বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :